উপজেলা সাস্থ্য কমপ্লেক্সে চুরি, মিডিয়া কর্মীদের ভিডিও ধারণে বাঁধা


Published: 2020-11-16 17:39:47 BdST, Updated: 2021-01-22 10:11:53 BdST

লাইভ প্রতিবেদকঃ কুড়িগ্রাম জেলার রাজিবপুর উপজেলা সাস্থ্য কমপ্লেক্স নিয়ে অভিযোগ এটা নতুন কিছু নয়। উপজেলা সাস্থ্য কমপ্লেক্সে গেলে রোগীরা ঠিক মত সেবা পায় না, সঠিক সময় ডাক্তার পাওয়া যায় না, রাত গভীর হলে নাইট গার্ড সহ ডিউটিরত ডাক্তারগণ ও চলে যান যার যার বাসায়।

রাত ২ টা বা ৩ টা বাঝলে যদি কোনো মারাত্মক রোগী হাসপাতালে আসেন তাহলে কোনো ডাক্তার তো দূরে একজন মানুষকেও পাওয়া যায় না। রোগী যদি মারাও যায় তবুও তাদের হদিস মেলে না।

রোগীর স্বজনরা হাসপাতালের এ প্রান্ত থেকে ওপ্রান্ত পর্যন্ত চিৎকার করে ছোটাছুটি করলেও তাদের কোনো সারা শব্দ পাওয়া যায় না। এটা তো গেলো সেবার বিষয় দুর্নীতি, অনিয়মের কথা বলাই বাহুল্য।

গতকাল ১৫ নভেম্বর গভীর রাতে চোর হয়তো এই সুযোগ টিকেই কাজে লাগিয়েছে কেননা রাত হলেই তো সবাই হাসপাতালকে ফেলে নিজ নিজ কোয়ার্টারে চলে যায় আর সিসি ক্যামেরা গুলো রাতে রাত কানা হয়ে যায়।

সিসি ক্যামেরা গুলো রাতে চোখে দেখতে পারে না। রাতে চুরি হওয়ার ঘটনা টা সকাল আনুমানিক 9 টার দিকে হাসপাতালে ঘটনাটি আমাকে একজন অবহিত করে। পরে ৪ জন মিডিয়া কর্মী হাসপাতালে ঘটনাটি তদন্ত করতে গেলে তাদের নানা ভাবে অজুহাত দেখিয়ে আরাল করার চেষ্টা করা হয়।

তারা চুরি হওয়া স্থানটিকে ভিডিও করতে গেলে বিভিন্নভাবে বাঁধা দেওয়া হয়, সেই সাথে বলা হয় থানায় গিয়ে অফিসার্স ইনচার্জের অনুমতি নিয়ে ভিডিও ধারন করতে।

শুধু তাই নয় মিডিয়া কর্মীদেরকে একটি নাম্বারের জন্য এক বিল্ডিং থেকে অন্য বিল্ডিং এ বার বার পাঠানো হয়। বিভিন্ন কৌশলে তারা ভিডিও ধারণ করতে এবং নাম্বার দিতেও অসম্মতি প্রকাশ করে।

ঢাকা, ১৬ নভেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//জেডএইচ//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।