স্কুলে বাবাকে অপমান, বাসায় প্রাণ দিল ভিকারুন্নিসা ছাত্রী


Published: 2018-12-03 21:11:29 BdST, Updated: 2018-12-13 06:06:32 BdST

লাইভ প্রতিবেদক: ভিকারুন্নিসা নূন স্কুলে এক ছাত্রীর বাবাকে ডেকে তার সামনেই অপমান করায় হয়েছে। বিষয়টি সইতে না পেরে বাসায় গিয়ে প্রাণ দিয়েছে ওই ছাত্রী।

গলায় ফাঁস লাগিয়ে সে আত্মহত্যার ভয়ংকর পথ বেছে নেয়। নবম শ্রেণির ওই ছাত্রী অরিত্রি অধিকারী রাজধানীর বেইলি রোডে অবস্থিত ভিকারুননিসা স্কুলের ৯ম শ্রেণিতে পড়াশোনা করতো।

পুলিশ জানিয়েছে, সোমবার দুপুরে রাজধানীর শান্তিনগরের নিজ বাসায় ফ্যানের সঙ্গে গলায় ফাঁস দেয় অরিত্রি। মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল (ঢামেক) কলেজ হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

নিহত অতিত্রির গামের বাড়ি বরগুনা সদর উপজেলায়। সে পরিবারের দুই বোনের মধ্যে বড় ছিল। পল্টন থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আতাউর রহমান জানান, আত্মহত্যাকারী ছাত্রীর সুরতহাল প্রতিবেদন প্রস্তুত করা হচ্ছে।

নিহতের বাবা দিলীপ অধিকারী একজন সিঅ্যান্ডএফ ব্যবসায়ী। ঢামেকে তিনি সাংবাদিকদের জানান, অরিত্রির স্কুলের বার্ষিক পরীক্ষা চলছিল। রোববার সমাজবিজ্ঞান পরীক্ষা চলার সময় তার কাছে একটি মোবাইল ফোন পাওয়া যায়। এ জন্য স্কুল কর্তৃপক্ষ আমাদের ডেকে পাঠায়।

স্কুলে গেলে স্কুল কর্তৃপক্ষ আমাদের জানায়, অরিত্রি মোবাইল ফোনে নকল করছিল, তাই তাকে বহিষ্কারের (টিসি) সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

ওই ছাত্রীর বাবা আরও বলেন, স্কুল কর্তৃপক্ষ আমার মেয়ের সামনে আমাকে অনেক অপমান করে। এই অপমান এবং পরীক্ষা আর দিতে না পারার মানসিক আঘাত সইতে না পেরে সে আত্মহত্যার পথ বেছে নেয়।

সোমবার দুপুরে বাসায় ফ্যানের সঙ্গে গলায় ফাঁস দেয় অরিত্রি। পরে মুমূর্ষু অবস্থায় হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

 

 

ঢাকা, ০৩ ডিসেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমআই

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।