কমার্স কলেজে সিট বেড়েছে, সুযোগও!


Published: 2019-07-23 16:07:32 BdST, Updated: 2019-08-23 02:59:30 BdST

মনিরুল কবির বাধন, কমার্স কলেজ, চট্রগ্রামঃ সদ্য প্রকাশ করা হয়েছে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার রেজাল্ট। খুশির আনন্দে কেউ ভাসছে। আবার অনেকে ভিজছে হতাশার জ্বর! রেজাল্ট পর্ব তো গেলো, এবার সময় সামনে পা বাড়ানোর। উচ্চ শিক্ষর নানা দ্বার খুলে গেছে শিক্ষার্থীদের সামনে। আনন্দে ভেসে যাওয়া কিংবা হতাশয় মুচড়ে যাওয়া এখন আর চলবে না। উঠে দাড়িয়ে এখন সামনে পা বাড়াতে হবে।

অনেকে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য নিজেদের প্রস্তুতি চালিয়ে যাচ্ছে। অনেকে আবার হিসাব নিকাশ মিলিয়ে দেখছে কত পয়েন্ট এ কোন কলেজে আসবে। তবে প্রায় অধিকাংশ শিক্ষার্থী জানেই না কোন কলেজে কত সিট বা কতটা বিষয় আছে। ফলে প্রায় সময় সঠিক ভাবে আবেদন করতে না পেরে ভর্তির সুযোগ হারাচ্ছে অনেক শিক্ষার্থী।  তাই আজ আমরা তুলে ধরবো নগরীর অন্যতম স্বনামধন্য কলেজ সরকারি কমার্স কলেজ এর অনার্স এর সিট ও বিষয় বিবরনী।

ব্যবসা শিক্ষার বিশেষায়িত কলেজ টি তে অনার্স এ মোট বিষয় আছে সাত টি। হিসাববিজ্ঞান , ব্যবস্থাপনা, ফিন্যান্স, মার্কেটিং, অর্থনীতি, বাংলা ও ইংরেজি। এক সময় শুধু হিসাববিজ্ঞান ও ব্যবস্থােনা নিয়ে অনার্স কার্যক্রম আরম্ভ হলে ও ক্রমবর্ধমান শিক্ষা চাপের ফলে একে একে আরো পাঁচটি বিষয় যুক্ত হয় অনার্স কার্যক্রম এ। ২০১৪ সালে অর্থনীতি, ২০১৭ সালে মার্কেটিং, ফিন্যান্স, ইংরেজি ও বাংলা বিভাগ গুলো চালু করা হয়।

বর্তমানে সরকারি কমার্স কলেজ এ সর্বমোট ৬৫০ টি সিট রয়েছে। হিসাববিজ্ঞান ও ব্যবস্থাপনা বিভাগে ২০০ করে মোট ৪০০ সিট এবং নতুন সংযোজিত বাকি পাঁচটা বিষয়ে প্রত্যেক টি তে ৫০ টি করে মোট ২৫০ সিট রয়েছে। কলেজের গত কয়েক বছরের ভর্তি প্রক্রিয়া যাচাই করে দেখা যায় হিসাববিজ্ঞান ও ব্যবস্থাপনা বিভাগে ভর্তি যুদ্ধে প্রতিযোগিতা হয় বেশি। গত কয়েক বছরের ধারাবাহিকতায় অনুমান করা যায় এসএসসি ও এইচএসসি  তে কমপক্ষে পয়েন্ট  ৯.৫০ হলে কলেজের এ দুইটি বিভাগে ভর্তি হওয়া যাবে। এ ছাড়া বাকি বিভাগ গুলো তে ও ভর্তি আশাবাদী হতে কমপক্ষে পয়েট ৮.০০ বা তার অধিক হতে হবে।

যেহেতু সরকারি কমার্স কলেজ বানিজ্য শিক্ষায় বিশেষায়িত কলেজ তাই হিসাববিজ্ঞান ও ব্যবস্থাপনা এ দুইটা বিষয়ে ছাত্রদের ভর্তির আগ্রহ বেশি। এবং এ দুইটি বিষয় এ  প্রতিযোগিতা হয় বেশি। তবে ক্যাম্পাস ঘুরে দেখা যায় নতুন বিভাগ হিসাবে ফিন্যান্স, মার্কেটিং ও অর্থনীতি বেশ ভালো অবস্থায় আছে। কলেজ কর্তৃপক্ষ ও এসব বিভাগের ভালো ফলাফল নিয়ে বেশ আশাবাদী।

উল্লেখ্য এই বছর চট্টগ্রাম বিভাগ থেকে সর্বমোট এইচএসসি পরীক্ষায় কৃতকার্য হয়ছে ৩১২২৪ জন শিক্ষার্থী।  চট্টগ্রামের সব গুলো পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের সিট হিসাব করে সাড়ে তিন হাজারের বেশি নয় বলে ধারনা করা যাচ্ছে। সুতারাং বলা যায় পাসকৃত ছাত্র-ছাত্রীদের বিশাল একটা অংশ জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের এ অনার্স প্রোগ্রামে ভর্তি হবে। সুতারাং বলা যায় প্রতিযোগীতা ও হবে বেশ শক্ত। তাই বুদ্ধিমানের কাজ হবে আবেদনের আগে ভালো করে খবরা খবর নেওয়া। স্বনামধন্য এ কলেজের প্রাঙ্গনে স্বাগত রইলো সাফল্যের কান্ডারীদের।


ঢাকা, ২২ জুলাই (ক্যাম্পাসলাইভ২৪কম)//আরএইচ

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।