জাপানে লাইফসাইন্সে ফ্রি ইন্টার্ন, সঙ্গে হ্যান্ডসাম ফান্ডিং


Published: 2018-06-01 21:36:04 BdST, Updated: 2018-06-18 15:25:31 BdST

লাইভ প্রতিবেদক : মেধা, বুদ্ধি আর যোগ্যতায় পিছিয়ে নেই বাংলাদেশী শিক্ষার্থীরা। বিদেশে নানা বিষয়ে তারা নেতৃত্ব দিচ্ছেন সফলতার সঙ্গে। এবার দেখিয়েছেন মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (মাভাবিপ্রবি) শিক্ষার্থী মো. শরীফুল ইসলাম রাজন। জাপানে নামকরা স্কলারশিপ পেয়েছেন তিনি। পেয়েছেন জাপানে স্কলারশিপ নিয়ে ক্যান্সার বায়োলজির উপর গবেষণা ও ট্রেনিংয়ের সুযোগ। বর্তমানে তিনি ২০১৮ ইন্টার্ন ক্যান্ডিডেট। তার গবেষণা প্রজেক্ট লিউকিমিয়া মাউস মডেল। তার মেইল নম্বর: [email protected]

যা পাচ্ছেন : বিমান ভাড়া, ফ্রি থাকা-খাওয়া, জাপানে থাকার সময় যাতায়াত ভাড়া। এর সঙ্গে পাচ্ছেন সোয়া ২ লাখ টাকা। ৮ জুলাই থেকে ৪ আগস্ট জাপানে একমাসের জন্য ইন্টার্ন করতে যাচ্ছেন রাজন। তবে এর চেয়ে বেশি সময়ের জন্যও সেখানে যাওয়া যায়। বাংলাদেশে গবেষণার জন্য একমাসের সুযোগটি নিয়েছেন রাজন। এমনটাই তিনি ক্যাম্পাসলাইভকে জানিয়েছেন।

রাজন ক্যাম্পাসলাইভকে তার সফলতার গল্প শুনিয়েছেন। জানিয়েছেন কিভাবে জাপানে বিনা খরচে ইন্টার্নের সুযোগ নেয়া যায়। জানালেন, ছোটবেলা থেকেই জীববিজ্ঞানের প্রতি তার ভালোলাগা কাজ করত। ২০১২ সালে মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের বায়োটেকনোলজি এন্ড জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং (বিজিই) বিভাগে ভর্তির পর থেকেই মেডিকেল সাইন্সের প্রতি আগ্রহ দেখা দেয় তার।

প্রস্তুতিটা শুরু হয় প্রথম সেমিস্টার থেকেই। জীবপ্রযুক্তি ও জীন প্রকৌশল বিভাগ রিলেটেড দেশ-বিদেশের আর্টিকেল পড়া শুরু করেন তিনি। বিশেষ করে ক্যান্সার কোষ কীভাবে আমাদের মানবদেহে ছড়িয়ে পড়ে এনিয়ে আগ্রহ ছিল বেশি। দ্বিতীয় বর্ষে পড়াশোনার সময় জানতে পারেন শুধুমাত্র মেডিকেলের শিক্ষার্থীরা নয় লাইফ সাইন্সের শিক্ষার্থীরা ওই ইন্টার্ন করার সুযোগ পেতে পারেন।

মোঃ শরীফুল ইসলাম ও তার জাপানি শিক্ষক

রাজন জানতে পারেন, বিদেশে ফুল স্কলারশিপসহ আন্ডারগ্রেজুয়েট অথবা গ্র্যাজুয়েট যে কোন ইয়ার থেকেই করা যায়। তখন থেকেই মূলত তিনি অনলাইনে সার্চ শুরু করেন। কীভাবে ওই ইন্টার্নে অংশ নেয়া যায়, এমন চিন্তা খেলা করেছে তার মনে। ৪র্থ বর্ষে ধারনা পেয়ে যান কীভাবে ওই ধরনের ইন্টার্নগুলোতে এপ্লাই করতে হয়।

এর ফাঁকে প্রিয় মাভাবিপ্রবি বিজিই বিভাগের শিক্ষকদের অনেক উৎসাহ ও অনুপ্রেরণায় আন্ডারগ্র্যাজুয়েটের শেষ বর্ষে থাকাকালে ২০১৬ সালে তিনি জাপানের ৭৫তম বার্ষিক ক্যান্সার সম্মেলন ইয়োকোহামা, টোকিওতে অংশ নেয়ার সুযোগ পান। ট্র্যাভেল এ্যাওয়ার্ডসহ ওই সুযোগে সেখানে গিয়ে তার গবেষণায় আগ্রহ আরও বেড়ে যায়। সৌভাগ্যবশত তিনি ইউনিভার্সিটি অফ টোকিও, জাপানের এক প্রফেসরকে তার ওই গবেষণায় আগ্রহের কথা জানিয়েছিলেন।

২০১৬ সালেই টোকিওতে থাকাকালে ওই প্রফেসর তাকে তার ল্যাব ভিজিটে আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন। ওই ল্যাবের নাম মলিক্যুলার প্যাথলজি, ইন্সটিটিউট অফ মেডিকেল সাইন্স। জাপান থেকে ফিরে ২০১৭ সালে তিনি প্রায় ১০টির মত ইন্টার্নে এপ্লাই করেন। লাইফ সাইন্স রিলেটেড বিষয়ে তিনি বিভিন্ন দেশে ওই আবেদন করেন।

ইউনিভার্সিটি অব টোকিও বিশ্ববিদ্যালয়ে শরীফুল ইসলাম রাজন

 

কিন্তু একের পর এক রিজেকশনের কারণে তিনি অনেকটা হতাশায় পড়ে যান। ২০১৮ সালের ২২মে মাসে তাকে ইন্টারভিউয়ের জন্য কল করা হয়। একজন প্রফেসর তার ইন্টার্ভিউ নেন। পরদিন মেইল করে জানানো হল আমাকে ফাইনাল সিলেকশন দেওয়া হয়েছে ফুল স্কলারশিপসহ (জুলাই- আগস্ট, ২০১৮)। রাজন এরজন্য তার আব্বু, আম্মু, আত্মীয়স্বজন ও বিজিই বিভাগের প্রিয় শিক্ষকদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান তাকে প্রতিনিয়ত অনুপ্রেরণা যোগানোর জন্য।

জাপানিদের মাঝে রাজন

 

রাজন জানালেন, আমাদের দেশের লাইফ সাইন্সের শিক্ষার্থীরা ইচ্ছা করলেই ওই ধরনের ইন্টার্নে অনায়াসেই আবেদন করতে পারেন। শুধুই ইচ্ছাশক্তি ও কমিউনিকেশনের অভাবে তা হয়ে উঠছে না। ভারত থেকে প্রতিনিয়ত লাইফ সাইন্সের শিক্ষার্থীরা ফুল স্কলারশিপে ইন্টার্নের সুযোগ নিচ্ছে, পিছিয়ে আছি আমরা। বাংলাদেশ থেকে হাতে গোনা ১-২ জন প্রতিবছর এই ধরনের ইন্টার্নের সুযোগ পাচ্ছে।

এ ধরনের ইন্টার্নগুলোতে এপ্লাই করতে কোন ফি লাগে না। এমনকি সম্পূর্ণ অনলাইনে আবেদন করা যায় টাকা ছাড়াই। আবেদনের সময় : জানুয়ারি-ফেব্রুয়ারি বা মার্চ হয়ে থাকে।

শুধুমাত্র ভালো সিজিপিএ হলেই যে চান্স পাওয়া যাবে তা মোটেও সঠিক নয়, এর সঙ্গে প্রয়োজন সুন্দর কভারলেটার ও নিজস্ব বিভাগ থেকে একটি কাট কপি বহির্ভূত সুন্দর একটি সুপারিশপত্র যাকে রিকমেনডেশন লেটার বলা হয়ে থাকে।

ইন্টার্নে আবেদনের জন্য যা লাগবে :

১। একাডেমিক সিভি : একটি ভালো একাডেমিক সিভিতে কখনো ব্লাডগ্রুপ, জন্ম তারিখ, আব্বু-আম্মুর নাম থাকে না। থাকবে আপনার একাডেমিক রিলেটেড ইনফরমেশন।
২। সেমিস্টারভিত্তিক একাডেমিক ট্রান্সক্রিপ্ট/ মার্কশিট।
৩। বিভাগের যে কোন প্রফেসর থেকে সুপারিশপত্র।
৪। কভারলেটার।
৫। পাসপোর্টের কপি অথবা এনআইডির কপি।
৬। ল্যাংগুয়েজ প্রোফিসিয়েন্সি (আইইএলটিএস স্কোর/ ইউনিভার্সিটি কর্তৃক মিডিয়াম অফ ইন্সট্রাকশন।)
৭। মোডারেট সিজিপিএ-এক্সট্রিম সিজিপিএ (৩.৪০-৩.৯৯) থাকলে অবশ্যই আবেদন করা উচিৎ, সাথে যদি কোন ভাল এক্সট্রা কোন-কারিকুলার একটিভিটিস থেকে থাকে, তাহলে খুব ভাল।

কিছু ইন্টার্নির লিঙ্ক নিচে রয়েছে যেখানে লাইফ সাইন্সের প্রায় সবাই আবেদন করতে পারেন, শুধু ভালোভাবে দেখে শুনে আবেদন করলে অবশ্যই সফল হওয়া যাবে :

1. https://www.nig.ac.jp/jimu/soken/intern/2018/index.html

2. http://international.unair.ac.id/english/index.php/scholarship/for-unair-students/scholatship-list/673-ircms-research-internship-program-fy2017-second-call
3. https://www.nips.ac.jp/eng/graduate/internship.html
4. https://sv.epfl.ch/summer-research
5. https://www.ilo.k.u-tokyo.ac.jp/summer_en
6. https://www.u-tokyo.ac.jp/en/prospective-students/amgen_program.html
7. https://ist.ac.at/research/internships/
8. http://www.phys.sinica.edu.tw/TIGP-NANO/TIGP-SIP.html
9. https://groups.oist.jp/grad/research-interns

মনে রাখবেন, আবেদন রিজেক্ট হতেই পারে। তবুও লেগে থাকতে হবে। এধরনের ইন্টার্ন নিজের ঝুলিতে থাকলে পরবর্তীতে উচ্চশিক্ষার পথ খুব সহজ হয়ে যাবে বলে আশা করা যায়।

পরিশেষে, রাজন বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, স্বপ্ন যদি দেখতেই হয় অবশ্যই অনেক বড় স্বপ্ন দেখা ভালো। আর সে অনুযায়ী সৎ প্রচেষ্টা করলেই সফলতা সম্ভব। সকলের জন্য রইলো শুভ কামনা।


ঢাকা, ১ জুন (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।