বসুন্ধরা অাবাসিকে শেষ হল পুলিশের ৩ ঘন্টার ‘ব্লক রেইড’


Published: 2018-08-09 01:37:53 BdST, Updated: 2018-08-19 23:54:01 BdST

লাইভ প্রতিবেদক : রাজধানীর বসুন্ধরা, কালাচাঁদপুর ও নদ্দা এলাকায় বুধবার রাতে ‘ব্লক রেইড’ দেয়া হয়েছে। ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) ওই অভিযানে অংশ নেন সহস্রাধিক পুলিশ সদস্য। এছাড়া ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) ও থানা পুলিশের সদস্যরা সেখানে ছিলেন।

অভিযান চলাকালে নর্থসাউথ ইউনিভার্সিটি, আমেরিকান ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, ইন্ডিপেন্ডেন্ট ইউনিভার্সিটিসহ বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন মেসে তল্লাশি চালানো হয়। বুধবার রাত সাড়ে ৯ টার এ অভিযান শুরু করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। অভিযান শেষ হয় পৌনে ১২টার দিকে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ জানায়, রাতে বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার গেট থেকে সশস্ত্র অবস্থায় কয়েকশ' পুলিশ সদস্য ব্লক রেইডের কার্যক্রম শুরু করেন। প্রতিটি বাড়ির সামনে গিয়ে সেখানে কারা থাকেন তাদের পরিচয় জানতে চাওয়া হয়। অপরিচিত কাউকে দেখলে পুলিশকে অবহিত করতে বলা হয়েছে। এছাড়া রাস্তার পথচারীকে জিজ্ঞাসাবাদ এবং মেসে ও যানবাহনে তল্লাশি চালানো হয়।

অভিযান শেষে ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া জানান, কাউকে আটক করা হয়নি।
কোন অস্ত্রও পাওয়া যায়নি।

তবে কয়েকটি সূত্র জানিয়েছে অভিযান চলাকালে সাউথইস্ট ইউনিভার্সিটির ৫ ছাত্রকে আটক করা হয়েছে। তাদের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে। ডিএমপির এক কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে এমন তথ্য জানিয়েছেন।

এর আগে রাত ৭টার পর থেকে ডিএমপি গুলশান বিভাগ, ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি), ও রিজার্ভ পুলিশের প্রায় এক হাজার সদস্য কুড়িল বিশ্বরোড এলাকায় জড়ো হয়। নিয়ে আসা হয় পুলিশের বিশেষ সাজোয়া যান, কামান্ডিং কারসহ অত্যাধুনিক সরঞ্জামাদি।

ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া, অতিরিক্ত-কমিশনার ক্রাইম কৃষ্ণপদ রায়, অতিরিক্ত কমিশনার ডিবি আব্দুল বাতেন, যুগ্ম কমিশনার শেখ নাজমুল আলমসহ উর্ধ্বতন কর্মকর্তা ঘটনাস্থলে আসেন। ব্রিফিং শেষে পুলিশ সদস্যরা ছোট ছোট গ্রুপে ভাগ হয়ে অভিযান শুরু করেন।

গুলশান বিভাগের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার আব্দুল আহাদ জানান, ভাটারা থানা এলাকার বিভিন্ন বাসা ও মেসে ব্লক রেইড শুরু হয়েছে। সুনির্দিষ্ট তথ্যের ভিত্তিতে ডিএমপি পুলিশ নিয়মিতই এ ধরনের অভিযান চালায়।

পুলিশ জানায়, এ এলাকায় তিনটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়সহ নানা ধরনের শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান রয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের কয়েক হাজার শিক্ষার্থী ওই এলাকায় মেস ভাড়া করে থাকেন। তাদের মধ্যে ছদ্মবেশে কিছু দুর্বৃত্ত এ এলাকায় দীর্ঘদিন ধরে রয়েছে বলে গোয়েন্দাদের কাছে তথ্য রয়েছে। বিভিন্ন ইস্যুতে তারা রাজপথে নেমে ভাংচুর, অগ্নিসংযোগ ও পুলিশের উপর হামলা করেছে।

পুলিশের পক্ষ থেকে আরও জানানো হয়, রোববার ও সোমবার বসুন্ধরা আবাসিকসহ আশপাশ এলাকায় সন্দেহভাজন অনেকেই আন্দোলনের নামে মাঠে নেমে ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগ করেছে। হামলা করেছে পুলিশের উপর। বড় ধরনের নাশকতা ঠেকাতেই ওই অভিযান চালানো হচ্ছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

ঢাকা, ০৯ আগস্ট (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//সিএস

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।