আবরারকে ‘হত্যা’র আগে সেই বাসচালক আরেক ছাত্রীকে চাপা দিয়েছিল!


Published: 2019-03-20 18:48:56 BdST, Updated: 2019-04-24 10:45:28 BdST

লাইভ প্রতিবেদক: বাসচাপায় বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালসের (বিইউপি) শিক্ষার্থী আবরার আহমেদ চৌধুরীকে বেপরোয়া গতিতে চাপা দিয়ে ‘হত্যা’র আগে আরও ছাত্রীকে চাপা দিয়েছিল সেই চালক সিরাজুল ইসলাম। তবে সেই পথচারি নিহত হননি। রক্তাক্ত জখম হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন তিনি।

সুপ্রভাত বাসের চালকের কাছ থেকে এমন তথ্য পেয়েছে পুলিশ। এদিকে বাসচালকের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলার পর তার ৭ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। বুধবার শুনানি শেষে ঢাকা মহানগর হাকিম দেবদাস চন্দ্র অধিকারী রিমান্ডের এ আদেশ দেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা গুলশান থানার পুলিশ পরিদর্শক (অপারেশন) আমিনুল ইসলাম আসামিকে আদালতে হাজির করে ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন। আবেদনে বলা হয়, আসামি সিরাজুল ইসলাম গত ১৯ মার্চ সকাল ৭ টা ২০ মিনিটের দিকে প্রগতি স্মরণী বাড্ডার দিক থেকে বেপরোয়া ও দ্রুতগতিতে বাস চালিয়ে এসে গুলশান থানাধীন শাহজাদপুর বাঁশতলা এলাকায় পথচারী সিনথিয়া সুলতানা মুক্তাকে চাপা দেয়।

এতে মুক্তা গুরুতর জখম হন। আসামি উদ্দেশ্যে প্রণোদিতভাবে আরও বেপরোয়া দ্রুত গতিতে বাস চালিয়ে গুলশান থানাধীন নর্দ্দাস্থ আইকন টাওয়ারের সামনে প্রগতি স্মরণী পাকা রাস্তার ওপর বাস চাপা দিয়ে আবরার আহম্মেদ চৌধুরীর মৃত্যু ঘটায়।

জিজ্ঞাসাবাদে অনেককিছুই ওই চালক কৌশলে এড়িয়ে যাচ্ছে। তাই তাকে রিমান্ডে নেয়া প্রয়োজন। তাকে রিমান্ডে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করলে ঘটনার সাথে জড়িত বাসের হেলপার, সুপারভাইজার এবং মালিকের পূর্ণাঙ্গ নাম-ঠিকানা সংগ্রহসহ গ্রেপ্তার করা সম্ভব হবে। আসামিকে সঙ্গে নিয়ে পুলিশ অভিযান পরিচালনা করা হলে মামলার ঘটনার প্রকৃত রহস্য উদঘাটন সহ ঘটনার সাথে জড়িত সহযোগি পলাতক আসামিদের অবস্থান নির্ণয় করে গ্রেফতার করা সম্ভব হবে বলেও উলে­খ করা হয়।

এদিকে আসামিপক্ষের রিমান্ড বাতিল কিংবা জামিন আবেদন করা হয়নি। উভয়পক্ষের শুনানি শেষে আদালত আসামির রিমান্ডের ওই আদেশ দেন। একই সঙ্গে মামলার এজাহার গ্রহণ করে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য আগামী ২২ এপ্রিল দিন ধার্য করেন। রিমান্ড শুনানি শেষে আদালত প্রাঙ্গণে চালক সিরাজুল ইসলাম সাংবাদিকদের কাছে দুর্ঘটনার বিষয়টি স্বীকার করেন।

উল্লেখ্য, মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে নর্দ্দা এলাকার প্রগতি সরণির যমুনা ফিউচার পার্কের সামনের রাস্তা পার হওয়ার সময় সড়ক দুর্ঘটনায় পড়েন আবরার। রাস্তার উল্টো পাশে ছিল আবরারের বিশ্ববিদ্যালয়ের বাস। জেব্রা ক্রসিং পার হয়ে সেই বাসের কাছে যাচ্ছিলেন তিনি।

ঠিক তখন ওই রাস্তায় দুটি বাসের প্রতিযোগিতার মধ্যে পড়ে সুপ্রভাত পরিবহনের একটির ধাক্কায় ছিটকে পড়েন আবরার। এরপর সেই বাসটি তাকে চাপা দিয়ে পালানোর চেষ্টা করে। প্রত্যক্ষদর্শীদের ভাষ্য অনুযায়ী, তার নিথর দেহ টেনেও নিয়ে যায় খানিকটা। এতে ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় আবরারের।


ঢাকা, ২০ মার্চ (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমআই

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।