কবি নজরুল কলেজের ছাত্র ফোরহাদের উপর নৃশংস হামলা!


Published: 2020-08-10 18:32:44 BdST, Updated: 2020-09-29 06:49:49 BdST

কেএনজিসি লাইভঃ পুরান ঢাকার ঐতিহ্যেবাহী কবি নজরুল সরকারি কলেজের অনার্স ৩য় বর্ষের ইংরেজি বিভাগের মেধাবী ছাত্র ও কবি নজরুল কলেজ সাংবাদিক সমিতি সদস্য এইচ এম ফরহাদ ও তার পরিবারের উপর অতর্কিত হামলা করেন নীলফামারীর ডিমলা থানার স্থানীয় সন্ত্রাসী দল।

গত শনিবার (৮ আগষ্ট) দুপুরে নীলফামারী জেলায় ডিমলা থানার ৮নং ঝুনাগাছ চাপানী ইউনিয়নের নিজ বাড়িতে রোপণকৃত গাছের ডাল-পালা কাটছিলো ডেইলি ক্যাম্পাস প্রতিনিধি এইচ এম ফরহাদ। এমতাবস্থায় দুলাল হোসেন (৪৫) ও আমিরুল ইসলাম (৫৫) দুইজন এর সাথে বাকবিতন্ডা শুরু হয়। বাকবিতন্ডার এক পর্যায়ে দুলাল হোসেন, আমিরুল ইসলাম ও আমিরুল ইসলামের ছেলে আজারুল ইসলাম (১৮) এইচ এম ফরহাদ সহ তার পুরো পরিবারের উপর নৃশংসভাবে হামলা করে।

লাঠি-সোঠা, লোহার রড,ধারালো রাম দা। ইত্যাদি অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে বাড়ির গেট ভেঙে প্রবেশ করে হত্যার চেষ্টা চালায়। রড দিয়ে আঘাত করলে ফরহাদ মাটিতে লুটে পডে যায় এবং হামলাকারীরা তাকে হত্যার উদ্দেশ্য দুই হাত দিয়ে তার গলা চেপে শ্বাসরোধ করার চেষ্টা করে। পরে গুরুতর অবস্থায় এইচ এম ফরহাদ (স্বপন) কে নিকটস্থ ডিমলা উপজেলা সাস্থ্য কমপ্লেক্সে আহত অবস্থায় ভর্তি করা হয়। তার অবস্থা অশঙ্কাজনক বলে জানান কর্তব্যরত চিকিৎসক।

কবি নজরুল কলেজ সাংবাদিক সমিতি সভাপতি মাঈন উদ্দিন আরিফ বলেন, এইচএম ফরহাদ হোসেন ও তার পরিবারের উপর হামলার ঘটনায় নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে আসামিদের দ্রুত গ্রেফতারের দাবি জানাচ্ছি।এবং এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তপূর্বক আসামিদের আইনের আওতায় এনে কঠোর শাস্তির দাবি জানাচ্ছি।

৮নং ঝুনাগাছ চাপানী ইউনিয়নে চেয়ারম্যান আমিনুর হোসেন বলেন, হামলার বিষয়টি আমি শুনেছি। দুলাল ও আমিরুল দুইভাই এলাকার সন্ত্রাসী। উপর মহলের ছত্রছায়ায় তারা এলাকায় বিভিন্ন অপরাধ অনিয়ম করে থাকে। তাদের বিরুদ্ধে কেউ কিছু বলতে পারে না।

এ হামলার বিষয়ে জানতে চাইলে ডিমলা থানা এসআই কামরুল ইসলাম বলেন, মুক্তার হোসেন থানায় জিডি করেছেন। আমরা হামলার বিষয়টি তদন্ত করে অপরাধীদের শাস্তির আওতায় আনা হবে।

ঢাকা, ১০ আগস্ট (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//আইকে//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।