ঢাবিতে ‘আমি নির্ভয়, আমি অদম্য’ শীর্ষক কর্মশালা


Published: 2020-01-24 23:52:32 BdST, Updated: 2020-02-17 10:13:38 BdST

ঢাবি লাইভঃ 'নারী অদম্য নারী নির্ভয় একসাথে গাই নারীর জয়' এ স্লোগানকে সামনে রেখে শুক্রবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) টিএসসির সুইমিংপুলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় হিমু পরিবহণের যৌথ উদ্যোগে ছাত্রীদের আত্মরক্ষার কৌশল জানাতে ‘আমি নির্ভয়, আমি অদম্য’ শীর্ষক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

কর্মশালায় উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডীন প্রফেসর ড. সাদেকা হালিম, ডাকসুর এজিএস ও ঢাবি ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন,ডাকসু সদস্য ও সিনেট সদস্য তিলোত্তমা শিকদার, রোকেয়া হল ছাত্র সংসদের জিএস সায়মা আক্তার প্রমি, জাতীয় অ্যাথলেট শিরিন সুলতানা।

গণমাধ্যম কর্মী শরাফত হোসেন, পর্বতারোহী নিশাত মজুমদার, কারাতে ট্রেইনার ও গণমাধ্যম কর্মী ইশতিয়াক আহমেদ, কারাতে ট্রেইনার নয়না চৌধুরী, ফরিদা পারভীন, মাহমুদুল হাসান সহ অনেকে বক্তব্য রাখেন। কর্মশালায় ঢাবির বিভিন্ন হলের ছাত্রীরা অংশগ্রহণ করেছেন।

ডাকসুর এজিএস সাদ্দাম হোসেন বলেন, 'লিঙ্গ বৈষম্যে রুখে দিতে আমাদের এ আয়োজন। একটি ছেলে যেসব সুবিধা পায়, একজন মেয়ে সেসব সুবিধা না পাওয়া পর্যন্ত আমাদের লড়াই করে যেতে হবে'।

তিনি আরও বলেন, 'ঢাবিতে সেক্সুয়ালি হেরাজমেন্ট কোর্ট গঠন করতে হবে। এব্যাপারে অতিদ্রুত প্রশাসনকে পদক্ষেপ নেয়ার আহবান জানাই। ঢাবির টিএসসির সুইমিং পোলটি সংস্কার করে ছাত্রীদের জন্য উন্মুক্ত করতে ঢাবি প্রশাসনকে প্রস্তাব করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার কথা বলবো'।

কর্মশালার সার্বিক তত্ত্বাবধানে থাকা ডাকসু সদস্য ও সিনেট সদস্য তিলোত্তমা শিকদার বলেন, 'নারীর ক্ষমতায়নে দেশ যখন এগিয়ে চলছে, তখন সামাজিক ব্যাধি হিসেবে সামনে এসেছে ধর্ষণ। সমাজ যখন এগিয়ে চলছে, তখন কেন নারীদের মুক্তির কথা বলতে হচ্ছে?'

তিনি আরও বলেন, 'নিজেদের আত্মরক্ষার জন্য সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। একজন নারী সমাজে এগিয়ে যাবে তার নিজের পরিচয়ে, সেরকম একটি সমাজ আমরা স্বপ্ন দেখছি। নারীদের নারীমঞ্চ গড়ে তুলতে হবে। যাতে নিজেরা নিজেদের রক্ষা করতে পারি'।

ডাকসু সদস্য ও সিনেট সদস্য তিলোত্তমা শিকদার ক্যাম্পাসলাইভের সাথে একান্ত সাক্ষাৎকারে বলেন ' আমি আমার দায়িত্বের জায়গা থেকে ছাত্রীদের জন্য কাজ করে যাচ্ছি। এর আগে ও আমি ছাত্রীদের জন্য Breast Awareness প্রোগ্রাম করেছি, ১০ টাকায় স্যানিটারি ন্যাপকিনের জন্য ভেন্ডিং মেশিন এর ব্যাবস্থা করেছি।'

তিনি আরও বলেন 'ঢাবির ছাত্রী ধর্ষিত হবার পর আমার মনে হয়েছে ছাত্রীদের জন্য আত্মরক্ষার প্রোগ্রাম করা দরকার সেই জায়গা থেকে করেছি। আমার আরও ইচ্ছা ছিলো বড় করে প্রোগ্রাম টা করার সময়ের জন্য পারি নি, তবে আজ যে সাড়া পেয়েছি সেই জন্য আমার মনে হয় এটি আরও বড় করে করা দরকার তাই এই প্রোগ্রামের সার্টিফিকেট বিতরণের দিন এই আত্মরক্ষার কৌশল প্রোগ্রামটি আরও বড় করে নতুন আঙ্গিকে করা হবে।'

কর্মশালাটি মাধ্যমে ছাত্রীদের আত্মরক্ষার নতুন দ্বার উন্মোচিত হয়েছে বলে অংশ নেওয়া ছাত্রীরা বলেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশ্ব ধর্ম ও সংস্কৃতি বিভাগের তানিয়া আক্তার তাপসী ক্যাম্পাসলাইভকে বলেন, 'এ কর্মশালা আমাদের মেয়ে সমাজের জন্য এক নতুন দিগন্ত উন্মোচিত করেছে যার মাধ্যমে আমি ও সমাজের একজন অনুধাবন করতে সচেষ্ট হয়েছি। মেয়ে বলে কেউ আঘাত করলে থেমে না থেকে প্রতিবাদ করার উদ্যম সাহস দিয়ে আজকের সেমিনারে আমাদের নতুন করে অন্যায়ের অপবাদের বিরুদ্ধে সোচ্চার হতে শিখিয়েছে। আমরাও পারি পারবো এ্লো ছড়িয়ে পড়ুক প্রতিটি নারীর কাছে।'

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পপুলেশন সায়েন্সেস বিভাগের নাহিদা নিশি ক্যাম্পাসলাইভকে বলেন, 'কর্মশালাটিতে আমি অনেক কিছু শিখতে পেরেছি, যা বাস্তব জীবনে প্রয়োগ করে নিজেকে আত্মরক্ষা করতে পারব। আর বিশেষ ভাবে ডাকসু ও হিমু পরিবহন কে ধন্যবাদ এরকম একটি কর্মশালা আয়োজনের জন্য'।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উইমেন এন্ড জেন্ডার স্টাডিজ বিভাগের সানজিদা অন্বেষা ক্যাম্পাসলাইভকে বলেন, 'আমরা আসলে এমন একটি সমাজের স্বপ্ন দেখি যেখানে নারী তার নিজের পরিচয়ে এগিয়ে যাবে। কিন্তু সমাজে নারী অনেকটা পুতুলের মত। সামাজিক অনেক রীতিনীতি দিয়ে আমাদের পিছিয়ে রাখা হয়। আর এইজন্য আত্মরক্ষার কৌশল শেখাটা অনেক জরুরি। যা আমাদের রক্ষা করতে সাহায্য করে। তাই ডাকসুকে ধন্যবাদ জানাই আমাদের এই আত্মরক্ষার কৌশল শেখানোর জন্য।'

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দর্শন বিভাগ বিভাগের সুমাইয়া সুলতানা ক্যাম্পাসলাইভকে বলেন, ' প্রোগ্রামটি আমাদের নারী সমাজের জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ ছিল। এর মাধ্যমে আমরা জানতে পেরেছি নারী হওয়ার আগে আমরা একজন মানুষ,একজন বাঙ্গালী। নারী বলে পিছিয়ে বা নিজেকে গুটিয়ে রাখার মতো কিছু নেই। বরং নারীদের ধৈর্য,শক্তি অনেক বেশি। একজন নারী চাইলে সব করতে পারে। তাই সময় এসেছে খোলস ছেড়ে সব বাধাঁর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়িয়ে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করার।'

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উইমেন এন্ড জেন্ডার স্টাডিজ বিভাগের নিশাত তাসনিম ক্যাম্পাসলাইভকে বলেন, 'কর্মশালা শুধু আমার জন্যে না এটা প্রতিটি মেয়ের অদম্য মনোবলে প্রথম ধাপগুলির মধ্যে একটি বলে আমি মনে করেছি। আমরা যে দুর্বল নই,আমাদের মাঝেও যে সুপ্ত শক্তি লুকিয়ে আছে এবং আমরা চাইলেই সেই শক্তিকে কাজে লাগাতে পারি এই কর্মশালাটি তার এক প্রতিকি বহন করেছে।

এই পদক্ষেপের মাধ্যমে উপস্থিত নারীরা কিছুটা হলেও ভিতরের শক্তিকে জাগ্রত করবে বলে আশা রাখি।নিজের জায়গা থেকে নিজেকে সেইফ রাখার কৌশল ও আওয়াজ আগামী দিনের জন্যে ভালো কিছু অপেক্ষা করছে সেটি জানিয়ে দেয়। আমরা পারবো,আমাদের পারতেই হবে, যখন এই সমাজ আমাকে অন্ধকারে রেখে দিতে চায় সেখান থেকে আলোতে বেড়িয়ে আসা আমারই দায়িত্ব।

প্রতিটি নারী নিজেদের স্থান থেকে আওয়াজ তুল্লেই এবং কৌশল অবলম্বন করলে খুব সম্ভবত এই ধর্ষণ নামক এক আতঙ্ক থেকে বেড়িয়ে আসতে পারবো বলেই আশা রাখছি এবং সোনার বাংলা কে এই দায়মুক্ত করতে পারবো বলে আমার বিশ্বাস।'

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের রাহনুমা তাবাসসুম রাফি ক্যাম্পাসলাইভকে বলেন, 'কর্মশালাটি সত্যিই প্রশংসনীয়। আজকের কর্মশালায় যে দুজন বিশেষ স্পিকার ছিলো এভারেস্ট বিজয়ী নিশাত মজুমদার এবং জাতীয় এ্যাথলেট শিরিন সুলতানা, তাদের জীবন থেকে লব্ধ জ্ঞানটুকু কাজে লাগানোর চেষ্টা করব।

সেই সাথে কারাতের যে দুজন বিশেষ ট্রেইনার ছিলো নয়না চৌধুরী ও ইশতিয়াক মাহমুদ তাদের দেখানো কৌশলগুলো রপ্ত করে নিজেকে নিজেই সুরক্ষিত রাখার চেষ্টা অব্যাহত থাকবে। পাশাপাশি এই কৌশলগুলো অন্যদেরকেও শেখানোর চেষ্টা করব। এত সুন্দর এবং ভিন্ন একটা আয়োজন করার জন্য ধন্যবাদ ডাকসু এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় হিমু পরিবহণ কে।'

এ কর্মশালায় প্রায় ৩৫০ থেকে ৪০০ জন ছাত্রী অংশগ্রহণ করেন। পরবর্তীতে আর একটি কর্মশালার মাধ্যমে অংশগ্রহণকারীদের সনদ তুলে দেয়া হবে বলে জানান ডাকসুর ও সিনেটের সদস্য তিলোত্তমা শিকদার।

ঢাকা, ২৪ জানুয়ারি (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।