মৃত্যুর আগ মুহূর্তে ভয়ংকর সেলফি!


Published: 2018-06-05 01:15:46 BdST, Updated: 2018-09-22 02:20:19 BdST

সিরাজগঞ্জ লাইভ : সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত এক সহকর্মীর কবর জিয়ারত করতে যাচ্ছিলেন বৃদ্ধ আব্দুল মোতালেব হোসেন। এর আগে তিনি নিজেই খবরের শিরোনাম হয়ে গেলেন। দ্রুততার সঙ্গে রেললাইন পার হচ্ছিলেন তিনি। পেছনে যে ট্রেন আসছে সে খেয়াল ছিল না তার। মুহূর্তেই ট্রেনের ধাক্কায় প্রাণ গেছে ওই বৃদ্ধের। এসময় শখের বশে ট্রেনের সঙ্গে সেলফি তুলছিলেন এক যুবক। হঠাৎই তার ওপর ছিটকে পড়লেন বৃদ্ধ। আশেপাশের মানুষজন আসার আগেই ওই বৃদ্ধের মৃত্যু হয়েছে। উৎসুক ওই যুবক এসময় বৃদ্ধের লাশের ছবি তুলে বাড়ি ফিরলেন।

পরে তার মোবাইলে ছবি চেক করতে গিয়ে দেখেন ওই বৃদ্ধের মৃত্যুর ঠিক আগ মুহূর্তের একটি বিরল ছবি তার মোবাইলে ক্যামেরাবন্দি হয়েছে। সেটি ফেইসবুকে শেয়ার করতেই এনিয়ে হৈ-চৈ পড়ে যায় এলাকায়। মর্মান্তিক ওই ঘটনাটি সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ার
পঞ্চক্রোশী ইউনিয়নের ছোট লক্ষীপুর গ্রামের। গত ১ জুন শুক্রবার দুপুরে এমন মর্মান্তিক ঘটনা ঘটে।

উল্লাপাড়া চক্ষু হাসপাতালের এ্যাম্বুলেন্স চালক গোলাপ হোসেন ওই ছবি ক্যামেরাবন্দি করেছেন। গোলাপ হোসেন জানান, ওই দিন তার বস ডাঃ জাহাঙ্গীর হোসেনসহ ৮/১০ জনকে তার গাড়িতে নিয়ে ওই স্থানে নামিয়ে দিয়ে দাঁড়িয়েছিলেন। একটি ট্রেন আসতে দেখে তিনি শখের বসে ট্রেনসহ নিজের সেলফি তুলছিলেন। এ সময় ট্রেনের ধাক্কা লেগে এক বৃদ্ধ তার উপর আছড়ে পড়েন। আশপাশের লোকজন ছুটে এসে তাদের উদ্ধার করার পর দেখা যায় ওই বৃদ্ধটি এরই মধ্যেই মারা গেছেন। তিনি ওই বৃদ্ধর মৃতদেহের একটি ছবি তোলেন।
তখনও তিনি বুঝতে পারেননি যে, তার অজান্তেই ওই সেলফিতে বৃদ্ধ আব্দুল মোতালেবের মৃত্যুর পূর্ব মূহুর্তের ছবি ধারণ হয়েছে। বাসায় ফিরে পরিচিতদের ওই নিহত ব্যক্তির মৃতদেহের ছবি দেখাতে গিয়ে তিনি দেখতে পান তার সেলফিতে ওই ব্যক্তির মৃত্যুর পূর্ব মূহুর্তের ছবি ক্যামেরাবন্দি হয়ে গেছে।

নিহত আব্দুল মোতালেব হোসেন পঞ্চক্রোশী উনিয়নের পঞ্চক্রোশী গ্রামের তাবলিগ জামাতের জিম্মাদার ছিলেন। তিনি সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ছোট লক্ষীপুর গ্রামের আব্দুস সামাদ নামের তার এক সহকর্মীর কবর জিয়ারতে অংশ নিতে দ্রুত রেল লাইন পার হওয়ার চেষ্টা করেন। এ সময় এ মর্মান্তক দুর্ঘটনাটি ঘটে। ছবিটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ওই চালকের সহকর্মী পোষ্ট দিলে তা মূহুর্তে ব্যাপক ভাইরাল হয়ে যায়।

এ ব্যাপারে উল্লাপাড়া ইউএনও আরিফুজ্জামান বলেন, ঘটনাটি অত্যন্ত মর্মান্তিক। এ ঘটনার পরপরই তিনি নিহতের বাড়িতে গিয়ে তার স্ত্রীর নামে একটি বিধবা কার্ড ও তার দুটি এতিম সন্তানের লেখাপড়ার খরচের জন্য আরো কিছু অর্থ সহায়তার আশ্বাস দেন।

ঢাকা, ০৫ জুন (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//সিএস

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।