দুই নেতার কমিটি দিয়ে ইবি ছাত্রলীগের এক বছর


Published: 2018-04-15 19:41:50 BdST, Updated: 2018-04-22 03:14:25 BdST

ইবি লাইভ: ইতোমধ্যে নির্ধারিত এক বছর মেয়াদ শেষ করেছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের কমিটি। গত বছর এই দিনে ১৫ এপ্রিল অনুমোদন পায় ইবি শাখা ছাত্রলীগের দুই সদস্যের কমিটি। দুই সদস্যের কমিটি দিয়েই চলছে গত এক বছর।

গত বছর ২৫ জুলাই পূর্ণাঙ্গ কমিটি করার জন্য কেন্দ্র থেকে চিঠি আসলেও আজও তা বাস্তবায়ন হয়নি। পদ প্রতাশীদের অভিযোগ কোটি টাকার টেন্ডার এবং নিয়োগের লাখ টাকার ভাগ অন্য কাউকে দিতে চান না সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক। পূর্ণাঙ্গ কমিটি না হওয়ার পেছনে এটাই মূল কারণ হিসাবে উল্লেখ করেন তারা।

এদিকে বর্তমান কমিটির মেয়াদ শেষ হয়ে গেলেও পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠিত না হওয়ায় দলের তৃণমূল নেতা-কর্র্মীদের মাঝে দেখা দিয়েছে চাপা ক্ষোভ এবং হতাশা। ছাত্র জীবন শেষ হয়ে ক্যাম্পাস ত্যাগ করছে অনেক কর্মী। কিন্তু ক্যাম্পাস রাজনৈতিক জীবনে কোন পদ-পদবী পাওয়া হচ্ছে না তাদের।

জানা যায়, গত বছরের ৬ এপ্রিল ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। কেন্দ্রীয় নেতারা সম্মেলন করে চলে গেলেও সেদিন নতুন কোন নের্তৃত্ব পায়নি ইবি ছাত্রলীগ। পরে একই মাসের ১৫ তারিখে কেন্দ্রীয় কমিটির স্বাক্ষরিত প্রেস বার্তায় বাংলা বিভাগের ২০০৭-০৮ শিক্ষাবর্ষের শাহিনুর রহমান শাহিনকে সভাপতি এবং একই বিভাগের ২০০৯-১০ শিক্ষাবর্ষের জুয়েল রানা হালিমকে সাধারণ সম্পাদক করে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের নতুন কমিটি ঘোষণা করা হয়। কিন্তু কমিটি ঘোষণার এক বছর পার হলেও এখনো পূর্ণাঙ্গ কমিটি করেনি বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগ।

এ নিয়ে চলছে শাখা ছাত্রলীগের পদপ্রত্যাশি বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা-কর্মীর মাঝে চাপা উত্তেজনা ও চরম ক্ষোভ। এতে নেতা-কর্মীদের অনেকেই হতাশার ছাপ নিয়ে ক্যাম্পাস ছাড়ছেন। সম্মেলনে অর্ধশতাধিক পদপ্রার্থী নেতারা তাদের কাঙ্খিত মুল্যায়ন এবং এখন পর্যন্ত কোন পদ না পাওয়ায় রাজনীতিতে অনিহা প্রকাশ করছে। এদিকে কিছু বাছাই বাছাই নেতা-কর্মী নিয়ে সভাপতি-সম্পাদক চালাচ্ছে তাদের রাজনৈতিক কর্মকান্ড।

দলীয় সূত্রে জানা যায়, গত বছর ২৫ জুলই পূর্ণঙ্গ কমিটি গঠনের নির্দেষ দিয়ে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ চিঠি পাঠায় ইবি ছাত্রলীগের কাছে। চিঠি পাওয়ার প্রায় ৯ মাস হলেও আজো পর্যন্ত পূর্ণাঙ্গ কমিটি নিয়ে কোন মাথা ব্যথা নেই সভাপতি শাহিনুর রহমান শাহিন এবং সাধারণ সম্পাদক জুয়েল রানা হালিমের।

সাবেক কমিটির সহ-সম্পাদক আরাফাত বলেন, ‘আমাদের সবার দাবি অতি সত্তর ইবি শাখার পূর্ণাঙ্গ কমিটি করা হোক। যেহেতু এক বছর অতিক্রম করেছে দুই সদস্যের বর্তমান কমিটি।’

সাভাপতি গ্রুপের নেতা তৌকির মাহফুজ মাসুদ বলেন ‘খুব অল্প সময়ের মধ্যে কেন্দ্র থেকে শাখা ছাত্রলীগের সম্মেলনের ডাক আসতে পারে। তার আগেই কমিটি হওয়া দরকার।’

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক নেতা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, সংগঠনের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী কমিটির মেয়াদ এক বছর। আজ ১৫ এপ্রিল এক বছর পূর্ণ হলো। কিন্তু এখনো আমরা কোন পদ পেলামনা। সভাপতি-সম্পাদক একচেটিয়াভাবে বিভিন্ন ফায়দা লুটাচ্ছে। ক্যাম্পাসে কোটি কোটি টাকার কাজ চলছে, তার ভাগ বাটোয়ারা অন্য নেতাদের দিতে তারা সম্পূর্ণ নারাজ। আসলে একারণেই পূর্ণাঙ্গ কমিটি করছে না তারা।

শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক জুয়েল রানা হালিম বলেন, পূর্ণাঙ্গ কমিটির ব্যাপারে আমরা ইতোমধ্যে সিদ্ধান্ত গ্রহন করেছি। কেন্দ্রীয় সম্মেলনের আগেই আমরা পূর্ণাঙ্গ কমিটি করে ফেলবো।

এ ব্যাপারে শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি শাহিনুর রহমান শাহিনের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করতে গেলে এসময় তার ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

 


ঢাকা, ১৫ এপ্রিল (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমআই

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।