জবিতে ছাত্রীসহ ৩ শিক্ষার্থীকে মারধর করল ছাত্রলীগ


Published: 2018-09-13 18:19:47 BdST, Updated: 2018-09-23 19:02:35 BdST

জবি লাইভ: জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে (জবি) তাস খেলতে বসতে না দেয়ায় গনযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের নারী শিক্ষার্থীসহ ৩ জনকে বেধড়ক মারধর করেছে শাখা ছাত্রলীগের কর্মীরা।

আহত শিক্ষার্থীদের মধ্যে একজন বেসরকারী টেলিভিশন চ্যানেল নাইনের স্টাফ রিপোর্টার। এসময় তাদেরকে বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসা কেন্দ্রে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়। এ ঘটনায় প্রক্টর অফিস বরাবর লিখিত অভিযোগ দিয়েছে আহত শিক্ষার্থীরা।

শিক্ষার্থীদের মারধরের বিষয়ে জানতে চাইলে প্রক্টর ড. নূর মোহাম্মদ ক্যাম্পাসলাইভকে জানান, এ ঘটনায় একটি লিখিত বক্তব্য পেয়েছি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

জানা যায়, বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৮টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ফটকের কাছে দূর্জয় বাসে গ্রুপ স্টাডি করতে যায় গনযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগ ৯ম ব্যাচের ৬ শিক্ষার্থী। তাদের মধ্যে কয়েকজন নারী শিক্ষার্থীও ছিলো।

এসময় কতিপয় যুবক এসে তাদেরকে আসন থেকে উঠে যেতে বলে। ওই জায়গায় নিজেরা ‘তাস খেলবে’ বলে জানায়। এসময় তাদের ছাত্রত্ব সম্পর্কে জানতে চাইলে যুবকরা নিজেদের ছাত্রলীগ কর্মী ও ১২ ব্যাচের শিক্ষার্থী বলে পরিচয় দেয়।

এনিয়ে বাকবিতন্ডতা হলে শিক্ষার্থীদের অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ এবং বেধড়ক মারধর করে আদর (সিএসই ১২ব্যাচ), অর্ণব (বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্থায়ী বহিস্কৃত), মেহেদী শান্ত (ম্যানেজমেন্ট ১২ব্যাচ) পার্থ (ভূগোল ১২ব্যাচ), শিবলি (১২ ব্যাচ), ফুয়াদ নামের কয়েকজন ছাত্রলীগকর্মী।

এতে আহত হয়েছেন গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের ৯ম ব্যাচের শিক্ষার্থী রিয়াজ রহমান, মো: সাব্বির হাসান, ফয়জুন্নাহার আক্তার জিনিয়া। আহতদের মধ্যে চ্যানেল নাইনের স্টাফ রিপোর্টার রিয়াজ রহমানের অবস্থা খুবই গুরুতর বলে জানা গেছে।

এবিষয়ে জানতে চাইলে জবি ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ জয়নুল আবেদিন রাসেল ক্যাম্পাসলাইভকে জানান, সামান্য ভুল বোঝাবুঝির কারণে এমন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেছে। আমরা আহতদের সাথে নিয়ে প্রক্টর অফিসে গিয়েছি এবং জড়িতদের বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ প্রশাসনিক ব্যবস্থা নেয়ার সুপারিশ করেছি।

 

 

ঢাকা, ১৩ সেপ্টেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমআই

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।