চুয়েটের স্থাপত্য বিভাগের প্রাণবন্ত জুরি সম্পন্ন


Published: 2020-01-26 17:12:36 BdST, Updated: 2020-04-09 08:48:57 BdST

চুয়েট লাইভ: চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (চুয়েট) স্থাপত্য বিভাগের ‘১৩ ব্যাচের দুইদিনব্যাপী ৫ম সমাপনী উন্মুক্ত জুরি সম্প্রতি সম্পন্ন হয়েছে। উক্ত আয়োজনে সুচনাপর্বে প্রধান অতিথি ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. মোহাম্মদ রফিকুল আলম।

স্থাপত্য বিভাগের বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর ড. জি.এম. সাদিকুল ইসলাম এতে সভাপতিত্ব করেন। এবারের জুরিতে বিচারক ছিলেন বাংলাদেশের স্বনামধন্য স্থাপতি প্রফেসর শামসুল ওয়ারেস, বাংলাদেশ স্থপতি ইনস্টিটিউটের সভাপতি স্থপতি জালাল আহমেদ, বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থাপত্য বিভাগের প্রফেসর স্থপতি ড. কাজী আজিজুল মাওলা ও অ্যাসোসিয়েট প্রফেসর স্থপতি মাহমুদুল আনোয়ার রিয়াদ, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থাপত্য বিভাগের প্রফেসর স্থপতি ড. শেখ সিরাজুল হাকিম, চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের প্রধান পরিকল্পনাবিদ স্থপতি শাহিনুল ইসলাম খান। বিভাগের অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রফেসর কানু কুমার দাশের সঞ্চলনায় জুরিতে বিভিন্ন সমসাময়িক বিষয়সহ স্থাপত্যের বিভিন্ন প্রকল্প উপস্থাপন করেন শেষ বর্ষের শিক্ষার্থীবৃন্দ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রফেসর ড. মোহাম্মদ রফিকুল আলম বলেন, বাংলদেশের মত স্বল্পোন্নত দেশে পরিকল্পিতভাবে সুষম উন্নয়নে স্থপতিদের ভুমিকা অপরিসীম ও অপরিহার্য। চুয়েট স্থাপত্য বিভাগ মানসম্মত স্থপতি তৈরীর লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে। ইতোমধ্যে নবনির্মিত শামসেন নাহার খান হল এবং টিএসসি'র অত্যাধুনিক ও পরিবেশবান্ধব স্থাপত্যশৈলী প্রমাণ করে দিয়েছে চুয়েটের স্থাপত্য বিভাগের সক্ষমতা।

সুচনাপর্বে স্থপতি প্রফেসর শামসুল ওয়ারেস শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, স্থাপত্য মৌলিক উপাদানের সমন্বয় সাধন করে কাজ করার পাশাপাশি ভালো স্থাপত্য উদাহরণ দিয়ে স্থাপত্যের আধুুনিকতা বিষয়ে পরার্মশ দেন। ভবনে আলো-বাতাসের ব্যবহার, প্রকৃতির প্রতি সংবেদনশীল হওয়া, নগরীর সকল জনগণের জন্য সমসুযোগে চিন্তা করতে হবে। মনে করিয়ে দেন মানুষের পঞ্চেন্দ্রিয় যেন স্থাপত্যের মাধ্যমে সঠিক সংবেদনশীল হয়।

উক্ত জুরিতে বিভাগীয় প্রকল্প সুপারভাইজর ও অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রফেসর মো. মুস্তাফিজ আল মামুন, সজীব পাল, মো. নাজমুল লতিফ, বিপ্লব কান্তি বিশ্বাস, শায়লা শারমিন ও লেকচারার অমিত ইমতিয়াজ জুরিতে অংশ নেন।

এছাড়া সাবেক বিভাগীয় প্রধান সুলতান মোহাম্মদ ফারুক, অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রফেসর দেবশ্রী মন্ডল এবং বিভাগের লেকচারার শুভ্র দাশ, জনাবা সৈয়দা তাহমিনা তাসমিন, মুর্ছনা মাধুরী, রাহানাত আরা জাফরসহ চট্টগ্রামের প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থাপত্য বিভাগের শিক্ষক, স্থপতি ও শিক্ষার্থীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। জুরিতে বিশেষজ্ঞরা ভবনে আলো-বাতাসের ব্যবহার ও প্রকৃতির প্রতি সংবেদনশীল হওয়ার ব্যাপারে গুরুত্বারোপ করেন।

ঢাকা, ২৬ জানুয়ারি (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমআই

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।