চুয়েটে র‌্যাগ ডে : অ্যাম্বুলেন্সে মদ পরিবহনে বাধা, ভয়ংকর ছাত্রলীগ!


Published: 2019-07-22 22:05:12 BdST, Updated: 2019-08-19 08:17:00 BdST

চুয়েট লাইভ: চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (চুয়েট) র‌্যাগ ডেতে অ্যাম্বুলেন্সে করে মদ পরিবহনে বাধা দেয়ায় ভয়ংকর হয়ে উঠেছে ছাত্রলীগ। মেডিকেল অফিসার ডা. খোরশেদ আলমকে পিটিয়েছে ছাত্রলীগ নামধারী শিক্ষার্থীরা।

এঘটনার পর থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ে অনেকটা অচলাবস্থা বিরাজ করছে। এঘটনায় জড়িত ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের বিচার দাবিতে সোমবার বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসিকে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয় কর্মকর্তা সমিতি। বিষয়টি খতিয়ে দেখতে ৩ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। পাশাপাশি ওই হামলা ঘটনার প্রতিবাদে চুয়েটের সকল চিকিৎসক বিএমএর পরামর্শে কর্মবিরতি ঘোষণা দিয়েছেন।

জানা যায়, গত শনিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের র‌্যাগ ডে অনুষ্ঠানে কিছু ছাত্রলীগ নেতাকর্মী বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক মেডিকেলে এসে দায়িত্বপ্রাপ্ত মেডিকেল অফিসার ডা. খোরশেদ আলমের কাছে একটি অ্যাম্বুলেন্স চান। ডা. খোরশেদ আলম এর কারণ জানতে চাইলে তারা র‌্যাগ ডে উপলক্ষে বাংলা মদ আনার কথা বলেন। এসময় তাদের অ্যাম্বুলেন্স দিতে অস্বীকৃতি জানান খোরশেদ আলম। এতে ক্ষিপ্ত ছাত্রলীগ নামধারী শিক্ষার্থীরা তাকে দুই ধাপে হামলা চালায়।

তবে চুয়েট ছাত্রলীগের সভাপতি সৈয়দ ইমাম বাকেরের দাবি, চুয়েটে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা কোন রোগের ওষুধ ও ভালমত চিকিৎসা দিতে পারেন না। এ নিয়ে শিক্ষার্থীদের সাথে চিকিৎসকের দীর্ঘদিন ঝামেলা রয়েছে। চুয়েট প্রশাসনে অভিযোগ করেও এ পর্যন্ত কোন সুরাহা দিতে পারেনি। কয়েকদিন আগে ছাত্রলীগের কয়েক নেতা চিকিৎসার জন্য গেলে চিকিৎসক ঠিকমত চিকিৎসা করতে পারেনি। চিকিৎসক খোরশেদের কাছে শহরে চিকিৎসার জন্য অ্যাম্বুলেন্স চাইলে এনিয়ে হট্টগোল হয়। তবে ওই ঘটনাটি বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ কয়েকদিন ধামাচাপা দিতে চেয়েছে।

হামলার শিকার ডা. খোরশেদ আলম বলেন, ছাত্রলীগ নামধারী যারা হামলা করেছে তাদের ব্যাপারে আগেও বেশ কয়েকবার মদ নিয়ে চুয়েট ভিসির কাছে অভিযোগ দেয়া হয়েছে। সেই দিনও তারা র‌্যাগ ডে উপলক্ষে মদ আনায় আমি অ্যাম্বুলেন্স দিতে অস্বীকৃতি জানাই। এতে তারা আমার উপর দুই দফা হামলা চালায়। এঘটনায় সোমবার থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল প্রকার চিকিৎসা থেকে কর্মবিরতি পালন করছি। যতদিন এটি সুরাহা না হবে, ততদিন এ কর্মবিরতি চলবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. মোহাম্মদ রফিকুল আলম বলেন, কি কারণে ওই ঘটনা ঘটেছে তা জানার জন্য তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্ত শেষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে উলে­খ করেন তিনি।

 

ঢাকা, ২২ জুলাই (ক্যাম্পাসলাইভ২৪কম)//এমআই

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।