জাবিতে প্রক্সি দিয়ে সাংবাদিকতা ও মার্কেটিংয়ে চান্স!


Published: 2017-11-21 03:35:34 BdST, Updated: 2017-12-14 04:30:40 BdST

জাবি লাইভ : জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষে অনার্স ভর্তি পরীক্ষায় প্রক্সি দিয়ে সাংবাদিকতা ও মার্কেটিংয়ে চান্স পেয়েছেন দুই ছাত্র। তবে তাদের শেষ রক্ষা হয়নি। ভর্তি হতে এসে জালিয়াতির অভিযোগে গ্রেফতার হয়েছেন তারা। তাদেরকে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।

অভিযুক্ত দুই শিক্ষার্থী হলেন মো. নেয়ামুল হক রিমন ও সিমান্ত দেবনাথ। সোমবার দুপুরে ভর্তির সময় কাগপত্র যাচাই করতে গিয়ে সন্দেহ হলে তাদেরকে আটক করা হয়। পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অফিসে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করায় প্রক্সির কথা স্বীকার করনে তারা।

আটককৃত মো. নেয়ামুল হক রিমন ‘সি-ইউনিটের (রোল নং-৩৪৮৭১৮) ৫ম শিফটে প্রক্সির আশ্রয় নিয়ে ২৪তম স্থান লাভ করেন। বরিশাল বাকেরগঞ্জের আনোয়ার হোসেন তালুকদারের ছেলে রিমন। ভর্তি পরীক্ষায় জালিয়াতির আশ্রয় নিয়ে পাস করে পরবর্তীতে সাক্ষাৎকারেও পার পেয়ে যায় সে। সাক্ষাৎকারে পরে সে সাংবাদিকতা ও গণমাধ্যম অধ্যয়ন বিভাগে ভর্তির জন্য মনোনিত হয়। পরে ভর্তি হতে গেলে ওই বিভাগের শিক্ষক শেখ আদনান ফাহাদ ও সভাপতি উজ্জল কুমার মন্ডল তার হাতের লেখা মিল না পাওয়ায় আটক করে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনের হাতে সোপর্দ করেন।

আটককৃত আরেক শিক্ষার্থী সিমান্ত দেবনাথ ‘ই-ইউনিটের ৩য় শিফটে প্রক্সির আশ্রয়ে ১১৬ তম স্থান লাভ করে। তিনি নেত্রকোনা জেলার নকুল চন্দ্র দেবনাথের ছেলে। সাক্ষাৎকারে মার্কেটিং বিভাগে ভর্তির জন্য মনোনিত হয়। সোমবার ভর্তি হতে এলে হাতের লেখা ও কথাবার্তায় অসংগতি পেলে নিলাঞ্জন কুমার সাহা তাকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনের হাতে সোপর্দ করেন।

এবিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর প্রফেসর তপন কুমার সাহা বলেন, তাদের বিরুদ্ধে প্রক্সির মাধ্যমে চান্স পাওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।


ঢাকা, ২১ নভেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//সিএস

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।