মদনের অনশন করা সেই কিশোরীর ধর্ষণের আলামত মিলেছে,


Published: 2020-09-27 03:35:53 BdST, Updated: 2020-10-25 22:09:55 BdST

নেত্রকোনা লাইভঃ অবশেষে প্রমাণ মিলেছে। জিতে গেলেন অনশন করা সেই প্রেমিকা। নেত্রকোনা জেলার মদন উপজেলার তিয়শ্রী (উত্তর পাড়া) গ্রামের মৃত আজিজ মিয়ার মেয়ে সীমা আক্তার (১৯) নামের অনশন করা সেই প্রেমিকার ডাক্তারি পরীক্ষায় ধর্ষণের আলামত মিলেছে।

নেত্রকোনার আধুনিক সদর হাসপাতালের ডাক্তার জান্নাত আফরোজ নূপুর ভুক্তভোগীর কাছে এ রিপোর্ট হস্তান্তর করেছেন। ফরেনসিক রিপোর্ট এর মাধ্যমে জানা যায়, গত ১০ আগস্ট নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য নমুনা দিয়েছিল সেই প্রেমিকা।

হাসপাতাল থেকে ডাক্তারি পরীক্ষার রিপোর্ট মঙ্গলবার (২২ সেপ্টেম্বর) ধর্ষণের আলামত পাওয়া গেছে মর্মে রিপোর্ট প্রদান করেছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

এদিকে মামলার বাদী নোবেল অভিযোগ করে বলেন, আমাকে ও আমার পরিবারকে প্রতিনিয়ত বিবাদী রাসেল মিয়া মামলা তুলে নেওয়ার জন্য বিভিন্নভাবে হুমকি-ধামকি দিয়ে যাচ্ছে। এ নিয়ে আমি নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি।

উল্লেখ্য যে, ৩ আগস্ট প্রেমিকা সীমা আক্তার প্রেমিকের বাড়িতে বিয়ের দাবিতে অনশন করলে প্রেমিকের চাচাতো ভাই উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোঃ তোফায়েল আহমেদ বিয়ের ব্যবস্থার আশ্বাসে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও এলাকার গণ্যমান্য লোকজনের উপস্থিতিতে তাকে তাদের বাড়িতে রেখে আসেন।

পরে তিনি বিয়ের ব্যবস্থা করতে ব্যর্থ হলে ৮ আগস্ট সীমার ভাই নোবলে বাদী হয়ে তিন জনের নাম উল্লেখ করে আরো তিন জনকে অজ্ঞাত আসামী করে মামলা দায়ের করেন। সেই মামলায় প্রেমিক রুমেল ১০ সেপ্টেম্বর আদালতে আত্মসমর্পণ করেন। অদ্যবধি পর্যন্ত তিনি জেলহাজতে রয়েছেন।

ঢাকা, ২৬ সেপ্টেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//বিএসসি

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।