যুবলীগ নেতাকে ডাকসু নেতার মারধরের অভিযোগ (ভিডিও)


Published: 2020-02-26 04:21:31 BdST, Updated: 2020-03-30 03:50:08 BdST

ঢাবি লাইভঃ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাহিত্য সম্পাদক এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) সংস্কৃতি সম্পাদক আসিফ তালুকদারের বিরুদ্ধে যুবলীগের এক নেতাকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে।

তিনি রাজধানীর ৪নং ইউনিট যুবলীগের সভাপতি পদপ্রার্থী রানা। এ সময় আসিফ মদ্যপ ছিলেন বলে জানিয়েছেন প্রত্যক্ষদর্শীরা। ২১ফেব্রুয়ারী শুক্রবার রাতে হাতিরপুল কাঁচাবাজারের সামনে এ ঘটনা ঘটলেও গতকাল সোমবার বিষয়টি জানাজানি হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীসূত্রে জানা যায়, শুক্রবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে হাতিরপুল কাঁচাবাজারের বিপরীত পাশে বলাকা ডেকোরেটরের সামনে দাঁড়িয়ে পারিবারিক বিষয় নিয়ে কথা বলছিলেন রানাসহ আরও তিনজন। তাদের মধ্যে একজন ১৮ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ফেরদৌস আলমের ছেলে সুজন। এ সময় তাদের মধ্যে উচ্চ বাক্য বিনিময় হচ্ছিল। তাদের পাশেই তিন-চারজনের বেষ্টনীর মধ্যে ছিলেন ছাত্রলীগ নেতা আসিফ তালুকদার। রানাসহ বাকিরা উচ্চস্বরে কথা বলায় আসিফ তাদেরকে কথা বলা বন্ধ করতে বলে।

তারা কথা বলা বন্ধ না করলে হঠাৎ করেই আসিফ গিয়ে রানার কলার ধরে টানতে টানতে সামনে নিয়ে যায়। আসিফকে থামাতে রানার সঙ্গে থাকা দুজন এগিয়ে গেলে সে মোবাইলে কলের মাধ্যমে আরও তিন-চারজনকে ডেকে এনে রানাকে বেদম মারধর করে। মারধরের পর রানাকে হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে হয়েছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে সেদিন ঘটনাস্থলে উপস্থিত একজন জানান, আসিফ রানাকে কলার ধরে টানাটানি শুরু করলে রানার সঙ্গে থাকা দুজন আসিফের পরিচয় জানতে চায়। তখন আসিফ বলে, একটু অপেক্ষা কর! পা থেকে মাথা পর্যন্ত পরিচয় দিব তোদের কাছে। এরপর একজন আসিফের পরিচয় দেয় যে, তিনি ডাকসুর সাংস্কৃতিক সম্পাদক।

রানার সঙ্গীরা তখন আসিফের সঙ্গীদের জানায় যে, তারা ডাকসুর জিএস গোলাম রাব্বানীর পরিচিত। কিন্তু গোলাম রাব্বানীর নাম নিতেই তেলে-বেগুনে জ্বলে ওঠে গালাগাল শুরু করে আসিফ। তখন রানার সঙ্গীরা জানায়, তারা ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র ফজলে নুর তাপসের রাজনৈতিক কর্মী, যুবলীগ করে। তখন আসিফ বলে, তাপস কে, তাপসকে চিনি না! এরপর আসিফ ওয়ার্ড কাউন্সিলরের ছেলে সুজনকে ধাক্কা দিতে থাকে।

এক পর্যায়ে আরও কয়েকজনকে নিয়ে এসে রানাকে মারধর করে। শুধু রানা নয়, হাতিরপুল কাঁচা বাজারের একজন মাছ বিক্রেতা, ঘটনাস্থলের পাশ্ববর্তী দোকানদারসহ অন্তত ৬জন পথচারী এসময় আসিফের সহযোগীদের হাতে মারধরের শিকার হয়।

তিনি বলেন, আসিফকে থামাতে গিয়ে টের পাই, তার মুখ থেকে মদের গন্ধ আসছে। এতে বুঝলাম সে মদ খেয়ে এসে এই মাতলামি করতেছে। আমরা বিষয়টি ডাকসুর জিএস গোলাম রাব্বানী, ছাত্রলীগের সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় এবং সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্যকে জানিয়েছি। আমরা এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচার চাই।

ভিডিও দেখতে লিঙ্কটিতে ক্লিক করুন: https://www.facebook.com/209957622486998/videos/932764423805525/

এই বিষয়ে জানতে চাইলে অভিযুক্ত আসিফ তালুকদার বলেন, আমি হাতিরপুল থেকে রাতে গেস্টসহ আসছিলাম। তখন তিন-চারজন লোক চা স্টলে বসে চা খাচ্ছেন। হঠাৎ দেখি তারা মারামারি করতে লেগে গেলো। আমি থামাতে যায়। তাদের জিজ্ঞেস করি আপনারা এমন করছেন কেনো? তারপর ওরা আমার প্রতি তেড়ে এসে জিজ্ঞেস করে তুই কে? তখন আমি বলি, আসেন আমরা কথা বলি। পরিচিত হয়।

ওরা আমার সাথে খারাপ ব্যবহার করতে থাকে। আশে পাশে আমার কিছু ছোট ভাই ছিল। ওরা আসে। কিছু উচ্চ বাক্য বিনিময়। এরপর আর তেমন কিছু হয়নি। আমার ফোন বন্ধ হয়ে যায়। তাই আর প্রক্টরিয়াল টিমকে ফোন দিতে পারেনি।

ঢাকা, ২৫ ফেব্রুয়ারি (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।