চুয়েট কর্তৃপক্ষ ও শ্রমিক নেতাদের মধ্যে সমঝোতা


Published: 2017-11-22 22:10:11 BdST, Updated: 2017-12-14 04:17:43 BdST

 

চুয়েট লাইভ: বুধবার বিকেল চারটায় চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের উপকমিশনার (উত্তর) এর কার্যালয়ে এক বৈঠকে শ্রমিক নেতাদের সাথে সমঝোতায় পৌঁছে চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (চুয়েট) কর্তৃপক্ষ।

চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন মেয়রের ব্যক্তিগত সহকারী রায়হান ইউসুফের উপস্থিতিতে শ্রমিক নেতাদের সাথে চুয়েট কর্তৃপক্ষের এই সমঝোতা হয়।

সমঝোতায় ভুল বুঝাবুঝি দূর করে সমস্যা সমাধানে শ্রমিক নেতাদের আহবান জানান চুয়েট কর্তৃপক্ষ। তারা আহবানে সাড়া দেন এবং চুয়েট বাস চলাচলে সার্বিক সহযোগিতা করার ও শিক্ষার্থীদের শহরে চলাচলে নিরাপত্তার আশ্বাস দেন।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রকল্যাণ পরিচালক প্রফেসর ড. মোহাম্মদ মশিউল হক বলেন, মেট্রোপলিটন পুলিশের মধ্যস্থতায় শ্রমিক নেতাদের সাথে আমাদের বৈঠক ফলপ্রসূ হয়েছে। আগামীকাল থেকে স্বাভাবিক নিয়মে শহরে চুয়েট বাস চলাচল করবেবলে জানা যায়।

বৈঠকে শ্রমিক নেতাদের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম জেলা ট্রাক ও কভার্ড ভ্যান শ্রমিক ইউনিয়নের কার্যকরী বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রকল্যাণ পরিচালক প্রফেসর ড. মোহাম্মদ মশিউল হক, পুরকৌশল অনুষদের ডিন প্রফেসর ড.মোহাম্মদ আবদুর রহমান ভূইয়া, যন্ত্রকৌশল বিভাগের প্রফেসর ড. মোহাম্মদ তাজুল ইসলাম, উপ ছাত্রকল্যাণ পরিচালক প্রফেসর ড. জি এম সাদিকুল ইসলাম এবং শিক্ষার্থী প্রতিনিধি হিসেবে তিনজন উপস্থিত ছিলেন।

উলেখ্য, ১৯ নভেম্বর সাড়ে নয়টা নাগাদ ক্যাম্পাসগামী চুয়েটের কর্ণফুলী বাসের হেলপারের সাথে গাড়ি সাইড দেয়া নিয়ে স্থানীয় এক লোকের বাকবিতন্ডা হয়। এ সময় লোকটি হেলপারের গায়ে হাত তুললে শিক্ষার্থীরা এগিয়ে আসে। এরপর ঐ লোকসহ কয়েক জনের সাথে শিক্ষার্থীদের হাতাহাতি শুরু হয়।

সেখানে একজন চুয়েট শিক্ষার্থী আঘাতপ্রাপ্তও হন। পরবর্তীতে তিনটি বাসের শিক্ষার্থীরা সড়কে অবস্থান নেয়। পরে শিক্ষকদের অনুরোধে শিক্ষার্থীরা তাদের ব্যারিকেড খুলে দিয়ে ক্যাম্পাসে ফিরে যাবার প্রাক্কালে চট্টগ্রাম জেলা ট্রাক ও কভার্ড ভ্যান শ্রমিক ইউনিয়নের কার্যকরী সভাপতি আবদুর নবী লেদু এসে শিক্ষার্থীদের সাথে দুর্ব্যবহার করেন এবং ২ জন শিক্ষার্থীদের গালে চড় মারেন।

এর প্রেক্ষিতে চুয়েটের শিক্ষার্থীদের সাথে তার কথা কাটাকাটি হয় এবং সংঘর্ষ বাধে। এতে চুয়েটের তিন শিক্ষার্থী আহত হয়। এছাড়াও এতে আবদুর নবী লেদু এবং তার কয়েকজন অনুসারীও আহত হয়েছেন বলে খবর পাওয়া গেছে। পরবর্তীতে বায়েজিদ থানার পুলিশ এসে ঘটনাস্থল নিয়ন্ত্রণ নিলে পরিস্থিতি শান্ত হয়।

এ প্রেক্ষিতে টানা তিন দিন ক্লাস বর্জন করে চুয়েটের শিক্ষার্থীরা। হামলার প্রতিবাদে সোমবার মানববন্ধন ও মঙ্গলবার ক্লাস বর্জন অব্যাহত রেখে অবস্থান কর্মসূচি পালন করে তারা। আজ বুধবার ক্লাস স্থগিত রাখা হলেও চুয়েটের প্রথম বর্ষের ভর্তি কার্যক্রমে প্রেক্ষিতে কোন ধরনের মানববন্ধন বা অবস্থান কর্মসূচী পালন করা হয় নি। নিরাপত্তাজনিত কারনে এই তিন দিন শহরের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়নি কোনো চুয়েট বাস ।


ঢাকা, ২২ নভেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমআই

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।