ঢাকা বিশ্ববিদ্যারয়ের সেই ছাত্রী মুখ খুললেনঢাবি:"যদি মৃত্যুর পর বিচার হয় তাহলে সেই প্রস্তুতি নিচ্ছি"


Published: 2020-09-26 11:36:03 BdST, Updated: 2020-10-25 02:10:37 BdST

ঢাবি লাইভ: সপ্তাহজুড়ে দেশব্যাপী আলোচিত এই ঘটনায় এবার মুখ খুলেছেন সেই ঢাবি ছাত্রী। প্রেসক্লাবে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন তিনি। লিখিত বক্তব্যে সেই ছাত্রী বলেন, 'দেশের সবাইকে আমি বলতে চাই আপনারা অন্ধভাবে নয়, সঠিক দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে বিবেচনা করুন।

একটি অসহায় মেয়ে বার বার তার ন্যায় বিচার পাওয়ার জন্য ঘুরে না পেয়ে আইনের আশ্রয় নিয়েছে। আবার সেই মেয়েকেই লাঞ্ছিত করা হচ্ছে। মানসিকভাবে ভেঙ্গে ফেলতে বিভিন্ন অপবাদ দিচ্ছে ৷

লাঞ্ছনার বিনিময়ে হলেও আমি চাই সুষ্ঠু ও সঠিক বিচার হোক যেনো এরকম জনপ্রিয় মুখোশধারীরা যাতে আমার মত আপনার মেয়ে, বোন ও শুভাকাঙ্খীকে লাঞ্ছিত বা ধর্ষিত করতে না পারে।

আর যদি আপনারা মনে করেন আমি মারা যাওয়ার পর বিচার করবেন তাহলে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা আপনিই বলুন, আমি তাহলে সেই প্রস্তুতি নিচ্ছি।"

এ সময় তিনি বলেন, 'অনেকেই বলেছেন যে, ধর্ষক নয়, ধর্ষিতার ছবি-পরিচয় প্রকাশ করুন। আসামীরা জনপ্রিয় দেখে কি সত্যটা মিথ্যা হয়ে যাবে? জনপ্রিয়রা কি অন্যায় করে না? ইতিহাস ঘাটলে দেখা যাবে জনপ্রিয়তার আড়ালেই মানুষ সবচেয়ে বেশি নোংরামি করে।

আর বাংলাদেশে এখনো সেই সংস্কৃতি গড়ে উঠেনি যে দেশের সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ুয়া একটি মেয়ে তার সর্বস্ব বিসর্জন দিয়ে মিথ্যা মামলা সাজাবে।'

ভিপি নুর সম্পর্কে সেই ছাত্রী বলেন, ভিপি নুর যে নীলক্ষেত যায়নি সেটা সে প্রমাণ করুক, তারতো অনেক ক্ষমতা, আমি তো ভুক্তভোগী, অসহায়। সে যে ভন্ডামি করে সাধারণ মানুষের আস্থার জায়গা অর্জন করেছে তা তাকে বিচার না দিলে আমি বুঝতে পারতাম না!

যে লোকের কাছে অনেক আগেই বিচার দিলাম, সেই এখন সেটাকে সরকারের রাজনৈতিক প্রতিহিংসার মামলা বলে আন্দোলন করতেছে! আমার লজ্জা হচ্ছে যে এরকম একজন মানুষকে আমি ভিপি পদে ভোট দিয়েছিলাম।

বৃহস্পতিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর শাহবাগ থানায় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তাকে নিয়ে অপপ্রচার চালানোর অভিযোগে ডিজিটাল সিকিওরিটি এক্ট ও পর্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রন আইনে মামলাটি দায়ের করেন।

মামলায় নয়জনকে আসামি করা হয়। আজকের সংবাদ সম্মেলনে সেই ছাত্রী আরো বলেন, আমি কোনপ্রকার ব্যাক্তি, সংগঠন কিংবা রাজনৈতিক দল কর্তৃক প্রভাবিত নই । সুতরাং, আমার নামে যারা কুৎসা রটাচ্ছেন,তারা এটা প্রমাণ করতে না পারলে আমি তাদের বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা নিতে বাধ্য হব ৷

বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের আহ্বায়ক হাসান আল মামুন ও ডাকসু'র ভিপি নুরুল হক নুরসহ সংগঠনটির ছয় নেতার বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্ট্যাডিস বিভাগের সেই ছাত্রী।

ঢাকা, ২৬ সেপ্টেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এআইটি

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।