এইচএসসির ভুল প্রশ্নে পরীক্ষার খাতা ‘বিশেষভাবে’ মূল্যায়ন


Published: 2019-04-02 19:19:34 BdST, Updated: 2019-08-18 03:24:43 BdST

লাইভ প্রতিবেদক: চলমান উচ্চ মাধ্যমিক সার্টিফিকেট (এইচএসসি) পরীক্ষার প্রথমদিন ভুল প্রশ্নপত্রে পরীক্ষা নেয়ার অভিযোগ উঠেছে। বাংলা (আবশ্যিক) প্রথম পত্রের ২০১৬ সালের এইচএসসি পরীক্ষার প্রশ্ন বিতরণ করা হয়। ভুল প্রশ্নে পরীক্ষা নেয়ায় তিন কেন্দ্রের খাতা ‘বিশেষভাবে’ মূল্যায়ন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ঢাকা শিক্ষা বোর্ড। ইতোমধ্যে এসব কেন্দ্রের খাতা সংরক্ষণ করা হয়েছে। ভুল প্রশ্ন দিয়েই এসব উত্তরপত্র মূল্যায়ন করা হবে বলে।

ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর মু. জিয়াউল হক জানান, ২০১৯ সালের বদলে ২০১৬ সালের প্রশ্নপত্রে পরীক্ষা দিলেও কোনো পরীক্ষার্থীর ক্ষতি হবে না। এসব খাতা ‘বিশেষভাবে’ মূল্যায়ন করা হবে। তবে ভবিষ্যতে যাতে এ ধরনের কাজ আর না হয় সে বিষয়ে সব কেন্দ্রে আবারও সর্তক করা হয়েছে।

জানা গেছে, সোমবার দুপুরে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সিনিয়র সচিব সোহরাব হোসেন ঢাকা বোর্ডের চেয়ারম্যানকে এ বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে দায়িত্ব দিয়েছেন। পরে শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজ, সিঙ্গাইর সরকারি কলেজ ও শাজাহান খান সরকারি কলেজ কেন্দ্রের সব খাতা ঢাকা শিক্ষা বোর্ডে পাঠাতে নির্দেশ দেয়া হয়। নির্দেশনা অনুযায়ী এসব কেন্দ্রে পরীক্ষার্থীদের খাতা ঢাকা শিক্ষা বোর্ডে সংরক্ষণ করা হয়েছে।

এদিকে সোমবার রাতেই ঢাকার শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজের ভুল প্রশ্নে পরীক্ষা নেয়ার বিষয়টি খতিয়ে দেখতে একদিন মেয়াদি একটি কমিটি গঠন করা হয়। বুধবার এ কমিটির তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়ার কথা রয়েছে। এছাড়া বাকি দুটি কেন্দ্রের ঘটনা খতিয়ে দেখতে দুই জেলা প্রশাসককে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। তারা ভুল প্রশ্ন বিতরণের বিষয়টি খতিয়ে দেখে দ্রুত ঢাকা বোর্ডে প্রতিবেদন পাঠাবেন।

ঢাকা বোর্ডের চেয়ারম্যান জানান, ভুল প্রশ্নে পরীক্ষা নেয়া তিন কেন্দ্র সচিবকে শোকজ করা হয়েছে। পাশাপাশি এ বিষয়ে তদন্ত করা হচ্ছে। তদন্ত প্রতিবেদনে কারও বিরুদ্ধে অপরাধের প্রমাণ পাওয়া গেলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে তদন্ত প্রতিবেদনসহ শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে সুপারিশ করা হবে।

 

ঢাকা, ২ এপ্রিল (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমআই

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।