ফেইসবুকে যা লিখতেন নিহত মুক্তমনা ব্লগার বাচ্চু


Published: 2018-06-12 03:06:13 BdST, Updated: 2018-08-17 09:04:07 BdST

লাইভ প্রতিবেদক : মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখানে মুক্তমনা ব্লগার ও লেখককে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। শাহজাহান বাচ্চু ফেইসবুকে মুক্তমনে খোলামেলা লিখতেন। এজন্য তাকে এলাকায় সমালোচনার মধ্যেও পড়তে হয়েছে। স্পষ্টভাষী বাচ্চুর ফেইসবুকের লেখা নিয়ে ইতিমধ্যে তিনি অনেকটা আতংকের মধ্যেও ছিলেন। ফেইসবুক কমেন্ট থেকে তা ধারনা পাওয়া গেছে। এমনকি তার বন্ধু ও শুভাকাংখীরাও তাকে একাধিকবার সতর্ক করেছেন। তবুও তিনি ফেইসবুকে লিখে গেছেন আপন মনে। শেষতক দুর্বৃত্তদের হাতে প্রাণ দিতে হয়েছে। তাকে।

মৃত্যুর কয়েক ঘন্টা আগেও তিনি ফেইসবুকে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন যা নিয়ে ধর্মীয় মতবেদকে নেতিবাচকভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে। তিনি সেখানে হযরত মুহাম্মদ (স) কে নিয়ে মন্তব্য করেছেন।

এর আগেও তার লেখায় হযরত মুহাম্মদ (স) কে নানা মন্তব্য তাকে সমালোচনার মধ্যে ফেলেছে। এছাড়া তার লেখায় ধর্ম নিয়ে নানা যুক্তি কেউ কেউ ইতিবাচক হিসেবে নিলেও অনেকে তা নেতিবাচক হিসেবে নিয়েছেন।

বাচ্চু তার লেখায় ধর্মীয় অনেক বিষয় নেতিবাচকভাবে উপস্থাপনা করায় এনিয়ে বিতর্ক তৈরি হয়েছে। অনেকে তার ওইসব বিষয়ে কড়া সমালোচনাও করেছেন। এসব বিষয়ে তিনি একটি মহলের রোষানলে পড়তে পারেন এমন আশংকার মধ্যেও তিনি ফেইসবুকে একের পর এক লেখা দিয়েছেন যাতে ধর্মীয় মতভেদ লক্ষ্যনীয়। বিশেষ করে হযরত মুহাম্মদ (স) কে উদ্দেশ্য করে লেখাগুলো নিয়ে বেশ বিতর্ক তৈরি হয়েছে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে।

শাহজাহান বাচ্চুর লেখাগুলো পড়তে পারেন এখান থেকে।
তার ফেইসবুক লিংক : https://www.facebook.com/shahzahan.bachchu1960

উল্লেখ্য, সোমবার ইফতারের ঠিক আগ মুহূর্তে মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখানে মুক্তমনা ব্লগার শাহজাহান বাচ্চুকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, পূর্ব কাকালদী মুন্সীগঞ্জ-শ্রীনগর সড়কের তিন রাস্তার মোড়ে আনোয়ার হোসেনের ফার্মেসির সামনে বসে কথা বলছিলেন শাজাহান বাচ্চু। সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে দুটি মোটরসাইকেলে চারজন লোক এসে তাকে ধরে রাস্তায় নিয়ে যায়। তারা লোকজনকে সরে যেতে বলে এবং একটি ককটেল ফাটিয়ে আতঙ্ক সৃষ্টি করে। শাজাহান বাচ্চুকে রাস্তায় এনে তার বুকের ডান পাশে একটি গুলি করে। এ সময় সিরাজদিখান থানার সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) মাসুম ওই রাস্তা দিয়ে মুন্সীগঞ্জ থেকে থানার দিকে যাচ্ছিলেন।

এএসআই মাসুম জানান, ঘটনাস্থলে পৌঁছানোর আগে একটি বিকট আওয়াজ পান। সামনে গিয়ে দেখেন, একটি লোক পড়ে আছে। প্রথমে ভেবেছিলেন বিদ্যুতের তারে সমস্যা হয়েছে কিনা। পাশের রাস্তা থেকে তাকে উদ্দেশ্য করে কেউ বলে, সালাকে গুলি কর। এমন সময় একজন ব্যাগ থেকে একটি ককটেল ছুড়ে মারে তার দিকে। তিনি দৌড়ে পিছিয়ে যান। তিনি পিস্তল বের করতেই আরেকজন তার দিকে গুলি ছোড়ে। তিনি বসে গুলি করার চেষ্টা করলে বিপরীত রাস্তায় সন্ত্রাসীরা দৌড়ে দুই মোটরসাইকেলে চারজন কেটে পড়ে।

ঢাকা, ১২ জুন (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//সিএস

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।