স্থানীয়দের হামলায় কুবির দুই শিক্ষার্থী আহত


Published: 2019-11-06 18:46:03 BdST, Updated: 2019-11-22 18:27:30 BdST

কুবি লাইভ: স্থানীয়দের হামলার শিকার কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুবি) দুই শিক্ষার্থী। এ হামলায় শিক্ষার্থীসহ ৩ জন আহত হয়েছেন। বুধবার সকালে কোটবাড়ি পুলিশ ফাঁড়ির কাছে চাঙ্গিনী উত্তর মোড়ে এ হামলার ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, বুধবার সকাল ৮টায় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে শহরগামী একটি বাস কোটবাড়ি চাঙ্গিনী উত্তর মোড়ে এসে পৌঁছায়। এ সময় ওভারটেক করা নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসচালকের সঙ্গে এক সিএনজি অটোরিকশা চালকের কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে বাসচালকের উপর চড়াও হন অটোরিকশা চালক। এ সময় তার সঙ্গে অন্য অটোরিকশা চালক এবং স্থানীয় লোকজনও যোগ দেন। তারা বাসের চালক, হেলপার ও শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা করেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিন্যান্স অ্যান্ড ব্যাংকিং বিভাগের শিক্ষার্থী এনায়েত উল্লাহ তুষারের মাথায় প্রচন্ড আঘাত লাগে। প্রচুর রক্তক্ষরণ হয় ওই শিক্ষার্থীর। এছাড়াও হাতের কব্জিতে আঘাত পান ইংরেজি বিভাগের দশম ব্যাচের শিক্ষার্থী জাহেদ নঈম। এ ঘটনায় বাসের হেলপার সাত্তার মিয়াও আহত হন।

হামলার শিকার বাসের হেলপার জানান, ‘সিএনজি অটোরিকশা চালক ঝুঁকি নিয়ে আমাদের সামনে যেতে চাইলে তাকে না করা হয়। এতে সে ক্ষিপ্ত হয়ে আমাদের দিকে তেড়ে আসে। এ নিয়ে তার সঙ্গে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে অন্য সিএনজি অটোরিকশা চালকসহ স্থানীয়রা লাঠিসোঁটা নিয়ে আমাদের ওপর হামলা করে। এতে আমার পিঠে ও হাতে গুরুতর আঘাত পাই। ছাত্ররা ঠেকাতে গেলে তাদেরকেও আঘাত করা হয়।

পরবর্তী সময়ে শহর থেকে বিশ্ববিদ্যালয়গামী আরও বাস ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছালে শিক্ষার্থীরা জড়ো হয়ে এ ঘটনার প্রতিবাদ জানায় এবং হামলাকারীদের গ্রেফতারের দাবিতে রাস্তা অবরোধ করে। পরে কোটবাড়ি পুলিশ ফাঁড়ির সদস্যরা শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার অভিযোগে অটোরিকশা চালক আলমগীরকে আটক করে সদর দক্ষিণ থানায় নিয়ে যায়।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. কাজী মোহাম্মদ কামাল উদ্দিন জানান, ‘হামলার খবর শুনে দ্রুত ঘটনাস্থলে যাই এবং সেখানে আসলে কী ঘটেছিল জানার চেষ্টা করি। আমরা থানায় অভিযোগ করব। পরবর্তীতে পুলিশ ব্যবস্থা নেবে।


ঢাকা, ০৬ নভেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমআই

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।