ছাত্রলীগের কাণ্ড, কক্ষে ঢুকে ছাত্রী পেটানোর ভিডিও ভাইরাল!


Published: 2018-05-05 01:31:44 BdST, Updated: 2018-06-20 17:19:53 BdST

লাইভ প্রতিবেদক : কক্ষে ঢুকে দুই ছাত্রীকে পেটানোর ভিডিও ভাইরাল হয়ে গেছে। ছাত্রলীগের এক নেতার নেতৃত্বে ওই ছাত্রীদের পেটানো হয়। ভিকটিম ছাত্রীরাও ছাত্রলীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। ছাত্রী পেটানোর ঘটনায় কোন প্রমাণ পাওয়া যায়নি উল্লেখ করে ওই উেল্টো ওই ছাত্রলীগ নেতাকে পুরষ্কৃত করা হয়েছে। অভিযুক্ত নেতাকে বহিষ্কার করেও সে আদেশ তুলে নিয়েছে সরকার সমর্থক ছাত্র সংগঠনটি। এনিয়ে তোলপাড় শুরু হয়েছে।

জানা গেছে, গত অক্টোবরে ছাত্রী পেটানোর ওই ঘটনা ঘটলেও সম্প্রতি ওই ঘটনার ভিডিও ফেইসবুকে ছড়িয়ে দেয়া হয়েছে। এতে মুহূতেই ভাইরাল হয়ে যায় ভিডিওটি। এর আগে গত অক্টোবরে দুই ছাত্রীকে নির্যাতনের অভিযোগে সরকারি বাংলা কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতির পদ থেকে বহিষ্কার করা হয় অভিযুক্ত মুজিবুর রহমান অনিককে। তবে গত মাসে সে আদেশ প্রত্যাহারের পর অনিক আবার কলেজ শাখার সভাপতি হয়েছেন।

সম্প্রতি ভুক্তভোগী ছাত্রলীগ নেত্রী তাকে পেটানোর একটি ভিডিও সংগ্রহ করে ফেসবুকে তা ছেড়ে দিয়েছেন। তিনি এবার প্রমাণ দিয়ে আশা করছেন, ন্যায়বিচার পাবেন।

কলেজ ছাত্রলীগের নেতারা জানান, গত বছরের অক্টোবরে ছাত্রলীগের কমিটি নিয়ে অভ্যন্তরীণ বিরোধকে কেন্দ্র করে অনিক চড়াও হন তৎকালীন কলেজ ছাত্রলীগের সহ-সভাপতির শুভ্রা মাহমুদ জৈতির ওপর।

ভিডিওতে দেখা যায়, শুভ্রার দারুস সালামের বাসায় ঢুকে তার পাশাপশি রুমমেট মাইমুনাকে পেটাচ্ছেন অনিক ও তার সহযোগীরা। ভিডিওটি মোট ৩৪ সেকেন্ডের। আর এতে দেখা যায় শুভ্রা ও তার বন্ধু মাইমুনাকে চড় থাপ্পরের পাশাপাশি পেটানো হচ্ছে। এ ঘটনায় শুভ্রা বাদী হয়ে দারুস সালাম থানায় মামলাও করেন। আর এরপর সংগঠন থেকে বহিষ্কার করা হয় অনিককে। কিন্তু প্রমাণ নেই উল্লেখ করে ওই ঘটনায় ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থাই নেয়া হয়নি।

এ অবস্থায় অনিক এখন প্রকাশ্যে ঘুরছেন। কিন্তু পুলিশ তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিচ্ছে না। অন্যদিকে অভিযোগের পক্ষে ‘প্রমাণ না থাকার’ কথা জনিয়ে ছাত্রলীগ দোষ দিয়েছে শুভ্রাকেই। আর এপ্রিলের শুরুতে অনিকের বহিষ্কারাদেশ তুলে নেয়া হয়।

তবে এবিষয়ে জানতে মুজিবুর রহমান অনিককে কয়েকবার ফোন করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

ছাত্রলীগ নেত্রী শুভ্রা সাংবাদিকদের জানান, সেদিন অনিককে নির্দোষ বলা হয়েছিল। বলা হয়েছিল আমি মিথ্যা বলেছি। এখন তো প্রমাণ আছে। ওদেরই করা ভিডিও। ভিডিওটা পেতে আমার অনেক কষ্ট হয়েছে। তারপরও ব্যবস্থা করতে পেরেছি। এখন দেখি সাংগঠনিকভাবে তার বিরুদ্ধে কী ব্যবস্থা নেয়া হয়।

শুভ্রা জানান, তাকে ও তার বন্ধুকে পেটানোর ভিডিওটি করেছিলেন অনিকের সহযোগীরাই। তাদের কাছ থেকেই এটি সংগ্রহ করেছেন তিনি।

ঢাকা, ০৫ মে (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//সিএস

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।