র‌্যাব সদর দপ্তরে ৫৯ মামলার আসামি শাহেদ


Published: 2020-07-15 10:57:12 BdST, Updated: 2020-08-13 15:02:32 BdST

লাইভ প্রতিবেদকঃ করোনা পরীক্ষার ভুয়া রিপোর্ট, অর্থ আত্মসাৎ ও প্রতারণার অভিযোগে গ্রেপ্তার রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান ও রিজেন্ট হাসপাতালের মালিক শাহেদ করিম ওরফে মো. শাহেদকে রাজধানীর উত্তরায় র‌্যাব সদর দপ্তরে নেওয়া হয়েছে। বুধবার (১৫ জুলাই) সকাল পৌনে ১০টার দিকে তাকে নিয়ে সদর দপ্তরে পৌঁছায় র‌্যাবের বহর।

সকাল ৯টা ১০ মিনিটে তেজগাঁও পুরাতন বিমাবন্দর থেকে এক গাড়িতে করে তাকে নিয়ে রওয়ানা দেয় র‌্যাব। এর আগে, ভোরে সাতক্ষীরার সীমান্তের দেবহাটা থানার সাকড় বাজারের পাশে অবস্থিত লবঙ্গপতি এলাকা থেকে নৌকায় পালিয়ে থাকা অবস্থায় তাকে গ্রেফতার করা হয়।

সেখান থেকে জরুরি ভিক্তিতে তাকে হেলিকপ্টরে করে ঢাকা নিয়ে আসা হয়। বর্তমানে শাহেদকে র‌্যাব সদর দপ্তরে রাখা হয়েছে। সেখানে জিঞ্জাসাবাদ শেষে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হবে বলে র‌্যাবের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

র‌্যাব জানায়, শাহেদ তার ব্যক্তিগত মোবাইলটি ফেলে দিয়েছে। গত কয়েকদিন ধরে শাহেদ বার বার অবস্থান পরিবর্তন করায় তাকে ধরতে র‌্যাবের সময় লেগেছে র‌্যাবের। সবশেষ আজ ভোড়ে সাতক্ষীরা সীমান্ত দিয়ে নৌকায় পালিয়ে যাওয়ার সময় তাকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছি।

গত ৬ জুলাই করোনা পরীক্ষার ভুয়া রিপোর্ট দেয়ার অভিযোগে র‍্যাব উত্তরার রিজেন্ট হাসপাতালে অভিযান চালায়। এরপর রিজেন্ট হাসপাতালের উত্তরা ও মিরপুর শাখা সিলগালা করে দেয়া হয়। ৭ জুলাই করোনা পরীক্ষা না করেই সার্টিফিকেট প্রদানসহ বিভিন্ন অভিযোগে রিজেন্ট হাসপাতালের বিরুদ্ধে উত্তরা পশ্চিম থানায় মামলা করে র‌্যাব।

মামলায় রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান শাহেদ করিমকে প্রধান আসামি করে ১৭ জনের নাম উল্লেখ করা হয় এজাহারে। এরপর থেকেই পালিয়ে ছিলেন সাহেদ। তাকে গ্রেফতারে দেশের বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালায় র‌্যাব। অবশেষে সাতক্ষীরা থেকে তাকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয় তারা।

ঢাকা, ১৫ জুলাই (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)/এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।