৩৭তম বিসিএসের চূড়ান্ত ফল প্রকাশ


Published: 2018-06-12 15:18:22 BdST, Updated: 2018-06-24 22:20:28 BdST

লাইভ প্রতিবেদক: ৩৭তম বিসিএসের চূড়ান্ত ফলাফলের বিষয়ে আজ মঙ্গলবার সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। তিন মাস আগে এই বিসিএসের মৌখিক পরীক্ষা শেষ হয়।

বাংলাদেশ সরকারি কর্মকমিশনের (পিএসসি) উচ্চপর্যায়ের একটি সূত্র জানিয়েছে, দুপুর সাড়ে ১২টায় পিএসসি বিশেষ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সভায় ফলাফল কবে প্রকাশ করা হবে, সেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। মঙ্গলবার এক বিশেষ বৈঠকের পর এই ফল প্রকাশ হয়।

গতকাল সোমবার ৩৬তম বিসিএসের নন–ক্যাডারদের মধ্য থেকে অপেক্ষমাণ ২৩ জনকে প্রাথমিকের প্রধান শিক্ষক পদে নিয়োগের সুপারিশ করা হয়। এর মধ্য দিয়ে ৩৬তম বিসিএসের কার্যক্রম শেষ ঘোষণা করেছে পিএসসি।

বিসিএসের চূড়ান্ত ফলাফল প্রকাশের পরে নিয়োগ পেতে প্রার্থীদের একটা দীর্ঘ সময় অপেক্ষায় থাকতে হয়। এ সময় তাঁদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা ও পুলিশি যাচাই-বাছাই হয়। সব পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর প্রতিবেদন পাওয়া সাপেক্ষে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় গেজেট বা প্রজ্ঞাপন প্রকাশ করে। এরপর নিয়োগপ্রাপ্তদের পদায়ন করা হয়।

গত বছরের ১১ ফেব্রুয়ারি ৩৭তম বিসিএসের লিখিত পরীক্ষা শুরু হয়। শেষ হয় গত বছরের ২৩ মে। এই পরীক্ষায় ৫ হাজার ৩৭৯ জন পাস করেন।


২০১৬ খ্রিস্টানের ৩০ সেপ্টেম্বর ৩৭তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এতে অংশ নেন ২ লাখ ৪৩ হাজার ৪৭৬ জন পরীক্ষার্থী। প্রাথমিক বাছাই পরীক্ষায় ৮ হাজার ৫২৩ জন উত্তীর্ণ হন। তবে লিখিত পরীক্ষায় অংশ নেন ৮ হাজার ৩১ জন। প্রথম শ্রেণির গেজেটেড কর্মকর্তা হিসেবে ১ হাজার ২২৬ জনকে নিয়োগ দিতে ৩৭তম বিসিএসের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছিল পিএসসি।

পিএসসি চেয়ারম্যান ক্যাম্পাসলাইভকে জানান, ৩৭তম বিসিএসে বিজ্ঞাপনে ১হাজার ২২৬ জনের কথা থাকলে ১ হাজার ৩১৪ জনকে ক্যাডার হিসেবে নিয়োগের সুপারিশ করা হয়েছে। এতে সাধারন ক্যাডার হয়েছেন ৪৬৫ জন, সহকারী সার্জন হয়েছেন ২৭২ জন, ডেন্টাল সার্জন হয়েছেন ৫১ জন। অন্যান্য কারিগরিতে ক্যাডার হয়েছেন ৩১৬ জন এবং শিক্ষা ক্যাডার হয়েছেন ২১০ জন। এছাড়া ৩ হাজার ৪৫৪ জনকে নন ক্যাডারে অপেক্ষমান রাখা হয়েছে। পদ পাওয়া সাপেক্ষে তাদের নিয়োগ দেওয়া হবে।

 


ঢাকা, ১২ জুন (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমআই

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।