চবির সেই গোল্ড মেডেলিস্ট ছাত্রকে নিয়োগ পরীক্ষার সুযোগ!


Published: 2019-05-06 01:17:09 BdST, Updated: 2019-08-25 15:51:23 BdST

চবি লাইভ : চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) সেই গোল্ড মেডেলিস্ট ছাত্রকে ফের শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার সুযোগ দেয়া হচ্ছে। এর আগে তিনি গত ২৭ মার্চ চবিতে শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা দিতে এসে ছাত্রলীগের হাতে অপহৃত হন। এনিয়ে ক্যাম্পাসলাইভসহ বেশ কয়েকটি অনলাইন ও পত্রিকায় নিউজ করা হলে তোলপাড় শুরু হয়। এবার ওই ঘটনায় জড়িত ৩ ছাত্রলীগ কর্মীর বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। তদন্ত কমিটির সুপারিশ অনুযায়ী এমন ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। আলোচিত ওই অপহরণ ঘটনার প্রেক্ষিতে গঠিত তদন্ত কমিটি রোববার তাদের প্রতিবেদন জমা দিয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ২৭ মার্চ চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) প্রাণিবিদ্যা বিভাগের শিক্ষক নিয়োগের মৌখিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এতে অংশ নিতে এসে ছাত্রলীগের একাংশের হাতে অপহৃত হন প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদকপ্রাপ্ত চবির সাবেক শিক্ষার্থী এমদাদুল হক। ওইদিন বিশ্ববিদ্যালয়ের বেশ কয়েকটি জায়গায় নিয়ে তাকে মারধর করে শিবির আখ্যা দিয়ে তাকে পুলিশের হাতে তুলে দেয় ছাত্রলীগ। এর আগে তার কাছে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা টাকা দাবি করে না পেয়ে তার ওপর ক্ষিপ্ত হয়। ওই ঘটনায় পরবর্তীতে ৩ এপ্রিল তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেন চবি প্রশাসন। এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর হেলাল উদ্দিনকে প্রধান এবং সহকারী প্রক্টর মিজানুর রহমান ও লিটন মিত্রকে সদস্য করা হয়। রোববার দুপুরে চবির প্রশাসনিক ভবনের সভাকক্ষে সংবাদ সম্মেলনে তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন ভিসি প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী। এসময় তিনি সাংবাদিকদের তদন্ত প্রতিবেদন পাঠ করে শোনান।

প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, ‘২৭ মার্চ পরীক্ষা দিতে এসে প্রার্থী এমদাদুল হক কতিপয় শিক্ষার্থী কর্তৃক বাধাপ্রাপ্ত হওয়ায় ৩ এপ্রিল ভিসি বরাবর অভিযোগ দায়ের করেন। সেদিনই ঘটনার তদন্তে কমিটি গঠন করা হয়। ঘটনা পর্যালোচনা করে তদন্ত কমিটি এ সিদ্ধান্তে উপনীত হয়েছে যে, এমদাদ পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে এলে কতিপয় শিক্ষার্থী কর্তৃক বাধাপ্রাপ্ত হয়েছিলেন। অভিযোগে ঘটনার সাথে জড়িত যে সাতজনের নাম উল্লেখ করেছেন তাদের মধ্যে তিনজনের সম্পৃক্ততা পেয়েছে তদন্ত কমিটি।’ তিন ছাত্রলীগ কর্মী হলো - প্রাণিবিদ্যা বিভাগের ২০১১-১২ শিক্ষাবর্ষের মোকসেদ আলী, আনোয়ার হোসেন ও আসিফ মাহমুদ।'

এ ঘটনায় চবি প্রশাসনের নিকট তিনটি সুপারিশ করেছে তদন্ত কমিটি— মৌখিক পরীক্ষায় অংশগ্রহণে বাধা প্রদানকারী তিন শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে বিশ্ববিদ্যালয় বিধি অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া যেতে পারে; ২৭ মার্চ অনুষ্ঠিত মৌখিক পরীক্ষাটি বাতিল করা যেতে পারে; লেকচারার পদে প্রার্থী এমদাদুল হকের অংশ গ্রহণ নিশ্চিত করে পুনরায় পরীক্ষা গ্রহণ করা যেতে পারে।

ঢাকা, ০৬ মে (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//সিএস

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।