ইডেন ছাত্রীর লাশ : কলেজে গেলেই চলতো ঘন্টার পর ঘন্টা নির্যাতন!


Published: 2020-01-25 23:15:58 BdST, Updated: 2020-07-08 17:20:15 BdST

লাইভ প্রতিবেদক: ইডেন কলেজ ছাত্রী শরমিন রহমান মিম পড়াশোনা করতেন তৃতীয় বর্ষে। তবে তার পড়াশোনা চালিয়ে যাওয়া অন্য দশটা শিক্ষার্থীর মতো নয়। অনেক সংগ্রাম করে পড়াশোনা চালিয়ে যেতে হয়েছে তাকে। তিনি যখন দ্বিতীয় বর্ষে উঠেন তখন তার বিয়ে দেয়া হয়। বিয়ের প্রথম কিছুদিন ভালো গেলেও ধীরে ধীরে শ্বশুরবাড়ির লোকজনের চেহারা পাল্টাতে থাকে।

আর পড়াশোনা করা যাবে না এমনটাই জানিয়ে দেয়া হয়। বাধা উপেক্ষা করে কলেজে গেলেই তাকে নির্যাতন সইতে হতো। কখনও কখনও তাকে বাসার বাইরে ঘন্টার পর ঘন্টা দাড় করিয়ে রাখা হতো। বলা হতো গলায় ফাঁস দিয়ে মরে যেতে। শ্বশুরবাড়ির লোকজনের অত্যাচার নির্যাতন সইতে না পেরে অবশেষে তিনি না ফেরার দেশে চলে গেছেন। তাকে হত্যার পর লাশ ফ্যানের সঙ্গে ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন মিমের বাবা।

এব্যাপারে তিনি রাজধানীর কাফরুল থানায় একটি মামলা করেছেন। এঘটনার পর থেকে ওই ছাত্রীর স্বামীসহ শ্বশুরবাড়ির লোকজন পালিয়ে গেছেন। এদিকে শ্বশুরবাড়ির লোকজন দাবি করেছে মিম ফ্যানের সঙ্গে ঝুলে আত্মহত্যা করেছেন। তবে মিমের পরিবারের দাবি তাকে হত্যার পর লাশ ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে।

মিমের বাবা বলেন, আমার বড় মেয়ে শরমিলা রহমান মিম(২৩) ইডেন কলেজে পড়ত। গত ২০১৮ সালের জুলাই মাসে পারিবারিক ভাবে রিয়াদ আরেফিন শুভ এর সংঙ্গে বিয়ে হয়, আর ডিসেম্বরে অনুষ্ঠান হয়। দুই চোখে অনেক স্বপ্ন নিয়ে সংসার শুরু করে মিম। কিন্তু কিছুদিন যেতে না যেতেই সবার চেহারা পাল্টাতে শুরু করে.... তুই মরে যা,তোর গলায় ফাঁস দিয়ে মরা উচিত, তোকে দেখলে মেরে ফেলতে মন চায়,কলেজে যাওয়া যাবেনা,কলেজে একদিন বোরখা পরে না যাওয়ার কারণে বাসায় ঢুকতে না দিয়ে ঘন্টার পর ঘন্টার বাইরে দাঁড় করিয়ে রাখত, এভাবেই চলতে থাকে মানসিক ও শারীরিক নির্যাতন, রিয়াদ আরেফিন শুভ BANGLADESH TEA RESEARCH INSTITUTE এ কর্মরত,শ্বশুর BIMAN BANGLADESH AIRLINES এর একজন ENGINEER, শ্বাশুড়ী Housewife, এবং ননদ দিলশাদ জাহান MYMENSING MEDICAL COLLEGE পড়ে।

গত ১৬ জানুয়ারি মিম কলেজ থেকে আসার পরপরই স্বামী, শাশুড়ি, শ্বশুর, ননদ সবাই মিলে ঝগড়ায় লিপ্ত হয়। পরে শয়নকক্ষে মিমের লাশ উদ্ধার করা হয়। এবিষয়ে মিমের শ্বশুরবাড়ির লোকজন তার বাবাকে ফোন করে জানায় মিম গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। তবে মিমের বাবা হাসপাতালে গিয়ে জানতে পারেন তার মেয়েকে মৃত অবস্থায় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। তিনি অভিযোগ করেন তার মেয়েকে নির্যাতনের পর হত্যা করে লাশ ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে। তিনি তার মেয়ে হত্যার বিচার চান।


ঢাকা, ২৫ জানুয়ারি (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমআই

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।