হল থেকে বের করে দেয়ায় প্রাণ দিল ছাত্রী!


Published: 2018-02-22 20:59:34 BdST, Updated: 2018-10-20 10:57:14 BdST

টাঙ্গাইল লাইভ: হলের খাবার নিয়ে আপত্তি জানিয়েছিলেন তিনি। এ কারণে শিক্ষক ও হল কর্মচারীদের সঙ্গে তর্ক হয় তার। পরে তিনি এজন্য ক্ষমাও চেয়েছেন। তার বাবা-মাকেও এজন্য ক্ষমা চাইতে হয়েছে। তবুও মন গলেনি কর্তৃপক্ষের। ওই ছাত্রীকে হল থেকে বের করে দেয়া হয়।

পরীক্ষা চলাকালে কর্তৃপক্ষের এমন সিদ্ধান্তে চরম বিপাকে পড়েন ওই ছাত্রী। হলের বাইরে থেকেই পরীক্ষায় অংশ নিতে হয়েছে তাকে। তবে এজন্য তাকে হীনমন্যতায় ভুগতে হয়েছে। অবশেষে আত্মহত্যা করেছেন ওই ছাত্রী। টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে ভারতেশ্বরী হোমসে ওই ঘটনা ঘটে। নিহত ছাত্রী মেহিয়া আক্তার বাবলী এবার এসএসসি পরীক্ষা দিচ্ছিলেন। মেহিয়ার পিতার নাম মো. বখতিয়ার রানা এবং মায়ের নাম পারুল বেগম।

জানা গেছে, বাবলী বুধবার রাতে মির্জাপুর উপজেলা সদরের বাইমহাটি গ্রামে তার বান্ধবী জয়ার সঙ্গে পরীক্ষা দিতে আসে। তার বাসাতেই বাবলী আত্মহত্যা করেন। পুলিশ রাতে ওই বাসার একটি কক্ষ থেকে গলায় ফাঁস লাগানো ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে।

বাবলীর মা পারুল বেগম জানান, বাবলী ভারতেশ্বরী হোমস থেকে তার মেয়ে এসএসসি পরীক্ষা দিচ্ছে। সে আবাসিক হলের ছাত্রী ছিল। তিনি অভিযোগ করেন, তার মেয়ে বাবলী ভারতেশ্বরী হোমসের আবাসিক হলে থাকা অবস্থায় কিছুদিন পুর্বে হোস্টেলের ডাইনিং হলে রান্না নিয়ে প্রতিবাদ করেন। এসময় তার মেয়ের সঙ্গে শিক্ষক ও রান্নাঘরের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কথা কাটাকাটি হয়।

পরে তারা হোমসে এসে প্রিন্সিপাল, শিক্ষক ও কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সঙ্গে দেখা করে ক্ষমা প্রার্থনা করেন। বাবলীর মাও ক্ষমা চেয়ে নেন যেন তার মেয়ে হোমস থেকে এবছর এসএসসি পরীক্ষা দিতে পারে। হোমস কর্তৃপক্ষ তাকে ও তার মেয়েকে ক্ষমা না করে আবাসিক হল থেকে বের করে দেয়। এ অবস্থায় মেয়েকে নিয়ে চরম বিপাকে পরেন তারা।

বাবলী তার বান্ধবী জয়ার বাড়ি মির্জাপুর পৌর সদরের বাইমহাটি গ্রামের লোকমান মিয়ার বাসা থেকে এসএসসি পরীক্ষা দিতে থাকে। বুধবার রাতে ওই বাসার একটি কক্ষে বাবলীর লাশ পাওয়া যায়।

বাবলীর পরিবারের অভিযোগ ভারতেশ্বরী হোমস থেকে বের করে দেওয়ার অপবাদ সইতে না পেরে তার মেয়ে আত্মহত্যা করেছে। তারা তদন্ত সাপেক্ষ মেয়ের হত্যার বিচার চেয়েছেন। এ ব্যাপারে ভারতেশ্বরী হোমস কর্তৃপক্ষ জানায়, বিভিন্ন অভিযোগের প্রেক্ষিতে বাবলীকে হল থেকে বের করে দেয়া হয়েছিল।

এ ব্যাপারে মির্জাপুর থানার ওসি একে এম মিজানুল হক মিজান বলেন, গলায় ফাঁস লাগানো ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। ময়না তদন্তের পর প্রকৃত কারণ জানা যাবে বলে উলে­খ করেন তিনি।

 

২২ ফেব্রুয়ারি (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমআই

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।