জবিতে আগত নবীনদের অনুভূতি


Published: 2020-01-27 17:28:27 BdST, Updated: 2020-03-29 16:54:39 BdST

রেজওয়ান ইসলাম, জবিঃ নতুন বছরের শুরু মানেই ক্যাম্পাসে নবীনদের আগমন সেই ধারাবাহিকতায় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে (জবি) প্রবেশ ঘটেছে নবীন অর্থাৎ ১৫ তম ব্যাচের।

অনেক সংগ্রাম ও ত্যাগ স্বীকারের পরই একজন শিক্ষার্থী ভর্তি হতে পারে একটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে। শিক্ষা ও গবেষণা ইন্সটিটিউটের নবীন শিক্ষার্থীদের ক্যাম্পাসের আসার অনুভূতি নিয়ে কথা বলেছেন ক্যাম্পাসলাইভ প্রতিবেদক রেজওয়ান ইসলাম।

তাসমিয়া তাওয়াজ রিশতাঃ "জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়" নামটা কারোই অপরিচিত নয়। কিন্তু এই বিশ্ববিদ্যালয়টিকে এতো কাছ থেকে চেনার সুযোগ পাবো তা কখনো ভাবিনি। পাবলিক ইউনিভার্সিটি সবার কাছেই একটা স্বপ্নের মতো। আমিও রাতের পর রাত জেগে অনেক যত্ন করেই সেই স্বপ্নগুলো দেখতাম।অবশেষে স্বপ্ন সত্যি হলো আর আমি পেলাম আমার স্বপ্নের জগন্নাথকে।

এই ছোট্ট ক্যাম্পাসটি যে এতো অল্প সময়ে আমাকে এতো আপন করে নিবে কখনোই ভাবিনি।স্যার,ম্যাম আর সিনিয়ার ভাইয়া আপুরা এতোটাই আপন করে বরণ করে নিয়েছে ঠিক একটি পরিবারের মতো। এই পরিবার থেকেই পরবর্তী স্বপ্নগুলো সত্যি করতে চাই।আশা করি আমাদের পরবর্তী নবীনরাও এতোটাই আপন করে নিবে আমাদের জগন্নাথ পরিবারটিকে আর রচনা করবে নতুন নতুন গল্প।

মরিয়ম হাসানঃ বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার ইচ্ছা কম-বেশী সবারই থাকে। কিন্তু ছোট বেলা থেকে আমার ইচ্ছা গুলো কেমন যেন ক্ষণস্থায়ী। ভর্তিযুদ্ধ শেষে যখন জানতে পারলাম যে আগামী ৪/৫ বছরের জন্য আমার স্থান হয়েছে পুরান ঢাকা তথা বাংলাদেশের অন্যতম সেরা বিদ্যাপীঠ জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে তখন যেন আর খুশির অন্ত নেই।

ক্যাম্পাসের প্রতিটি জায়গা যেন খুব আপন মনে হয়। শিক্ষক-শিক্ষিকাদের আন্তরিক আচরণ এবং সিনিয়র জুনিয়রদের মধ্যে ভালোবাসা ও বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক এসব কিছুই আমাকে মুগ্ধ করেছে। তাদের এমন অদম্য সমর্থন পেলে নিশ্চয়ই আমরা ভালো কিছু করব ভবিষ্যতে।

মনিরুজ্জামান স্বাধীনঃ প্রকৃত, বিবেকবান, শিক্ষিত ও উন্নত জাতি সৃষ্টিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের কোন বিকল্প নেই এবং উচ্চ শিক্ষার একমাত্র মাধ্যম বোধ হয় এই বিশ্ববিদ্যালয়। এই বিশ্ববিদ্যালয় নিয়ে কতই না জল্পনা কল্পনা, কতইনা ভাবনা ভীতি মনের মাঝে সেই স্কুল জীবন থেকেই কাজ করে।

স্কুল কলেজের গন্ডি পেরিয়ে ভর্তি যুদ্ধ পার করে অবশেষে উচ্চশিক্ষার জন্য জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ও গবেষণা ইন্সটিটিউট এর ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী হিসেবে ভর্তি হই। ভয় ভীতি, আনন্দ, আকাঙ্খা সব মিলিয়ে এক অন্যরকম অনুভূতি যা ভাষায় প্রকাশ করার মত নয় এরকম অবস্থায় এসে পড়লাম ক্যাম্পাসে এখানে এসে একে একে পরিচয় পর্ব বাড়তে থাকে, যেন এক নতুন পরিবার।

আর সবচেয়ে আশ্চর্যান্বিত করার বিষয় হচ্ছে এই নব পরিবারের প্রত্যেকটা মানুষ যেন পূর্বপরিচিত আর সকলের আপন করে নেওয়ার প্রবনতা মুগ্ধ হতে বাধ্য করে। শিক্ষার পরিবেশ এবং শিক্ষকমহোদয় অনুপ্রাণিত করে সামনে এগিয়ে যাওয়ার।বিশেষ করে প্রচলিত শিক্ষক শিক্ষার্থীর মাঝের যে দুরত্ব সেটা এখানে বিন্দুমাত্র দৃষ্টিগোচর হয়নি।

আনন্দের সাথে শিক্ষার কথা এতদিন শুধু বই -পুস্তক এবং টেলিভিশনে শুনেছি এখানে এসে তা প্রত্যক্ষ করতে পেরে নিজেকে সত্যিকারের ভাগ্যবান মনে হচ্ছে। ভালোবাসার বন্ধন, পরিবেশ এবং নতুন পরিবার নিয়ে একটি ইতিবাচক অনুভুতি বিরাজ করছে।

এসকল নবীন শিক্ষার্থীদের আগমনে ক্যাম্পাস ফিরে পেয়েছে নতুন রূপ। নতুন এসকল শিক্ষার্থীরাই একদিন তাদের অর্জিত শিক্ষার সৌরভ ছড়িয়ে আলোকিত করবে দেশ ও জাতিকে। আগত সকল নবীনদের জন্য রইলো শুভ কামনা।

ঢাকা, ২৭ জানুয়ারি (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।