কুবিতে শিক্ষকের বিরুদ্ধে মানহানির অভিযোগ


Published: 2020-01-23 19:05:21 BdST, Updated: 2020-04-09 09:39:51 BdST

কুবি লাইভ: কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুবি) ইংরেজি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান আলী রেজওয়ান তালুকদারের বিরুদ্ধে মানহানির লিখিত অভিযোগ তুলেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই শিক্ষক। বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার প্রফেসর ড. মো. আবু তাহেরের কাছে এ অভিযোগ দেন ইংরেজি বিভাগের অ্যাসোসিয়েট প্রফেসর ড. মোহা. হাবিবুর রহমান ও অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রফেসর মোহাম্মদ আকবর হোসেন।

অভিযোগ থেকে জানা গেছে, এক ছাত্রীর আনা যৌন হয়রানির অভিযোগের প্রেক্ষিতে ইংরেজি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান আলী রেজওয়ান তালুকদার কুমিল্লা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেন। সেখানে দুইজন শিক্ষককে জড়িয়ে মিথ্যা ও মানহানিকর বক্তব্য উপস্থাপন করায় এর তীব্র নিন্দা জানান তারা। শিক্ষকদের জড়িয়ে মিথ্যা ও বানোয়াট তথ্য দেয়ায় তার বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়ার জন্য প্রশাসনের কাছে আবেদন জানানো হয়।

ইংরেজি বিভাগের অ্যাসোসিয়েট প্রফেসর ড. মোহা. হাবিবুর রহমান জানান, ‘কুমিল্লা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে আমাদের বিভাগীয় প্রধান আলী রেজওয়ান তালুকদার আমাকে জড়িয়ে পরীক্ষায় নম্বর বাড়িয়ে দেয়া সংক্রান্ত একটি গুরুতর অভিযোগ করেন, যা বিভিন্ন সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। এটি মোটেও সত্য নয়। এর ফলে আমি পারিবারিক, সামাজিক ও প্রতিষ্ঠানিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন হয়েছি। অথচ এ বিভাগীয় প্রধান নিজেই পরীক্ষার নম্বর জালিয়াতির অভিযোগে প্রশাসনিক শাস্তি পেয়েছেন।’

এবিষয়ে জানতে চাইলে অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রফেসর মোহাম্মদ আকবর হোসেন জানান, ‘আমাদের বিভাগীয় প্রধান গত ১৯ জানুয়ারি সংবাদ সম্মেলনে আমার বিরুদ্ধে এক ছাত্রীর সাথে গত বছরের ২১ নভেম্বর অনৈতিক, আপত্তিকর ও অশালীন ব্যবহার করি বলে অভিযোগ করেন, যা আমার জন্য খুবই অনাকাঙ্ক্ষিত, বেদনাদায়ক ও অসম্মানজনক।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (অতিরিক্ত দায়িত্ব) প্রফেসর ড. মো. আবু তাহের জানান, একজন বিভাগীয় প্রধান তার বিভাগের শিক্ষকদের নিয়ে এমন মন্তব্য করতে পারেন না। দুজন শিক্ষক অভিযোগ দিয়েছেন। বিষয়টি ভিসির সঙ্গে কথা বলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।


ঢাকা, ২৩ জানুয়ারি (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমআই

 

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।