ভিকারুননিসা ছাত্রীর আত্মহত্যা তদন্তে দুই কমিটি


Published: 2018-12-04 14:20:28 BdST, Updated: 2018-12-11 02:58:25 BdST

লাইভ প্রতিবেদক : ভিকারুননিসা নূন স্কুলের নবম শ্রেণির ছাত্রী অরিত্রি অধিকারীর আত্মহত্যার ঘটনায় দুইটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। এর মধ্যে একটি শিক্ষা মন্ত্রণালয় ও অপরটি ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজ কর্তৃপক্ষ গঠন করেছে। উভয় কমিটিকে তিনদিনের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার সকালে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেন, মাউশির (মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতর) ঢাকা আঞ্চলিক অফিসের পরিচালক প্রফেসর মো. ইউসুফকে প্রধান করে তিন সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটিকে তিনদিনের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে। তদন্ত প্রতিবেদন অনুযায়ী আমরা ব্যবস্থা নেব। তদন্ত কমিটিতে সদস্য হিসেবে রয়েছেন- মাউশির ঢাকা আঞ্চলিক অফিসের উপ-পরিচালক শাথাওয়াত হোসেন ও ঢাকা জেলা শিক্ষা অফিসার বেনজীর আহমেদ।

এদিকে শিক্ষার্থীর মৃত্যুর ঘটনায় তিন সদস্যের পৃথক কমিটি গঠন করেছে ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজ কর্তৃপক্ষও। আগামী ৩ কার্যদিবসের মধ্যে কমিটির প্রতিবেদনের প্রেক্ষিতে শিক্ষার্থী মৃত্যুর বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে বলে জানিয়েছেন প্রতিষ্ঠানটির ভারপ্রাপ্ত প্রিন্সিপাল নাজনীন ফেরদৌস। তিনি বলেন, গতকাল রাতে আমরা ম্যানেজিং কমিটির সদস্যদের নিয়ে জরুরি বৈঠক করেছি। সেখানে কমিটি গঠন করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। তার প্রেক্ষিতে আমরা আতাউর রহমান, খুরশিদ জাহান, ফেরদৌসী বেগমকে নিয়ে তিন সদস্য্যের কমিটি গঠন করে তিন দিনের মধ্যে রিপোর্ট জমা দেয়ার নির্দেশ দিয়েছি।

জানা গেছে, সোমবার দুপুরে রাজধানীর শান্তিনগরের নিজ বাসায় ফ্যানের সঙ্গে গলায় ফাঁস দেয় অরিত্রি। মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল (ঢামেক) কলেজ হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

অরিত্রির আত্মহত্যার কারণ সম্পর্কে তারা বাবা দিলীপ অধিকারী বলেছিলেন, অরিত্রির স্কুলের বার্ষিক পরীক্ষা চলছিল। রোববার সমাজবিজ্ঞান পরীক্ষা চলার সময় তার কাছে একটি মোবাইল ফোন পাওয়া যায়। এজন্য স্কুল কর্তৃপক্ষ আমাদের ডেকে পাঠায়। সোমবার স্কুলে গেলে স্কুল কর্তৃপক্ষ আমাদের জানায়, অরিত্রি মোবাইল ফোনে নকল করছিল, তাই তাকে বহিষ্কারের (টিসি) সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। স্কুল কর্তৃপক্ষ আমার মেয়ের সামনে আমাকে অনেক অপমান করে। এই অপমান এবং পরীক্ষা আর দিতে না পারার মানসিক আঘাত সইতে না পেরে সে আত্মহত্যার পথ বেছে নেয়।

এদিকে অরিত্রির আত্মহত্যার পর ভিকারুননিসার প্রিন্সিপাল হাসপাতালে গেলে তোপের মুখে পড়েন স্বজনদের। একপর্যায়ে তিনি পালিয়ে যান। মঙ্গলবার সকালে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদও ভিকারুননিসা স্কুলে গিয়ে ছাত্রীদের তোপের মুখে পড়েন।

ঢাকা, ০৪ ডিসেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//সিএস

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।