ডাকসুর ভিপি নুরের নিরাপত্তার দাবিতে মানববন্ধন


Published: 2019-08-20 15:06:59 BdST, Updated: 2019-09-16 02:48:09 BdST

ঢাবি লাইভ: ডাকসুর ভিপি নুরুল হক নুরের উপর বাব বার সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদ ও তাঁর নিরাপত্তার দাবিতে মানববন্ধন করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। মঙ্গলবার দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে 'ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাধারণ শিক্ষার্থী'র ব্যানারে এ মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়।

এতে শিক্ষার্থীরা ডাকসুর ভিপি নুরের উপর বার বার সন্ত্রাসী হামলায় ও এর বিচার না হওয়ায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বা সরকারের নিন্দা জানিয়েছেন। মানববন্ধনে বিশ্ববিদ্যালয়ের শান্তি ও সংঘর্ষ বিভাগের মাস্টার্সের শিক্ষার্থী হাসানুল হক বান্না বলেন, ডাকসুর ভিপি নুরুল হক নুরের উপর প্রত্যেকটি হামলার সাথে ছাত্রলীগ ও ক্ষমতাসীন নেতা-কর্মীরা জড়িত।

আওয়ামী লীগের সভানেত্রী বা ছাত্রলীগের অভিভাবক হিসেবে শেখ হাসিনা এর দায় এড়াতে পারেন না। শুধু ডাকসুর ভিপি হিসেবে নয়, রাষ্ট্র নাগরিক হিসেবে সরকার তার নিরাপত্তা দিতে হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী নুসরাত তাবাসসুম বলেন, নুরুল হক নুর ছাত্র সমাজের প্রতিনিধি।তার উপর বার বার হামলা আমরা শিক্ষার্থীরা মেনে নিতে পারিনা।যে দেশে আমাদের ভিপি নিরাপত্তাহীনতায়, সেখানে আমরা কেউ নিরাপদ নই।

মানববন্ধনে রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী নাহিদ ইসলাম বলেন, আমরা উদ্বেগজনকভাবে লক্ষ্য করছি ডাকসুর ভিপি নুরের উপর বাব বার হামলা করা হচ্ছে। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বা রাষ্ট্র কোন পদক্ষেপ নিচ্ছে না, কোন বিচার হচ্ছে না। রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাসীরা তাঁর বাক স্বাধীনতাকে কেড়ে নিতে চায়। মানববন্ধনে মো. রামিম খানের সঞ্চালনায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন দর্শন বিভাগের শিক্ষার্থী সাদিয়া মুনা, আইন বিভাগের শিক্ষার্থী সালেহীন সিফাত প্রমুখ।

উল্লেখ্য- গত এক বছরে ছাত্রলীগ ও আওয়ামীলীগের নেতা-কর্মীদের দ্বারা মোট আট বার হামলার শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন। বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ভিপি) নুরুল হক নুর।এতে তিনি প্রাণনাশের শঙ্কাবোধ করছেন ।এসব হামলার সাথে জড়িতদের বিচারের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন নুর।

গত সোমবার দু ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনে এক সংবাদ সম্মেলন করে তিনি বলেন, গত ৩০ শে জুন ২০১৮ থেকে এ পর্যন্ত ভিপি হওয়ার পূর্বে ৩ বার(৩০ শে জুন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় গ্রন্থাগারের সামনে, ২৪ জানুয়ারি বাংলা একাডেমি ও ১১ ই মার্চ রোকেয়া হলে) এবং ভিপি হওয়ার পর ৫ বার (১২ ই মার্চ টিএসসি, ২ এপ্রিল এস.এম হল,২৫ মে ব্রাক্ষণবাড়িয়া, ২৬ মে বগুড়া ও ১৪ অগাস্ট উলানিয়া) মোট ৮ বার ছাত্রলীগ ও আওয়ামীলীগের নেতা-কর্মীদের দ্বারা হামলার শিকার হই।

প্রতিবার প্রকাশ্যে ন্যাক্কারজনক হামলার ঘটনা ঘটলে ও সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে কোন ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।বরং কোন কোন ক্ষেত্রে পুলিশের সহযোগিতায় চেয়েও পাওয়া যায় নি। পুলিশের নিরব ভূমিকা ছিলো সন্ত্রাসীদের সহায়ক।

ঢাকা, ২০ আগস্ট (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম.কম)//আরএইচ

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।