রাজশাহীতে কুকুর আতঙ্কে নগরবাসী


Published: 2020-08-29 12:24:22 BdST, Updated: 2020-10-31 17:57:58 BdST

রাজশাহী লাইভ: রাজশাহীতে পুরো শহর জুড়ে বেওয়ারিশ কুকুরেরর হিংস্র উপদ্রব বেড়েছে এতে বেশ আতঙ্কিত নগরবাসী। কুকুরের উদ্বগজনক হারে এমন উপদ্রব দুর্বল হার্টের রোগীদের স্বাভাবিক ও নিরাপদ চলাচল যেন একপ্রকার অস্বাভাবিক করে তুলেছে।

উপশহর এলাকার ব্যাংক কর্মকর্তা আব্দুর রহিম তাদের মধ্যে একজন। তিনি জানান, বাসার গলিতে গাড়ি ঢুকতেই একদল কুকুরের চিৎকার- চেঁচামেচি শুরু হয়। গাড়ির আশপাশ ঘিরে ধরে তারা। এতে গাড়ির দরজা খুলতেও ভয় পান আব্দুর রহিম ও তার পরিবারের সদস্যরা। ছোট শিশুরা কুকুরের চিৎকার শুনে ভয়ে কুঁকড়ে যায়।

শুধু আব্দুর রহিমের ক্ষেত্রেই এমন ঘটনা নয়। এভাবে রাত হলেই রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন এলাকাগুলোর প্রতিটি পাড়া-মহল্লায় কুকুরের চিৎকার-চেঁচামেচি শুরু হয়। রাত ১২টার পর যে কোনো এলাকার গলি দিয়ে হাঁটতে গেলেই বিপাকে পড়তে হয় বাসিন্দাদের। একদল কুকুর ঘিরে ধরে পথচারীকে। অনেককে কামড়েও দেয়। এ কারণে জাতীয় সংক্রামক ব্যাধি হাসপাতালসহ বিভিন্ন স্থানে বছরে কয়েক হাজার মানুষকে জলাতঙ্কের চিকিৎসা নিতে হয়।

এখন ভাদ্র মাস কুকুরের প্রজনন মৌসুম, এই সময় কুকুররা আরো হিংস্র হয়ে উঠেছে, এ অবস্থায় শিশু ও বৃদ্ধদের নিরাপদে চলাফেরা ভীষণ ঝুঁকির মুখে পড়েছে।

এমতাবস্থায় ভুক্তভোগীরা কুকুরের এই উৎপাত থেকে রক্ষা পেতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন। জানা গেছে, শহরের প্রতিটি রাস্তাতেই কুকুরের দৌরাত্ব্যতবুও কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে এখনো কোনো ব্যবস্থা চোখে পড়ছেনা, এ ব্যাপারে কুকুর নিধন ও কুকুরের কামড়ে অধিক মাত্রাই সংক্রমণের ঝুঁকি থাকায় জলাতঙ্কের টিকার ব্যবস্থা জরুরী ভিক্তিতে করা উচিত বলে অনেক সচেতন নাগরিকই মনে করেন।

চিকিৎসকরা বলছেন, কুকুরের কামড়ে সংক্রমণ, টিটেনাস রোগের আশঙ্কা থাকে। শিশুদের নাক-মুখে কুকুর কামড়ালে ৭০ থেকে ৮০ ভাগ ক্ষেত্রেই তারা মারা যায়। র‌্যাবিস ভাইরাসে আক্রান্ত কুকুর, বিড়াল, শিয়াল, বেজি, বানর বা চিকার মাধ্যমে জলাতঙ্ক রোগ ছড়ায়। আমাদের দেশে মূলত কুকুরের কামড়ে বা আঁচড়ে (রক্ত বের না হলেও) জলাতঙ্ক রোগ বেশি হয়।

তাদের মতে, শরীরের কোন অংশে কামড় বা আঁচড় দিয়েছে, তার মাত্রার ওপর নির্ভর করে কতদিনে জলাতঙ্ক দেখা দেবে। সাধারণত এক সপ্তাহ থেকে তিন মাসের মধ্যে লক্ষণ দেখা দেয়। শরীরের নিচের অংশে কামড় বা আঁচড় দিলে এবং এর মাত্রা কম হলে সাত বছর সময়ের মধ্যে যেকোনো সময় জলাতঙ্কে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা থাকে।


ঢাকা, ২৯ আগস্ট (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমআই

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।