চট্টগ্রাম আইআইইউসির শিক্ষার্থীরা পুলিশ প্রহরায় ক্যাম্পাস ছেড়েছেন


Published: 2020-01-30 00:25:39 BdST, Updated: 2020-02-17 01:18:40 BdST

আইআইইউসি লাইভঃ অবশেষে আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় চট্টগ্রাম (আইআইইউসি) এর শিক্ষার্থীরা ক্যাম্পাস ছেড়েছেন। তাদের জন্যে ক্যাম্পাসে আনা হয় শতাধিক পুলিশ সদস্য। বুধবার রাত ৯টার মধ্যে হল ত্যাগের নির্দেশ থাকায় শিক্ষার্থীরা হল ছেড়েছেন। এদিকে হঠাৎ করে শিক্ষার্থীদের হলত্যাগ করতে বলায় অনেকেই দুর্ভোগে পড়ছেন। কোথায় থাকবেন, কোথায় উঠবেন এ ব্যাপারে এনিয়ে পড়েছেন দুশ্চিন্তায়।

এর আগে এক ছাত্রকে মারধরের ঘটনায় সাধারণ শিক্ষার্থী ও ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা মুখোমুখি অবস্থান নেয়ায় দিনভর উত্তেজনা বিরাজ করে ক্যাম্পাসে। কোন সমাধানে আসতে না পারায় পরিস্থিতি শান্ত করতে বিকালে অনির্দিষ্টকালের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করে রাত ৯টার মধ্যে ছাত্রদের হল ত্যাগের নির্দেশ দেয় প্রশাসন। এনিয়ে চলছে এখনও চাপা উত্তেজনা।

সীতাকুণ্ড থানার ওসি ফিরোজ হোসেন মোল্লা জানান, কোনো ধরনের বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি যেন না হয়, সে জন্য বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। সব ছাত্র হল ছাড়ার পর পুলিশ তুলে নেওয়া হবে। তিনি আরোও বলেন, হামলার ঘটনায় জড়িতেদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক কে. এম গোলাম মহিউদ্দীন।

ভিসি বলেন, আমাদের একটি প্রসিডিওর আছে। প্রক্টরিয়াল টিম থেকে প্রতিবেদন পাওয়ার পর আমরা সিন্ডিকেট মিটিংয়ে এই বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করব। ঘটনার সাথে যারা জড়িত তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

উল্লেখ্য, ছাত্রলীগের নাম ব্যবহার করে সোমবার রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ওসমান (রা.) হলে রড, লাঠি ও স্ট্যাম্প দিয়ে বেধড়ক পেটানো হয় আদনান নামের এক শিক্ষার্থীকে। নির্যাতনের শিকার ওই শিক্ষার্থী কুরআনিক সাইন্সেস অ্যান্ড ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের প্রথম বর্ষের দ্বিতীয় সেমিস্টারের ছাত্র।

আর মারধরে অংশ নেন ছাত্রলীগের নেতাকর্মী উ চো মারমা, রবিউল ইসলাম রনি, শফিউল ইসলাম, অনিক ও মৃদুল। গোটা এলাকায় এখনও উত্তেজনা বিরাজ করছে। যে কোন সময় অগঠন ঘটতে পারে বলে এলাকাবাসী জানিয়েছেন।

ঢাকা, ২৯ জানুয়ারি (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।