শেকৃবির টিএসসি: নবীনদের দু:সহ আবাস


Published: 2018-09-23 10:43:33 BdST, Updated: 2018-10-16 01:53:28 BdST

শেকৃবি লাইভ: ২০১৪ সালে নির্মানকাজ শুরু হয় রাজধানীর শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শেকৃবি) ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্র (টিএসসি)। মাঝেমধ্যে ভাড়া দিয়ে কয়েকটি প্রোগ্রাম হওয়া ছাড়া, আর অন্য কোন কাজে ব্যবহৃত হচ্ছিল না টিএসসির দ্বিতলাবিশিষ্ট এ ভবনটি।

শুধুমাত্র বিদ্যুৎ সংযোগ ছাড়া আর অন্য কোন সুযোগ সুবিধাও নেই ভবনটিতে। এর মাঝেই গত শিক্ষাবর্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তিকৃত নবাব সিরাজউদ্দৌলা হলের আবাসিক ছাত্ররা এখানে প্রায় নয় মাস ধরে থেকে আসছে, প্রতিনিয়তই মুখোমুখি হচ্ছে নানান সমস্যা সাথে। যে সব সমস্যার আপাত নেই কোন সমাধান।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, টিএসসির ২য় তলায় মেঝেতে কোনমতে তোশক বিছিয়ে গাদাগাদি করে থাকছে কয়েকশ শিক্ষার্থী যাদের সবাই গত বছর ভর্তি হয়েছে। শেওলা, ছত্রাক ও বিভিন্ন পরগাছায় ছেয়ে গেছে চারপাশের দেয়াল আর কয়েকমাস থেকে পরিষ্কার না করা ময়লা মিলে পুরো টিএসসি যেন একটি ডাস্টবিন।

পুরো কক্ষজুড়ে নেই কোন চেয়ার-টেবিল। শিক্ষার্থীদের সাথে কথা বলে জানা যায়, টিএসসির ওয়াসরুমের পানির লাইন বন্ধ আছে বেশ কয়েক মাস থেকে। ফলে তাদের নিত্য প্রয়োজনীয় কাজ সারতে যেতে হয় পার্শ্ববর্তী নবাব সিরাজউদ্দৌলা হলে। কিন্তু এখানেও নেই পর্যাপ্ত পানির প্রাপ্যতা। খাবার পানির জন্য ছুটে বেড়াতে হয় এক হল থেকে আরেক হলে।

আধাধোয়া শরীর নিয়ে প্রায়শই গোসল সারতে হয় তাদের। শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, ভবনটির উর্ধ্বগামী সম্প্রসারণ কাজ চলমান থাকায় বহিরাগত ও কিছু অসাধু শিক্ষার্থীদের যোগসাজশে চলে প্রতিনিয়তই মাদকের আসর। এই কয়েক মাসেই হারিয়েছে কয়েক ডজন মোবাইল সেট, কয়েকটি ল্যাপটপ ও সাইকেল। বেশ কিছুদিন আগে ভাইরাস জ্বর, ডেঙ্গু, টাইফয়েড, জন্ডিস ও ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয় অনেকেই।

এক শিক্ষার্থী দীর্ঘশ্বাস ছেড়ে ক্যাম্পাসলাইভকে বলেন, প্রশাসনের কাছে অভিযোগ করেছিলাম, প্রশাসন বলেছে টিএসসিতে আমাদের উঠানো হয়নি, তাই এর দায়িত্বও তারা নিবেন না।

সংশ্লিষ্ট বিষয়ে নবাব সিরাজউদ্দৌলা হলের প্রভোস্ট প্রফেসর ড. মো. ইসহাকের সাথে কথা বললে তিনি ক্যাম্পাসলইভকে বলেন, হলের সম্প্রসারণ কাজে আমাদের অজান্তেই হল থেকে পানি ব্যবহার করা হচ্ছিল যার কারণেই পানি সংকট হয়েছিল।

এসময় তিনি আরো বলেন, আশা করি আগামী বছরের শুরুর দিকে হলের নবনির্মিত কিছু অংশ খুলে দেওয়া হবে এতে আবাসন সংকট থাকবেনা। চুরি রোধে ইতোমধ্যে হলের মূল ফটকের সামনে লাগানো হয়েছে সিসি ক্যমেরা। বিশ্ববিদ্যালয়ের মাদকাসক্ত শিক্ষার্থীদের দায়ী করে প্রভোস্ট বলেন, সচরাচর ঘটে যাওয়া চুরির ঘটনাগুলো মাদকাসক্ত শিক্ষার্থীরাই ঘটাচ্ছে বলেও জানান তিনি।

 

 

ঢাকা, ২৩ সেপ্টেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমআই

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।