জাবিতে ভর্তি পরীক্ষা, ছিনতাইকারীদের ‘পোয়াবারো’


Published: 2017-10-17 12:53:02 BdST, Updated: 2017-11-18 12:19:15 BdST

জাবি লাইভ : জাহাঙ্গীরগর বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০১৭-১৮ শিক্ষা বর্ষের ভর্তি পরীক্ষাকে কেন্দ্র করে ক্যাম্পাস সংলগ্ন ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক পরিণত হয়েছে অপরাধীদের স্বর্গরাজ্যে। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের আশপাশ এলাকাতেও ঘটছে ছিনতাই।ধারালো অস্ত্র প্রদর্শন ও জখমের ভয় দেখিয়ে সাধারণ শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে হাতিয়ে নিচ্ছে টাকা-পয়সা, মোবাইলসহ প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র। পুলিশ প্রশাসন এসব দেখেও যেন না দেখার ভান করছে। এসব ঘটনায় ছাত্রলীগ নামধারী কতিপয় নেতাকর্মীদের সম্পৃক্ততার অভিযোগও উঠেছে। এনিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন নির্বিকার ভূমিকা পালন করছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

সর্বশেষ রোববার বিশ্ববিদ্যায়ের মীর মশারফ হোসেন হল সংলগ্ন ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে ফাহিম আহমেদ নামে এক শিক্ষার্থী ছিনতাইকারীদের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে যখম হয়ে সর্বস্ব খুইয়েছেন। ফাহিম ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ের আশুলিয়া ক্যাম্পাসের সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ২য় সেমিস্টারের শিক্ষার্থী বলে জানা গেছে।

তিনি তার এক ভর্তি পরীক্ষার্থীকে জাবি ক্যাম্পাসে পৌঁছে দিয়ে তার নিজ ক্যাম্পাসে ফিরছিলেন। পথিমধ্যে ছিনতাইকারীদের কবলে পড়ে গুরুতর যখম হয়ে সাভারের একটি বেসরকারি হাসপাতালের বেডে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

এর আগে গত মঙ্গলবার (১০ অক্টোবর) রাত ৮টার দিকে একই জায়গায় ১৫ মিনিটের ব্যবধানে ২টি ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটে। এতে দুই ভর্তিচ্ছুসহ তিন জন চাপাতির মুখে জিম্মি হয়ে সর্বস্ব হারিয়েছেন। এতে মফিজুল (৩২) নামের এক রিকশাচালকের গতিরোধ করে ২ মুখোশধারী গলায় চাপাতি ধরে এক ভর্তিচ্ছুর দুইটি মুঠোফোন ও সঙ্গে থাকা নগদ টাকা নিয়ে নেয়। এর পরপরই আরেক ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থী শেখ মঈনুল ইসলামকে চাপাতি দেখিয়ে নগদ টাকা, মানিব্যাগ ও একটি মুঠোফোন ছিনিয়ে নেয়।

এ বিষয়ে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান নিরাপত্তা কর্মকর্তা বলেন, এটা ক্যাম্পাসের বাইরের ঘটনা, আশুলিয়া থানা পুলিশকে আমরা নিরাপত্তা জোরদারের জন্য অবহিত করেছি।

এ বিষয়ে আশুলিয়া থানার ওসি আব্দুল আওয়াল বলেন, বিষয়টি আমি শুনেছি। আহত শিক্ষার্থীকে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে ওই জায়গায় অপরাধীদের আনাগোনা বেশি। সেখানে সর্বদা ডিউটি অফিসার টহল দেন। কিন্তু তার ফাঁকেই অপরাধীরা অপকর্ম করে থাকে। বিষয়টা আমারা আরো সচেতনতার সাথে দেখবো।

ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক সংলগ্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের মীর মশাররফ হোসেন হলের গেটের দায়িত্বরত আনসার সদস্য বলেন, ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের ওই জায়গায় অপরাধীর আনাগোনা বেশি থাকলেও সন্ধ্যা ৭টা থেকে সাড়ে ৭টা পর্যন্ত টহল দিতে দেখা যায়। তবে সেটাও অনিয়মিত।

এর আগে বৃহস্পতিবার (১২ অক্টোবর) জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকে ছিনতাইয়ের অভিযোগে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রকে বেধরক পিটিয়েছে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। তবে পিটুনির শিকার ওই ছাত্রের দাবি ছাত্রলীগের এক কর্মীকে ছিনতাইকারী সন্দেহ করায় তাকে পরিকল্পিত ও উদ্দেশ্যমূলকভাবে পিটিয়েছে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। প্রকৃত ঘটনাকে আড়াল করতে তাকে পেটানো হয়েছে বলে অভিযোগ করেন তিনি। ছিনতাই ও পরবর্তীতে ওই ছাত্রকে পিটুনির ঘটনা নিয়ে রহস্য তৈরি হয়েছে। ছিনতাইয়ের ওই ঘটনায় ছাত্রলীগের কতিপয় কর্মী জড়িত নাকি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ওই ছাত্র জড়িত তা নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।

জানা গেছে, বৃহস্পতিবার রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকে এক মহিলার মোবাইল ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটে। এসময় ঘটনাস্থলে উপস্থিত বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র সুমন হোসেন ও জাবি ছাত্রলীগ কর্মী সাব্বির আহমেদ একে অপরকে সন্দেহ করে। পরে সুমনকে মারধর করে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। এদের মধ্যে সুমন সাভারের স্থানীয় বাসিন্দা ও সাব্বির জাবির শহীদ রফিক-জব্বার হলের ছাত্র।

সুমনের ভাষ্যমতে সাব্বিরের আচরণ সন্দেহজনক হওয়ায় তিনি সাব্বিরের ফোন সার্চ করতে চান। এ সময় সাব্বিরের সঙ্গে তার তুমুল বাকবিতন্ড হয়। এতে দুজন দুজনকেই ছিনতাইকারী হিসেবে দোষারোপ করতে থাকে। এর ফাঁকে সাব্বির মুঠোফোনে যোগাযোগ করে রফিক-জব্বার হল থেকে ছাত্রলীগ কমীদের জড়ো করেন। অন্যদিকে সুমন পরিচিত জাবির এক সাবেক শিক্ষার্থীকে ডেকে নেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থী ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে উভয় পক্ষকে শান্ত করার চেষ্টা করেন। কিন্তু সাব্বির ও তার সহযোগীরা সুমনকে বিশ্ববিদ্যালয়ের গেটের ভিতরে নিয়ে বেদম মারধর করে। পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিরাপত্তা কর্মকর্তারা সুমনকে উদ্ধার করে প্রক্টর অফিসে নিয়ে আসেন। সুমন দাবি করেন ছিনতাইকারী সাব্বিরকে বাঁচাতেই তাকে পিটিয়েছে ছাত্রলীগের নেতার্মীরা।

অন্যদিকে সাব্বির দবি করেন, সাভারে যাওয়ার উদ্দেশ্যে বিশ্ববিদ্যালয় গেটে গাড়ির জন্য অপেক্ষা করছিলেন তিনি। এ সময় সুমনের চোখে চোখ পড়লে হঠাৎ সে আমার ফোন চেয়ে বসে। ফোন চাওয়ায় আমি সুমনকে ছিনতাইকারী ভাবি। পরে কয়েকজন সিনিয়র শিক্ষার্থী সুমনকে মারধর করে প্রক্টরিয়াল টিমের হাতে তুলে দেয়।

উল্লেখ্য, ঢাকা আরিচা মহাসড়কের ওই এলাকায় চলতি মাসে অন্তত ৩-৫টি ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটে। এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীসহ সাধারণ যাত্রীরাও চরম বিড়ম্বনার স্বীকার হন। হারান প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র।


ঢাকা, ১৭ অক্টোবর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//সিএস

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।