কুবি: “যতদিন রবে বাংলাদেশ, অজেয় থাকবে বঙ্গবন্ধু”


Published: 2019-08-22 21:06:27 BdST, Updated: 2019-09-20 14:30:12 BdST

কুবি লাইভ: কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস আলোচনা সভা পালিত। সভায় বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক কবি হাবীবুল্লাহ সিরাজী বলেন, 'যতদিন বাংলাদেশ বেঁচে থাকবে ততদিন বঙ্গবন্ধুর নাম অজেয় থাকবে।'

বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের ৪১১নং কক্ষে এ আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। ফার্মেসী বিভাগের সহকারি অধ্যাপক মোঃ এনামুল হক ও নৃবিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক ইসরাত জাহান লিপা এর সঞ্চালনায় আলোচন সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক কবি হাবীবুল্লাহ সিরাজী, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কুবি রেজিস্ট্রার (অতিরিক্ত দায়িত্ব) ড. মোঃ আবু তাহের এবং শিক্ষক সমিতির সভাপতি ড. মোঃ শামিমুল ইসলাম। আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এমরান কবির চৌধুরী।

প্রধান অতিথির বক্তৃতায় হাবীবুল্লাহ সিরাজী বলেন, "বঙ্গবন্ধু হত্যার মতো কৃতকর্মের ফল এবং আমাদের সে লজ্জাজনক অবস্থানকে ধুয়ে মুছে ফেলার জন্য এ দেশের অর্থনৈতিক ও সামাজিক উন্নয়নই একমাত্র পথ।"

সভার সভাপতির বক্তব্যে ভিসি প্রফেসর ড. এমরান কবির চৌধুরী বলেন, "বাংলাদেশের ইতিহাস মানেই বঙ্গবন্ধু। ১৫ আগস্টের হত্যাকান্ডের দায় আমরা এড়াতে পারি না। এ মানুষটি বেঁচে থাকলে বাংলাদেশ আজ বিশ্বের প্রথম সারির উন্নত দেশে পরিণত হতো।"

সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন জাতীয় শোক দিবস উদযাপন কমিটির আহবায়ক এবং কলা ও মানবিক অনুষদের ডিন ড. জি এম মনিরুজ্জামান।

এর আগে সকাল সাড়ে ১০টার দিকে কালো ব্যাজ ধারণ করে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. এমরান কবির চৌধুরীর নেতৃত্বে একটি শোক র‍্যালি বের করা হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবন থেকে শুরু হয়ে ক্যাম্পাসের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যের পাদদেশে এসে শেষ হয়।

র‌্যালি শেষে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যে বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারের পক্ষে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. এমরান কবির চৌধুরী। এর পরে একে একে পুষ্পার্ঘ অর্পণ করেন বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি, বঙ্গবন্ধু পরিষদ, অফিসার্স এসোসিয়েশন, হল প্রভোস্ট, বিভিন্ন বিভাগ, কর্মচারী সমিতি, শাখা ছাত্রলীগ, বঙ্গবন্ধু কর্মচারী পরিষদ, বিএনসিসি, থিয়েটারসহ বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন সংগঠন।

উল্লেখ্য, ১৫ আগস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ে ঈদুল আযহার ছুটি থাকায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে ঐ দিন ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হয়। বিশ্ববিদ্যালয় খোলার পর শিক্ষার্থীদের নিয়ে বড় আকারে দিবসটি পালনের সিদ্ধান্ত নেয় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

ঢাকা, ২২ আগস্ট (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম.কম)//আরএইচ

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।