‘আমি তোমাদের কাছে এভাবে জবাবদিহি করব না’’‍"বুঝতে হবে এটা পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়, সিদ্ধান্ত উপর থেকে হয়"


Published: 2019-10-08 19:03:10 BdST, Updated: 2019-10-21 16:38:38 BdST

বুয়েট লাইভঃ কোন সুস্পষ্ট ঘোষণা না দিয়েই দপ্তরে চলে গেলেন ভিসি। আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ৮ দফা দাবীর ব্যাপারে ভিসি বলেছেন আমি সাধ্যমত সব দাবী মেনে নেব। কিন্তু বুঝতে হবে এটা পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়। এখানে আমার একার পক্ষে কিছু করা সম্ভব নয়। উপরে কথা বলে ক্লিয়ারেন্স নিয়েই সিদ্ধান্ত নিতে হবে।

এদিকে “আমরা এমন ভিসি চাইনা’’ আমার ভাই মরলো কেন ভিসির কাছে জানতে চাই, ৩৬ ঘন্টা পর ক্যাম্পাসে কেন, ভিসি জবাব চাই, ভুয়া, ভুয়া এমন নানান স্লোগানে মুখর এখন ক্যাম্পাস।

বুয়েট ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যার প্রতিবাদে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের দাবির মুখে লুকিয়ে ক্যাম্পাসে আসেন বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ভিসি প্রফেসর ড. সাইফুল ইসলাম। শিক্ষার্থীদের সামনে দিয়ে প্রবেশের সাহস পাননি তিনি। শিক্ষার্থীদের নজর এড়াতে বুয়েট কেন্দ্রীয় মসজিদের পাশের গেইট দিয়ে প্রবেশ করেন তিনি।

মঙ্গলবার (০৮ অক্টোবর) বিকাল সাড়ে চারটায় তিনি ক্যাম্পাসে প্রবেশ করেন বলে তার একান্ত সচিব কামরুল হাসানের বরাতে জানা যায়। ভিসির একান্ত সচিব (পিএস)কামরুল হাসান জানান, ভিসি স্যার অফিসে আছে। ডিন ও বিভাগীয় প্রধানদের সঙ্গে বিকাল সাড়ে চারটায় বৈঠক শুরু হয়েছে।

ভিসি সকলের সামনে আসেন। অনেকটা রেগে তিনি শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলেন। এক পর্যায়ে তিনি বলেন আমি তোমাদের সঙ্গে বসবো। তোমাদের দাবী মেনে নেয়ার চেষ্ঠা করবো। তোমাদের দাবীর কাগজ পেয়েছি।

ভিসি বলেন, তোমরা জান এটা পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়। আমি এককভাবে কিছু করতে পারবো না। আমি উপরে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নিতে হয়। তবে ভিসির বক্তব্য স্পষ্ট নয় বলে তারা জানিয়েছেন। ভিসি এক পর্যায়ে বলেন, আমি দুই রাত ঘুমাইনি। এটা নিয়েই কাজ করেছি। পুলিশের ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি পুলিশের সঙ্গে কথা বলবো।

ভিসি বলেন ‘আমি তোমাদের কাছে এভাবে জবাবদিহি করব না। তোমার কয়েকজন আসো, আমি আলোচনা করব।

এটা বলার পর ‘শেম শেম’, ‘মানি না, মানি না’ বলে বিক্ষোভ করতে থাকেন আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। 

শিক্ষার্থীরা জানতে চান জানাজায় কেন যাননি আপনি। এব্যাপারে ভিসি কোন উত্তর দিতে পারেননি। তিনি আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের তোপের মুখে ৮ দফা দাবী পুরনের জোড়ালো প্রতিশ্রুতি না দিয়েই তিনি উপস্থিত শিক্ষক ও ডিনদের নিয়ে চলে যান ভিসি সাইফুল ইসলাম।

অন্যদিকে ভিসি কার্যালয় ঘেরাও করে রেখেছেন আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা। ভিসি দেখা না করায় অনেকে ফটকের তালা ভেঙ্গে প্রবেশের চেষ্টা করেন। বুয়েট ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যার ঘটনায় অবিরাম আন্দোলন চলছে শিক্ষার্থীদের।

সোমবার (৭ অক্টোবর) হত্যাকাণ্ড হলেও ঘটনাস্থল শেরেবাংলা হলে আসেননি ভিসি প্রফেসর সাইফুল ইসলাম। ক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা বারবার ভিসির সঙ্গে সাক্ষাতের কথা বললেও তা আমলে নেননি হল প্রাধ্যক্ষসহ প্রশাসন।

এদিকে মঙ্গলবার (৮ অক্টোবর) সকালে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা বিকেল ৫টার মধ্যে ভিসিকে ক্যাম্পাসে আসার আলটিমেটাম দেন। বোর্ডের জনসংযোগ কর্মকর্তা শফিউর রহমান বলেন, ভিসি স্যার ডিনদের সঙ্গে মিটিং করছেন। এরপরে তিনি শিক্ষার্থী ও সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলবেন।

তবে ভিসির এমন নীরবতাকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা সমালোচনা করেছেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় নীলদলের শিক্ষক বাহাউদ্দীন বলেন, বুয়েটের অমানবিক ভিসি ও শেরেবাংলা হলের দায়িত্বজ্ঞানহীন প্রভোস্টের শাস্তি চাই। সোমবার (৭ অক্টোবর) সকাল সাড়ে ৬টার দিকে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

প্রসঙ্গত রোববার (৬ অক্টোবর) দিবাগত মধ্যরাতে বুয়েটের সাধারণ ছাত্র ও বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ফাহাদকে শেরেবাংলা হলের দ্বিতীয় তলা থেকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিয়ে যান।

ঢাকা, ৮ অক্টোবর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//বিএসসি

 

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।