বাবার সঙ্গে ঝগড়ার প্রতিশোধ, ছাত্রীকে ধর্ষণের পর হত্যা!


Published: 2019-03-17 00:52:28 BdST, Updated: 2019-04-20 19:00:02 BdST


কুমিল্লা লাইভ : বাবার সাথে ঝগড়ার প্রতিশোধ নিতে স্কুলছাত্রী মেয়েকে ধর্ষনের পর হত্যা করেছে প্রতিপক্ষের সন্ত্রাসীরা। নৃশংসতার শিকার তাহমিদা ইসলাম দীঘির বাড়ি কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে। শনিবার সকালে উপজেলার শ্রীপুর ইউনিয়নের গজারিয়ার কাকড়ি নদী থেকে ওই ছাত্রীর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। দীঘি গজারিয়া গ্রামের ফল ব্যবসায়ী দেলু মিয়ার মেয়ে। এঘটনায় পুলিশ ধর্ষণে জড়িত সন্দেহে মোহাম্মদ আলী বাপ্পি নামে একজনকে গ্রেফতার করেছে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য মিজান, মিলন, ইমনসহ আরো ৫ জনকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় উত্তেজিত এলাকাবাসী ধর্ষণের সঙ্গে জড়িত বাপ্পিসহ তার সহযোগি ৪জনের বাড়িঘর পুড়িয়ে দিয়েছে। গ্রেফতারের পর পুলিশের কাছে ঘটনার দায় স্বীকার করে জবানবন্দি দিয়েছে ধর্ষক বাপ্পি।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, গজারিয়া গ্রামের ফল ব্যবসায়ী দেলু মিয়ার সাথে পাওনা টাকা নিয়ে ঝগড়া হয় একই গ্রামের জাকারিয়ার ছেলে বখাটে মোহাম্মদ আলী বাপ্পির। এ নিয়ে ক্ষুব্ধ বাপ্পি প্রতিশোধ নেয়ার চেষ্টা চালায়। অন্য কোন উপায় না পেয়ে শুক্রবার বিকেলে কৌশলে দেলুর স্কুল পড়ুয়া মেয়ে তাহমিদা ইসলাম দীঘিকে অপহরণ করে। রাতে তাকে ধর্ষণের পর গলায় ও মুখে উড়না পেচিয়ে শ্বাসরোধ করে। পরে তার লাশ কাকড়ি নদীতে ফেলে দেয় সন্ত্রাসীরা। সকালে স্থানীয়রা দীঘির লাশ উদ্ধার করে সন্দেহভাজন বাপ্পিকে আটক করে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশের কাছে সোপর্দ করে।

চৌদ্দগ্রাম থানার ওসি মাহফুজুর রহমান জানান, ওই ছাত্রীর লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

ঢাকা, ১৭ মার্চ (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//সিএস

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।