চলন্ত বাসে বুদ্ধিমত্তায় ধর্ষণ থেকে রক্ষা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রীর!


Published: 2018-04-23 12:14:54 BdST, Updated: 2018-05-24 08:24:54 BdST

লাইভ প্রতিবেদক : রাজধানীর উত্তরা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রীকে চলন্ত বাসে ধর্ষণের চেষ্টা চালানো হয়েছে। এঘটনার প্রতিবাদে উত্তরা ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থীরা ২০-২৫টি তুরাগ বাস আটকে রেখে বিক্ষোভ করেন। কুয়েত বাংলাদেশ মৈত্রী হাসপাতালের সামনে তারা বিক্ষোভও দেখিয়েছেন।

যেভাবে ঘটনা ঘটে : উত্তরা ইউনিভার্সিটির ৪১ ব্যাচের মেয়ে ছাত্রী বাড্ডা লিংক রোড থেকে তুরাগের বাসে বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করেন। দুপুর বেলা হওয়ায় বাসে যাত্রী সংখ্যা কম ছিল। ওই ছাত্রী মহিলা সিটে বসা ছিল। এসময় ওই ছাত্রী লক্ষ্য করল বাসে যে কয়জন যাত্রী ছিল তাদেরকে জায়গায় জায়গায় নেমে দেওয়া হচ্ছে কিন্তু নতুন কোন যাত্রী উঠানো হচ্ছে না। এতে তার সন্দেহ হয়। একপর্যায়ে বাস প্রায় খালি হয়ে গেলে ওই ছাত্রীকে পেছনের সিটে গিয়ে বসতে বলে হেলপার। ওই ছাত্রী লক্ষ্য করেন হেলপারসহ কনডাকটর কিছুটা নেশাগ্রস্ত ছিল। এসময় কিছুটা বুদ্ধি খাটিয়ে অন্য সিটে গিয়ে বসব বলে উঠে সাইড দিতে বলে। এই বলে ওই ছাত্রী সিটে না গিয়ে দরজার কাছে যায়। এসময় হেলপার তার হাত সজোরে চেপে ধরে। এই বলে গেইট লক করে দিতে চাইলে ওই ছাত্রী চলন্ত বাস থেকেই লাফ দেয়। পরে ওই ছাত্রী অন্য বাসে করে বিশ্ববিদ্যালয়ে এসে সহপাঠীদের ঘটনাটি জানায়।

ওই ঘটনার প্রতিবাদে রোববার শিক্ষার্থীরা কুয়েত বাংলাদেশ মৈত্রী হাসপাতালের সামনে তুরাগের ২০-২৫টি বাস আটকে বিক্ষোভ করেন। পরে জড়িতদের বিচারের আশ্বাসে তারা শান্ত হন। এঘটনার বিচার না হওয়া পর্যন্ত তুরাগ বাস বন্ধ রাখার দাবি করা হয়েছে। এছাড়া জড়িতদের শনাক্ত করার চেষ্টা চলছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

ঢাকা, ২৩ এপ্রিল (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//সিএস

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।