পৃথিবীর ঘূর্ণন থেমে গেলে কি হতে পারে দেখুন (ভিডিও)


Published: 2017-12-17 01:44:45 BdST, Updated: 2018-01-18 03:51:58 BdST

লাইভ প্রতিবেদক : পৃথিবী সূর্যের চারদিকে ঘুরে। আবার নিজ অক্ষেও ঘুরে। আপনি কী কখনও ভেবে দেখেছেন যদি পৃথিবীর এ ঘূর্ণন থেমে যায় তাহলে কী হতে পারে? ১৫০ কিমি. বেগে ছুটে আসা একটি গাড়ি যদি কংক্রিট দেয়ালে হিট করে তাহলে কী হবে? আর যদি গাড়িটি ১৫০ এর জায়গায় ১৬৭০ কিমি. বেগে এসে ধাক্কা মারে তাহলে কী হতে পারে? গাড়িটির কোন অংশ হয়তো খুঁজেই পাওয়া যাবে না। অামাদের পৃথিবীর ঘূর্ণনও যদি হঠাৎ থেমে যায় তাহলে এমনই কিছু একটা হবে। চলুন জেনে নেই পৃথিবীর ঘূর্ণন থেমে গেলে কী হতে পারে তা জেনে নেই।

১. সবকিছু পূর্ব দিকে উড়তে শুরু করবে : অামরা জানি পৃথিবী সূর্যের চারদিকে ঘুরে। আবার পৃথিবী নিজের অক্ষের চারদিকেও ঘুরে যাকে আমরা আবর্তন গতি বলে থাকি। একবার ঘুরে আসতে পৃথিবীর সময় লাখে ২৩ ঘন্টা ৫৬ মিনিট ৪ সেকেন্ড। নিরক্ষরেখায় এই ঘূর্ণয়নের বেগ সবচেয়ে বেশি প্রায় ১৬৭০ কিমি প্রতি ঘন্টায়। মেরু অঞ্চলে এই বেগ কিছুটা কম। যদি পৃথিবীর এই ঘূর্ণন থেমে যায় তাহলে পৃথিবীর ওপরে থাকা সবকিছু ১৬৭০ কিমি বেগে পূর্বদিকে উড়তে শুরু করবে। মানে সবকিছু তছনছ হয়ে যাবে। মানুষ প্রায় সুপারসনিক গতিতে অর্থাৎ বন্দুকের গুলির থেকেও বেশি বেগে উড়তে থাকবে। এক মুহূতেই মানুষ প্রায় নিশ্চিহ্ন হয়ে যাবে।

২. প্রচণ্ড বায়ুপ্রবাহ সৃষ্টি হবে : ঘূর্ণন থেমে গেলে ১৬৭০ কিমি. বেগে বায়ুপ্রবাহ সৃষ্টি হবে। এসময় কয়েক সেকেন্ড হয়তো দুই ধরনের মানুষ বেঁচে থাকতে পারবেন। এক. যারা বিমানে যাতায়াত করবেন। দুই. যারা দুই মেরুতে অবস্থান করবেন। কিন্তু কয়েক সেকেন্ড পরেই শুরু হবে প্রচণ্ড ধূলিঝড়, একই সঙ্গে বজ্রপাত। যাতে বিমান ধ্বংস হয়ে যাবে। এবং দুই মেরুতে থাকা মানুষগুলোও মারা যাবে।

৩. সৃষ্টি হবে বিশাল সামুদ্রিক ঢেউ বা সুনামি।

৪. দুই মেরুতে দুটি মহাসমুদ্র সৃষ্টি হবে।

৫. আপনার ওজন বেড়ে যাবে।

৬. অগ্নুৎপাত ও ভূমিকম্প হবে।

৭. একটি গোলার্ধে প্রচণ্ড গরম ও অপর গোলার্ধে প্রচণ্ড ঠান্ডা হয়ে যাবে।

৮. পৃথিবীর আকৃতি উপবৃত্তাকার থেকে বৃত্তাকার হয়ে যাবে।
বিস্তারিত ব্যাখ্যা ভিডিওতে :

ঢাকা, ১৭ ডিসেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//সিএস

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।