রাবিপ্রবিতে সিএসই বিভাগের ১ম ব্যাচের র‌্যাগ দিবস


Published: 2019-12-10 20:18:45 BdST, Updated: 2020-09-18 12:33:00 BdST

রাবিপ্রবি লাইভঃ এটা কখনো বিদায় হতে পারে না, এটা কখনো বিচ্ছেদ না। শীতের ঝরে যাওয়া পাতাগুলোর মতো রাঙামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (রাবিপ্রবি) এর সিএসই ১ম ব্যাচের প্রস্থান! কখনো মেনে নেয়া যায় না।

ওরা এসেছিলো দারিদ্রতার সময়ে। নেই নেই আর হা হা কারের এক করুণ কাহিনীর স্তব্ধ সময়ে। নিজেদের হল নেই, ল্যাব নেই, ক্লাশ করার কক্ষ নেই। কিন্তু দাবি আদায়ে ঐক্যতা ছিলো ওদের বুকে। নিজেদের বলতে ছিলো শুধু স্বপ্ন। বিদায়ের মাহিন্দ্র ক্ষণে তাই ছিলো আতীত স্মৃতি চারণ।

৪ বছরের শিক্ষা জীবনের ৮ সেমিষ্টারের হিসেব গুটিয়ে আজ কেবল স্বপ্নের পথে ছুটে চলা। গুগল, ফেসবুক,ইউটিউব সহ ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্নতো ওরাই দেখতে পারে। সকাল, দুপুর বা রাত নেই ওদের টেলিফোনের জবাব যে কত বার ওদের বিভাগীয় প্রধান, প্রভাষক দিয়েছেন তার হিসেব ওরা ছাড়া কে বা রেখেছে? কিছুদিন পরে নতুনের আগমন আজ পুরানো দের প্রস্থান?

সেমিকোলন না দিয়েই ভুল করেই প্রোগ্রামিং শুরু করলেও র‌্যাগ দিবসে সেমিকোলন নাম দিয়েই তা শেষ করলো ওরা। বিদায়ী মুহূর্ত কে স্মরণ করে রাখতে নিয়মের বাহিরে অনিয়মের রং খেলা! অস্থায়ী হল সাজলো রঙ বে-রঙে বিভিন্ন উপকরণে। বাজলো বাঁশি সাজলো সবাই রঙের সাজে। লুঙ্গি পাঞ্জাবির ঐতিহ্যতা ফুটে উঠেছে ওদের বেশভূষায়।

ব্যানার হাতে র‌্যালি ঘুরলো প্রধান শহরে। নিজেদের অস্থায়ী ক্যাম্পাসে কেক কেটে শুভ সূচণা করেন বিভাগীয় শিক্ষকবৃন্দ। রঙ, রঙিন জল, বাঁশি আর নাচ গানে কাটলো পুরো দিন। পুরো শহর যেন এক পলকে তাকিয়ে ওদের দিকে। দুপুরের খাবার সারলো নিজেদের চিরচেনা খাবার রুমে।

দুই দিনের অনুষ্ঠানের পরের দিন ছিলো মিলন মেলা। স্থায়ী ক্যাম্পাসের রাতের অনুষ্ঠানে জ্বাললো বিদায়ের ঝাঁড়বাতি। কাঁটা তারের বেড়া ছিঁড়ে দুটো মানচিত্রে ওরা গাইলো অনিকেত প্রান্তর।

বটবৃক্ষের মতো থাকা প্রিয় ব্যাচের প্রস্থানে অনেকটা আবেগী উত্তরসূরিরা। সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলো তা গভীর ভাবে জানিয়ে দেয়। রাবিপ্রবির পথ প্রদর্শক হিসেবে ওরাই থাকবে অনুকরণীয়। ‌‌‌‘‘বিদায় সেমিকোলন” (;) তোমাদের কষ্ট আর ত্যাগের কথা তোলা থাকবে রাবিপ্রবির সিএসই বিভাগের ইতিহাসে।

ঢাকা, ১০ ডিসেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।