"এসিড মারার হুমকি, স্কুলে যেতে পারছেনা মেঘলা"


Published: 2019-09-08 15:04:12 BdST, Updated: 2019-09-19 15:21:55 BdST

টাঙ্গাইল লাইভ: বখাটেদের উৎপাতে স্বপ্ন ভঙ্গ হতে যাচ্ছে স্কুলছাত্রী মেঘলার। প্রেমের প্রস্তাব মেনে না নেয়ায় বখাটেদের ভয়ে স্কুল বন্ধ করে দিয়েছে ওই স্কুলছাত্রী। কৃষক পরিবারে জন্ম নিয়ে অতি কষ্টে জীবন চালাতে হলেও স্বপ্ন দেখার কমতি ছিলনা মেঘলার। লেখাপড়া করে বাবা মায়ের পাশে দাড়াঁনোর স্বপ্ন আজ ভঙ্গ হতে চলেছে।

টাঙ্গাইলের ধনবাড়ীতে প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় স্কুলে যাওয়া আসার মাঝখানে কতিপয় বখাটে ছেলে মেধাবী ওই স্কুলছাত্রীকে উত্ত্যক্ত করে আসছে। বিভিন্ন সময় এসিড নিক্ষেপের ভয় দেখিয়ে আসছে বলে অভিযোগ মেঘলার। এখন বখাটেদের ভয়ে স্কুলেই যেতে পারছে না সে।

জানা গেছে, প্রেমের ডাকে সাড়া না দেয়ায় পৌরসভার গাড়াখালী আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির ফার্স্টগার্ল মেঘলাকে এসিড মেরে মুখ জ্বালিয়ে দেয়ার হুমকি দিচ্ছে। এসিড নিক্ষেপের হুমকি দাতারা হচ্ছে পাশের বান্দ্রা গ্রামের ফজল মিয়ার মাদকাসক্ত বখাটে ছেলে মানিক (১৫) ও নুর মুহাম্মদের বখাটে ছেলে সাখাওয়াত হোসেন (২০)। মেঘলা বন্দটাকুরিয়া গ্রামের মো. মফিজুর রহমানের একমাত্র মেয়ে। এ ব্যাপারে থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েও প্রতিকার পাচ্ছে না ভুক্তভোগী পরিবার।

পৌর কাউন্সিলর মো. তোতা মিয়া জানান, দ্বিতীয় নুসরাত দেখতে চাই না। ওসির সঙ্গে আলোচনা করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

গাড়াখালী আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আমিনুল ইসলাম (বেনু) জানান, মেয়েটি আমাকে মুখে বলেছে। আমি লিখিত অভিযোগ দিতে বলেছি কিন্তু দেয়নি। ছেলেটি যেহেতু বহিরাগত তাই অভিযোগ পেলে ম্যানেজিং কমিটির সঙ্গে আলোচনা করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

অভিযোগ তদন্তকারী কর্মকর্তা ধনবাড়ী থানার এসআই নূরে আলম জানান, উভয়পক্ষকে নিয়ে থানায় বসে মীমাংসা করে দেয়া হবে। না হলে মামলা রেকর্ড করে উত্ত্যক্তকারীদের গ্রেপ্তার করা হবে।

গাড়াখালী আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি প্রফেসর বেলাল উদ্দিন জানান, অভিযোগ পেলে ওসির সঙ্গে আলোচনা করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ওই ছাত্রীর অভিযোগ থেকে জানা গেছে, গত জুলাই মাসে ধনবাড়ী নবাব ইনস্টিটিউটে প্রাইভেট শেষে বাড়ি ফেরার পথে মেঘলাকে এসিডের বোতল ও চাকু দেখিয়ে ছবি তোলেন সাখাওয়াত, মানিক ও তার বন্ধুরা। মেঘলার বাবা-মা এর প্রতিবাদ করায় গত ১৫ আগস্ট মধুপুর আসার পথে মানিকদের বাড়ির কাছে পৌঁছলে মেঘলার বাবা-মাকে মারধর করে মানিক ও তার বন্ধুরা।

ঘটনার বিষয় জানাতে চাইলে মেঘলা জানায়, প্রথমে মানিক তাকে প্রেমের প্রস্তাব দেয়, সাড়া না দিলে মানিকের বন্ধু সাখাওয়াতও প্রেমের প্রস্তাব দেয়। উভয়ের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় তারা দুইজন মিলে এসিড নিক্ষেপের ভয় দেখাচ্ছে। গত ১৫ই আগস্ট থেকে বিদ্যালয়ে যেতে পারছে মেঘলা। সে বিদ্যালয়ে যেতে চায়।

মেঘলার বাবা মো. মফিজুর রহমান জানান, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আমিনুল ইসলাম বেনু মানিকের চাচাত ভাই হওয়ায় এবং মানিকের বাবা ধনবাড়ী থানার ওসির বাসার কেয়ারটেকার হওয়ার কারণে কোনো প্রতিকার পাওয়া যাচ্ছে না।

মানিকের বাবা ফজল মিয়া জানান, আমার ছেলে মেয়েটার ছবি তুলে ভুল করেছে। সেজন্য তো মেয়ের বাবা মফিজ আমার ছেলেকে মেরেছে কিন্তু আমি কিছু বলিনি।

 

ঢাকা, ০৮ সেপ্টেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমআই

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।