এক বছরে দুই ছাত্রীসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের ৯ শিক্ষার্থী খুন!


Published: 2018-12-26 02:41:15 BdST, Updated: 2019-01-19 19:15:26 BdST

ফয়সাল সাজিদ : চলতি বছরে বিশ্ববিদ্যালয়ের ৯ শিক্ষার্থীকে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এদের মধ্যে পাবলি বিশ্ববিদ্যালয়ের দুইজন ছাত্রীও রয়েছেন। হত্যাকাণ্ডের শিকার হয়েছেন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩ ছাত্র। যাদের মধ্যে এক ছাত্রের মৃত্যু নিয়ে রহস্য রয়েছে। তাকে হত্যা করা হয়েছে নাকি অন্য কোনভাবে তিনি নিহত হয়েছেন তা স্পষ্ট নয়। বাকিরা পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। এর মধ্যে সদ্য পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে চান্সপ্রাপ্ত এক ছাত্রও রয়েছে। এসব হত্যার ঘটনা বিচারাধীন রয়েছে। সন্তান হত্যার বিচারের অপেক্ষায় রয়েছে পরিবারের সদস্যরা।

জানা গেছে, জানুয়ারি থেকে ডিসেম্বর ওই এক বছরে মধ্যে সবচেয়ে আলোচিত ও মর্মান্তিক হত্যার শিকার হন নর্থসাউথ ইউনিভার্সিটির ছাত্র সাইদুর রহমান পায়েল। চলতি বছরের জুলাইয়ে তাকে হত্যার পর লাশ খালে নিক্ষেপ করে ঘাতকরা। ওই হত্যাকাণ্ড নিয়ে দেশজুড়ে তোলপাড় শুরু হয়। চলতি বছরেই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র পারভেজ আহম্মেদ জয়কে হত্যার পর গুমের চেষ্টা করা হয়েছে। ওই ঘটনায় করা হত্যা মামলা বিচারাধীন রয়েছে। একই বছরে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের মেহেদী নামে ছাত্রকে ছুরিকাঘাতে হত্যা করা হয়েছে। একই বিশ্ববিদ্যালয়ের মৃত্তিকা রহমান নামে এক ছাত্রীর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। এনিয়ে ক্যাম্পাসে ওই হত্যার বিচার চাওয়া হলেও পুলিশ ওই ঘটনায় কাউকে গ্রেফতারই করেনি। উপরন্তু বিষয়টি আত্মহত্যা বলে প্রচার চালানো হয়েছে। চলতি বছরেই নিখোঁজ জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র আরিফুল ইসলামের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তাকে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। পরকীয়ার জেরে ওই ছাত্রকে হত্যা করা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। চলতি বছরের জুলাইয়ে যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী বিজলী খাতুনকে হত্যার পর আত্মহত্যা বলে প্রচার চালানো হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এছাড়া চলতি বছরের ২৩ এপ্রিল ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ছাত্র সাইফুল্লাহ তালুকদার মহসিনকে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠে। ওই ঘটনায় ছাত্রের বাবা ৭ জুন একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। চলতি বছরের সেপ্টেম্বরে নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির ফাহিম রাফি নামে এক ছাত্রের রহস্যজনক মৃত্যু হয়। তাকে হত্যা করা হয়েছে নাকি দুর্ঘটনায় তিনি মারা গেছেন বিষয়টি স্পষ্ট নয়। সর্বশেষ চলতি বছরের নভেম্বরে চট্টগ্রাম ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে চান্স পাওয়া তানভির রহমান নামে এক ছাত্রকে ছিনতাইকারীরা ছুরিকাঘাতে হত্যা করে।

১. সাইদুর রহমান পায়েল : নর্থসাউথ ইউনিভার্সিটির ছাত্র সাইদুর রহমান পায়েলকে ঠান্ডা মাথায় ত্যা করা হয়েছে বলে প্রমাণ পাওয়া গেছে। তিনি বিবিএর পঞ্চম সেমিস্টারে পড়াশোনা করতেন। স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে বাসের সুপারভাইজার মো. জনি পায়েল হত্যার তথ্য দিয়েছেন। গজারিয়া থানার ওসি হারুন অর রশীদ জানান, হানিফ পরিবহনের বাস থেকে নামার সময় পড়ে গেলে মাথা ফেটে রক্তাক্ত জখম হয় পায়েল। সুপারভাইজার ছেলেটিকে বাসে ওঠাতে বলেছিলেন চিকিৎসা দেওয়ার জন্য। কিন্তু ছেলেটি মারা গেছেন মনে করে বাসে ঘুমিয়ে থাকা অন্য যাত্রীরা কিছু বুঝে ওঠার আগেই ভাটেরচর ব্রিজের নিচে তাকে পানিতে ফেলে দেয় চালক জালাল ও হেলপার ফয়সাল। জনি তার স্বীকারোক্তিতে জানিয়েছে, যানজটের মধ্যে হানিফ পরিবহনের ওই বাসটি আটকা পড়লে পায়েল বাস থেকে নেমে যাওয়ার চেষ্টা করেন। নেমে যাওয়ার ঠিক আগমুহূর্তে যানজট ছেড়ে দিলে বাস চলতে শুরু করে। এতে পায়ের পড়ে গিয়ে মাথায় আঘাত পেয়ে অজ্ঞান হয়ে যান। এসময় বাসের অন্য যাত্রীরা ঘুমাচ্ছিলেন। এসময় সুপারভাইজার পায়েলকে বাসে তুলে চিকিৎসার কথা বললেও বাসের চালক ও হেলপার এতে রাজি হয়নি। পরে ওই ছাত্রকে তাৎক্ষণিক সিদ্ধান্তে নদীতে ফেলে দেয়া হয়। এভাবেই ঠান্ডা মাথায় হত্যা করা হয় পায়েলকে।

২. আরিফুল ইসলাম : জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের অনার্স শেষ বর্ষের ছাত্র আরিফুল ইসলামের মৃত্যু নিয়ে রহস্যের সৃষ্টি হয়েছে। সহপাঠীদের ধারণা, আরিফ পরিকল্পিত হত্যার শিকার। বিভাগের চেয়ারম্যানের ধারণা, এটি অস্বাভাবিক মৃত্যু। আরিফুলের মৃত্যু পানিতে ডুবে, না এটি পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড এ নিয়ে চলছে নানা আলোচনা। কেরানীগঞ্জের একটি মেসে থাকতেন ওই ছাত্র। বুড়িগঙ্গার তীরের একটি বাসায় টিউশনি করাতেন। গত ৩১ জুলাই বুড়িগঙ্গা থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। আরিফ কোটা সংস্কার আন্দোলনের জবি শাখার যুগ্ম সম্পাদক হিসেবে নেতৃত্ব দিয়ে আসছিলেন। বিবাহিত এক ছাত্রীর সঙ্গে তার প্রেম ছিল বলে সহপাঠীদের কয়েকজন জানিয়েছেন।

আরিফুলের সহপাঠী হৃদয় জানান, আরিফুল বিভাগের ফার্স্ট বয়। তিনি অনেক শান্ত নম্র স্বভাবের ছিলেন। সে বিভাগের ফার্স্ট বয় ছিল। সর্বশেষ ৬ষ্ঠ সেমিস্টারের তার সিজিপিএ ছিল ৩.৮৫। রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান অরুণ কুমার গোস্বামী বলেন, ‘আরিফুলের মৃত্যুটা অস্বাভাবিক।

৩. মৃত্তিকা রহমান : শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের মৃত্তিকার রহমান এক ছাত্রীর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। তাকে হত্যা করা হয়েছে নাকি তিনি আত্মহত্যা করেছেন এনিয়ে রহস্য তৈরি হয়েছে। ওই ছাত্রীর লাশ কোন ময়নাতদন্ত ছাড়াই তড়িঘড়ি করে দাফন করায় এনিয়ে সন্দেহ তৈরি হয়েছে। নিহত মৃত্তিকা রহমান ২০১১-১২ শিক্ষাবর্ষের ছাত্রী ছিলেন।

জানা গেছে, পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলায় সদা হাস্যোজ্জল প্রাণবন্ত ওই ছাত্রীর লাশ উদ্ধার করা হয়। গত ৩ জুলাই মঙ্গলবার তার শ্বশুরবাড়িতে তার লাশ পাওয়ার পর তড়িঘড়ি করে দাফন করা হয়। ময়নাতদন্ত ছাড়াই মৃত্তিকার পরিবারকে অনেকটা ভুল বুঝিয়ে লাশ দাফন নিয়ে রহস্য তৈরি হয়েছে। পারিবারিক ও সহপাঠীদের সূত্রে জানা গেছে মৃত্তিকাকে তার শ্বশুরবাড়ির লোকজন বিশেষ করে তার স্বামী প্রায়ই মারধর করতো। স্বামী পরকীয়ায় আসক্ত তাই এর প্রতিবাদ করায় তার ওপর নেমে আসে অমানুষিক নির্যাতন। তাকে নির্যাতনে হত্যা করা হয়েছে নাকি এসব সহ্য করতে না পেরে আত্মহত্যা করেছে তার সঠিক কারণ খুঁজে বের করার দাবি উঠেছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা দাবি করেছেন এটা সত্যিই আত্মহত্যা নাকি হত্যা তা নিয়ে সবার মনেই সন্দেহ রয়েছে। এমন একটি প্রাণবন্ত ছাত্রী আত্মহত্যা করতে পারে না। তাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে।

৪. মাহিদ আল সালাম : সিলেটে ছিনতাইকারীর ছুরিকাঘাতে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবি) সাবেক মাহিদ আল সালাম খুন হয়েছেন। তিনি শাবির অর্থনীতি বিভাগের শিক্ষার্থী ছিলেন। তিনি মাভৈ: আবৃত্তি সংসদের কর্মী ছিলেন। ২৫ মার্চ রোববার রাতে সিলেট নগরীর কীন ব্রিজ এলাকায় তিনি ছিনতাইকারীদের হামলার শিকার হন। তার লাশ সিলেট এম এ জি ওসমানি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে। দক্ষিণ সুরমা থানার উপপরিদর্শক (এসআই) রিপন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

জানা গেছে, নিহত মাহিদ সিলেট নগরির মদীনা মার্কেটের বাসিন্দা। তিনি বিভিন্ন অনুষ্ঠানে আবৃত্তি করতেন। তার বাবা প্রয়াত অ্যাডভোকেট আব্দুস সালাম সিলেট জেলা বারের সিনিয়র আইনজীবী ছিলেন।

৫. পারভেজ আহাম্মেদ জয় : নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র পারভেজ আহাম্মেদ জয়কে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। চলতি বছরের জানুয়ারি ওই হত্যার ঘটনায় কলেজ ছাত্রীসহ তিনজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তাদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে হত্যার ব্যাপারে নানা তথ্য জানা গেছে। ওই ঢাবি ছাত্র পড়াশোনার পাশাপাশি চাকরিও করতেন। সমিতির হিসাব নিয়ে দ্বন্দ্বের জেরে জয়কে হত্যা করা হতে পারে বলে ধারণা করছে পুলিশ।

এঘটনায় আটকরা হলেন- বড়ালু এলাকার কলেজ ছাত্রী শারমিন আক্তার, সোহাগ মিয়া ও জাহাঙ্গীর আলম। এর আগে সোমবার বড়ালু এলাকায় শীতলক্ষ্যা নদী থেকে পারভেজ আহাম্মেদ জয়ের লাশ উদ্ধার করা হয়।

নিহতের পরিবার, পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, মেঘনা সমবায় শ্রমজীবী সমিতি নামের একটি সংস্থার মাঠ পর্যায়ে কাজ করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের ২য় বর্ষের শিক্ষার্থী পারভেজ আহাম্মেদ জয়। ওই সমিতির পার্টনার ছিলেন জয়ের মামা রুবেল মিয়া। রুবেল মিয়া মালিকানা পার্টনার হিসেবে সমিতিতে প্রায় ১০ লাখ টাকা রেখেছিলেন। অন্য পার্টনারদের সঙ্গে রুবেল মিয়ার কথা কাটাকাটি হলে তিনি ৪ লাখ ২০ হাজার টাকা নিয়ে সমিতি থেকে চলে যান। সমিতিতে তার আরও ৫ লাখ ৮০ হাজার টাকা রয়ে যায়। ওই টাকা উত্তোলনের জন্য মামা রুবেল ভাগিনা পারভেজ আহাম্মেদ জয়কে দায়িত্ব দেন। বেশ কয়েকবার জয় সমিতির কর্মকর্তাদের সঙ্গে রুবেল মিয়ার পাওনা টাকার বিষয়ে হিসাব-নিকাশ চান। এ নিয়ে কর্মকর্তাদের সঙ্গে পারভেজ আহাম্মেদ জয়ের বাকবিতণ্ডাও হয়। রোববার দুপুরে সমিতির কাজে বাড়ি থেকে বের হন জয়। এরপর আর তিনি বাড়ি ফেরেননি। সোমবার দুপুরে সমিতির কার্যালয়ের পেছনের শীতলক্ষ্যা নদী থেকে জয়ের লাশ উদ্ধার করা হয়।

৬. সাইফুল্লাহ্ তালুকদার মহসিন : নেত্রকোনার কেন্দুয়ায় দাফনের তিন মাস পর ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির এক ছাত্রের লাশ কবর থেকে তোলা হয়েছে। কেন্দুয়া উপজেলার বলাইশিমুল ইউনিয়নের কুমুরুড়া গ্রামের পারবারিক কবরস্থান থেকে ওই ছাত্রের লাশ উঠানো হয়। নিহত সাইফুল্লাহ্ তালুকদার মহসিনের বাবার নাম আলী আকবর তালুকদার মল্লিক। সাইফুল্লাহ ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির বিবিএর তৃতীয় সেমিস্টারের শিক্ষার্থী ছিলেন।

নিহত ছাত্রের পরিবার ও পুলিশে জানিয়েছে, গত ২৩ এপ্রিল দিবাগত গভীররাতে সাইফুল্লাহ্ বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসের ছাত্রাবাসের ছাদ থেকে পড়ে গিয়ে মারা যান বলে তার অভিভাবককে জানানো হয়। খবর পেয়ে পরের দিন সকালে (২৪ এপ্রিল) আলী আকবর তালুকদার মল্লিক সাভারের এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে গিয়ে তার ছেলে সাইফুল্লাহর লাশ দেখতে পান। এরপর এটিকে পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড বলে নিহত ছাত্রের বাবা গত ৭ জুন আদালতে একটি হত্যা মামলা করেন। এরই পরিপ্রেক্ষিতে আদালতের নির্দেশে নেত্রকোনা আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জাহিদ বিন কাশেমের উপস্থিতিতে সাইফুল্লাহর লাশ কবর থেকে উঠানো হয়।

৭. ফাহিম রাফি : নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির এই ছাত্র ফাহিম রাফির মৃত্যু নিয়ে রহস্য রয়ে গেছে। তিনি ওই বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের শিক্ষার্থী ছিলেন। তার থুতনিতে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তাকে হত্যা করা হয়েছে নাকি তিনি দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন এনিয়ে ধুম্রজাল তৈরি হয়েছে। হাতিরঝিল থানার ওসি মো. ফজলুল করিম জানান, কীভাবে ওই ছাত্রের মৃত্যু হয়েছে তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। পুলিশ ইতিমধ্যে রহস্য উদঘাটনে কাজ শুরু করেছে।

জানা গেছে, ৭ সেপ্টেম্বর রাতে খিলগাঁওয়ের খিদমাহ হাসপাতালে তাকে অচেতন অবস্থায় পাওয়া যায় রাফিকে। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পর রাত সাড়ে ১০টার দিকে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। নিহত রাফির শিক্ষার্থীর বাবা টেলিটকের কর্মকর্তা মনিরুজ্জামান জানান, রাফি নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের তৃতীয় সেমিস্টারের ছাত্র। পরিবারের সঙ্গে তিনি দক্ষিণ বাসাবোর ১৪ নম্বর বাসার তৃতীয় তলায় থাকতেন। শুক্রবার বিকেল ৫টার দিকে তিনি বাসা থেকে বের হন। পরে তার লাশ পাওয়া যায় হাসপাতালে।

৮. বিজলী খাতুন : যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রীকে হত্যার পর আত্মহত্যা বলে প্রচার চালানোর অভিযোহ উঠেছে। নিহত ছাত্রী বিজলি খাতুন বিশ্ববিদ্যালয়ের শারীরিক শিক্ষা ও ক্রীড়া বিজ্ঞান বিভাগের তৃতীয় বর্ষে পড়াশোনা করতেন। বিজলি হত্যায় জড়িতদের গ্রেফতার ও বিচার দাবিতে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে মানববন্ধন কর্মসূচিও পালন করেছেন শিক্ষার্থীরা।

বিজলির ভাই অভিযোগ করেন, বিজলিকে যৌতুকের দাবিতে তার শ্বশুরবাড়ির লোকজন নির্যাতন করতো। গত ১ জুলাই শ্বশুরবাড়ি থেকে জানানো হয় বিজলি অসুস্থ তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পরে হাসপাতালে গিয়ে দেখি আমার বোনের লাশ হাসপাতালে রেখে তার শ্বশুরবাড়ির লোকজন পালিয়েছে।

৯. তানভীর আহম্মেদ খান : নরসিংদীতে সদ্য পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে চান্স পাওয়া তানভীর আহম্মেদ খান নামে এক ছাত্র খুন হয়েছেন ২২ নভেম্বর। তাকে ছুরিকাঘাতে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। তানভীর বীরপুর এলাকার নাসির উদ্দি খানের ছেলে। তিনি চলতি বছর নটরডেম কলেজ থেকে এইচএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়ে জিপিএ-৫ পেয়ে কৃতকার্য হয়। রাজশাহী ও চট্রগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির সুযোগ পান তিনি। তানভীর বিদ্যালয়ের বইপত্র কেনার জন্য সকাল ৬টার দিকে ট্রেন যোগে ঢাকায় যাওয়ার জন্য বাড়ি থেকে বের হয়। পরে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। তার শরীরে ছুরির আঘাত পাওয়া যায়।

ঢাকা, ২৬ ডিসেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//সিএস

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।