লালসার শিকার চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রী, সন্তানের নাম ‘অত্যাচার’!


Published: 2019-05-09 20:34:24 BdST, Updated: 2019-08-18 23:58:12 BdST

লাইভ প্রতিবেদক: এলাকার প্রভাবশালী পরিবারের যুবকের যৌন লালসার শিকার হয়ে সন্তান প্রসব করেছেন চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রী। কিন্তু সন্তানের পিতার পরিচয় না পেয়ে তার নাম রাখা হলো ‘অত্যাচার’।

গাজীপুরের শ্রীপুর পৌর এলাকার ওই ছাত্রীকে প্রথমবার ধর্ষণের পর সন্তান জন্ম দিলে তাকে আবারও ধর্ষণ করা হয়। এমনকি জন্ম নেয়া শিশুর ওপরও শারীরিক নির্যাতন চালানো হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় ৭ মে ওই ছাত্রী ও তার নবজাতক শ্রীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নেয়।

স্বজনরা জানান, পৌর এলাকার গিলারচালা গ্রামের হাজী আব্দুল মান্নানের বাড়িতে তারা কিশোরীকে নিয়ে সপরিবারে ভাড়া থাকতেন। ওই ছাত্রী স্থানীয় একটি বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণিতে পড়াশোনা করে। গত বছর ওই ছাত্রীকে ধর্ষণ করে বাড়ির মালিকের ছেলে জহিরুল ইসলাম। এতে সে অন্তঃসত্ত্বা হয়।

এ ঘটনা স্থানীয়ভাবে প্রকাশ পেলে ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে শ্রীপুর থানায় জহিরুলকে অভিযুক্ত করে গত বছরের ২৩ সেপ্টেম্বর মামলা করেন। গ্রেফতার হয় অভিযুক্ত জহিরুল। একপর্যায়ে গত বছরের ডিসেম্বর মাসে অন্তঃসত্ত্বা ওই ছাত্রী কন্যা সন্তানের জন্ম দেয়।

এদিকে, জামিনে বেরিয়ে এসে জহিরুল ওই ছাত্রীর পরিবারের সদস্যদের মামলা প্রত্যাহারের জন্য চাপ দেয়। মামলা প্রত্যাহার না করায় তাদের ওপর নেমে আসে নির্মম নির্যাতন। ৭ মে (মঙ্গলবার) সকালে কিশোরীর বাবা ও মা কাজের জন্য বাইরে চলে গেলে আবারও ধর্ষণের শিকার হয় ওই ছাত্রী। এবার সেজান নামে এক যুবক ওই ছাত্রীকে ধর্ষণ করে। পরে ছাত্রীর চিৎকারে প্রতিবেশীরা এসে তাকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে নিয়ে যান।

শ্রীপুর থানা পুলিশের পরিদর্শক (তদন্ত) শেখ সাদি বলেন, ধর্ষণের শিকার ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে প্রথমবার শ্রীপুর থানায় মামলা করেন। যাকে অভিযুক্ত করা হয়েছিল তার ডিএনএ টেস্ট করে অভিযোগের সত্যতা পাইনি।

তবে দ্বিতীয়বার সেজান নামের একজনের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ আনা হয়েছে। ইতোমধ্যে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। সেজান নেত্রকোনা সদর উপজেলার গাজার কান্দি গ্রামে হাবুলের ছেলে। সে মান্নান হাজির বাড়ির ভাড়াটিয়া। সেজানেরও ডিএনএ টেস্ট করার প্রক্রিয়া চলছে বলে জানান পরিদর্শক (তদন্ত) শেখ সাদি।

ঢাকা, ০৯ মে (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমআই

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।