ঢাবির সংস্কৃতি বিভাগের নবীনবরণ ও বিদায় সংবর্ধনা


Published: 2019-07-16 19:52:37 BdST, Updated: 2019-08-19 08:12:04 BdST

ঢাবি লাইভ: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বিশ্ব ধর্ম ও সংস্কৃতি বিভাগের ১ম বর্ষ বিএ (সম্মান) শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের নবীনবরণ ও মাস্টার্স শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা মঙ্গলবার ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্র মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি ও এমিরিটাস প্রফেসর ড. একে আজাদ চৌধুরী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-ভিসি (প্রশাসন) প্রফেসর ড. মুহাম্মদ সামাদ দিনব্যাপী অনুষ্ঠানের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন।

বিভাগীয় চেয়ারপার্সন ড. ফাজরীন হুদার সভাপতিত্বে এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন কলা অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. আবু মো. দেলোয়ার হোসেন। এছাড়াও অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বিভাগের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. কাজী নুরুল ইসলাম, ড. ফাদার তপন কামিলুস ডি রোজারিও এবং ছাত্র উপদেষ্টা মো. মোহসীন রেজা।

উদ্বোধনী বক্তব্যে প্রফেসর ড. মুহাম্মদ সামাদ নবীন ও বিদায়ী শিক্ষার্থীদের অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, সকল ধর্মের ধর্মগ্রন্থ সমূহ হচ্ছে জ্ঞানের ভান্ডার। এগুলো পাঠ না করলে প্রকৃত জ্ঞানী হওয়া সম্ভব নয়। প্রত্যেক ধর্মেই মানুষকে ভালবাসার কথা এবং জীবের প্রতি প্রেমের কথা বলা হয়েছে। প্রকৃত মানুষ হিসেবে গড়ে উঠতে নবীন শিক্ষার্থীদের শ্রেণীকক্ষে আরও বেশি মনোযোগী হওয়ার আহ্বান জানিয়ে তিনি আরো বলেন, সঠিক জ্ঞান চর্চার মধ্য দিয়েই আমরা যে কোন সংকট কাটিয়ে জাতিকে আলোকিত করতে পারি।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রফেসর ড. এ কে আজাদ চৌধুরী বলেন, ধর্মীয় জ্ঞান হচ্ছে মানুষের জীবন ও সংস্কৃতির মূল ভিত্তি। বিশ্ব ধর্ম ও সংস্কৃতি বিষয়ে জ্ঞান অর্জনের জন্য ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে এই বিভাগটি চালু না হলে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষাদান অপূর্ণ থেকে যেত। বাংলাদেশসহ সারা বিশ্বের সকল মানুষের মধ্যে শান্তি, সৌহার্দ্য, সম্প্রীতি, মানবতা ও কল্যাণ বজায় রাখতে বিশ্ব ধর্ম ও সংস্কৃতির জ্ঞান গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে বিভাগের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহনে পরিবেশিত হয় এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।


ঢাকা, ১৬ জুলাই (ক্যাম্পাসলাইভ২৪কম)//এমআই

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।