ছাত্রী ধর্ষণকারী সেই শিক্ষক বহিষ্কার


Published: 2019-05-10 19:39:15 BdST, Updated: 2019-06-17 07:20:06 BdST

নাটোর লাইভ: নাটোরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব কলেজের এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে ওই কলেজের ইসলামের ইতিহাস বিভাগের লেকচারার আব্দুল জলিলকে বহিষ্কার করেছে কলেজ কর্তৃপক্ষ। এ ঘটনায় ওই শিক্ষকের স্ত্রী প্রিন্সিপালের নিকট লিখিত অভিযোগ করেন।

আবদুল জলিল চন্দ্রকোলার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব কলেজের ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের শিক্ষক। তার স্ত্রীর অভিযোগ তদন্তে কলেজ কর্তৃপক্ষ একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে।

কলেজ প্রিন্সিপালের কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, গত ৬ মে কলেজের গভর্নিং বডির সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় তদন্ত প্রতিবেদন ও অভিযোগ ওঠা শিক্ষকের জবাব পর্যালোচনা করে ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে নৈতিক স্খলনের অভিযোগ প্রমাণিত হয়। ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের শিক্ষক আবদুল জলিলকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সিদ্ধান্তের পরিপ্রেক্ষিতে প্রিন্সিপাল মোছা. মৌসুমী পারভীন বরখাস্তের চিঠি পাঠান।

অভিযুক্ত শিক্ষক আবদুল জলিল তার বিরুদ্ধে আনা যৌন নির্যাতনের অভিযোগ অস্বীকার করে সাংবাদিকদের জানান, তিনি অসুস্থ থাকায় গত ১২ এপ্রিল থেকে তিনি ছুটিতে আছেন। কলেজ কর্তৃপক্ষের বিভিন্ন সিদ্ধান্তের সঙ্গে একমত পোষণ না করায় ষড়যন্ত্র করে তাঁকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

কলেজ গভর্নিং বডির সভাপতি এবং সাবেক যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী আহাদ আলী সরকার শিক্ষক আবদুল জলিলকে বরখাস্ত করার বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, তার কারণে কলেজের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হয়েছে, শৃঙ্খলা নষ্ট হয়েছে। তাই নিয়মমাফিক তাকে বরখাস্ত করা হয়েছে।

 

ঢাকা, ১০ মে (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমআই

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।