বেঙ্গালুরুতে শুরু হচ্ছে ‘সামাজিক ব্যবসা দিবস’


Published: 2018-06-28 17:36:16 BdST, Updated: 2018-12-10 11:17:39 BdST

লাইভ ডেস্ক: ভারতে শুরু হয়েছে ৮ম সামাজিক ব্যবসা দিবস। বেঙ্গালুরুর ইনফোসিস ইলেকট্রনিক সিটি ক্যাম্পাসে আয়োজিত এটি হবে ভারতে অনুষ্ঠিত প্রথম সামাজিক ব্যবসা দিবস। ইতোপূর্বে সাতটি সামাজিক ব্যবসা দিবসই অনুষ্ঠিত হয়েছে ঢাকায়। ইউনূস সেন্টার আয়োজিত সামাজিক ব্যবসার এই বার্ষিক উদ্যাপন অনুষ্ঠানটিতে বিশ্বজুড়ে সামাজিক ব্যবসার উদ্যোক্তা ও পরিচালনাকারী, শিক্ষাবিদ ও গবেষক, ছাত্র এবং সামাজিক ব্যবসায়ে উৎসাহী ব্যক্তিগণ সামাজিক ব্যবসা নিয়ে আলোচনা করতে সমবেত হন। মুম্বাই-ভিত্তিক “ইউনূস সোশ্যাল বিজনেস, ইন্ডিয়া”, যা মুলধন সরবরাহ ও কর্পোরেট কর্মকান্ডের মাধ্যমে ভারতে সামাজিক ব্যবসার প্রসারে কাজ করে যাচ্ছে, এর আমন্ত্রণে এ বছর ভারতে উদ্যাপিত হচ্ছে সামাজিক ব্যবসা দিবস।

গ্লোবাল আইটি কোম্পানী ইনফোসিস তার আন্তর্জাতিক সদর দপ্তরে এই সম্মেলন আয়োজনের প্রস্তাব দেয় এবং ভারতে বিজ্ঞান, প্রযুক্তি, কমিউনিটি ও সংস্কৃতির উদ্ভাবনশীল প্লাটফরম আইএনকে এই আকর্ষণীয় সম্মেলনটির আয়োজনে সবধরনের সহযোগিতা প্রদান করছে। ইউনূস সেন্টার থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে এসব কথা বলা হয়েছে। এতে আরো বলা হয়, সামাজিক ব্যবসা দিবস ২০১৮-এর বিষয়বস্তু হচ্ছে “একটি তিন শূন্যের পৃথিবী: শূন্য দারিদ্র, শূন্য বেকারত্ব ও শূন্য নীট কার্বন নিঃসরণ” (A World of Three Zeros: Zero Poverty, Zero Unemployment, Zero Net Carbon Emissions)। প্রফেসর ইউনূসের নতুন গ্রন্থ A World of Three Zeros -এ উল্লেখিত একটি দারিদ্র, বেকারত্ব ও পরিবেশ-ঝুঁকি মুক্ত বিশ্বের রূপকল্পের ভিত্তিতে প্রণীত হয়েছে এ বছরের সামাজিক ব্যবসা দিবসের বিষয়বস্তু। উল্লেখ্য যে, প্রফেসর ইউনূসের এই তিন শূন্যের পৃথিবীর রূপকল্প বাস্তবায়নে বাংলাদেশ সহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে গত ৪০ বছর ধরে কাজ চলছে।

নোবেল পুরস্কার বিজয়ী প্রফেসর মুহাম্মদ ইউনূস সম্মেলনে আগত বিশিষ্ট অতিথিদের উদ্দেশ্যে উদ্বোধনী বক্তব্য প্রদান করবেন। এছাড়া সম্মেলনে মূল বক্তব্য পেশ করবেন ড্যানোন-এর বৈশ্বিক প্রধান নির্বাহী ইমানুয়েল ফেইবার, নারায়ণ হৃদয়ালয়ের ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রখ্যাত চিকিৎসক ডাঃ দেবী প্রসাদ শেঠি এবং ভারতের পরিকল্পনা কমিশনকে প্রতিস্থাপনকারী ভারত সরকারের থিংক ট্যাংক NITI Aayog-এর প্রধান নির্বাহী অমিতাভ কান্ত।

বেঙ্গালুরুতে শুরু হচ্ছে সামাজিক ব্যবসা দিবস

 

পৃথিবীর ৪২টি দেশ থেকে ১,২০০-র বেশী প্রতিনিধি সামাজিক ব্যবসা দিবসে অংশগ্রহণের জন্য এরই মধ্যে নিবন্ধন করেছেন। সম্মেলনের বিভিন্ন সেশনে বক্তৃতা দেবেন বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ, বিশেষজ্ঞ এবং নেতৃস্থানীয় সামাজিক ব্যবসা উদ্যোক্তা ও পরিচালনাকারীগণ। পূর্বের বছরগুলোর মতোই ২০১৮ সালের সামাজিক ব্যবসা দিবসে পৃথিবীব্যাপী জরুরী সামাজিক সমস্যাগুলোর সমাধানে গৃহীত বিভিন্ন উদ্যোগ, অভিজ্ঞতা, আইডিয়া ও কর্ম-পরিকল্পনা বিনিময় করা হবে। বিএনপি পারিবাস, টাটা স্টীল, অ্যামিটি ইউনিভার্সিটি, রাউন্ডগ্লাস, কেরালা-ভিত্তিক মাইক্রোক্রেডিট ইনিসিয়েটিভ অব গ্রামীণ ও নিশিথ দেশাই অ্যাসোসিয়েটস সম্মেলন অনুষ্ঠানে সহযোগিতা প্রদান করছে।

এতে থাকবে অনেকগুলো প্লেনারী সেশন ও প্যানেল। শতাধিক খ্যাতিমান ব্যক্তি এসকল সেশন ও প্যানেলে বক্তব্য রাখবেন ও তাঁদের মূল্যবান অভিজ্ঞতা বিনিময় করবেন। এঁদের মধ্যে রয়েছেন কলিংগ ইনস্টিটিউট অব ইন্ডাষ্ট্রিয়াল টেকনোলজী ও কলিংগ ইনস্টিটিউট অব সোশ্যাল সায়েন্স-এর প্রতিষ্ঠাতা এবং ভারতের রাজ্যসভার সদস্য ড. অচ্যুত সামন্ত; বিশিষ্ট অভিনেতা ও সমাজকর্মী রাহুল বোস; মোনাকোর প্রিন্স অ্যালবার্ট সমর্থিত মোনাকো-ভিত্তিক ক্রীড়া সংগঠন পিস এন্ড স্পোর্টস-এর বৈশ্বিক প্রধান নির্বাহী লরেন্ট ডুপন্ট; সোশ্যাল আলফা’র প্রধান নির্বাহী, টাটা ইনস্টিটিউট ফর জেনেটিক্স এন্ড সোসাইটি’র ট্রাস্টি এবং টাটা ট্রাস্টস এর হেড অব ইনোভেশন এন্ড অ্যনট্রাপ্রিনিয়রশীপ মনোজ কুমার; গ্রামীণ আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ও প্রধান নির্বাহী অ্যান্ড্রিয়া জাং; গ্রামীণ ফাউন্ডেশন-এর প্রেসিডেন্ট স্টীভ হলিংওয়ার্থ; জাতিসংঘের অর্থনীতি বিভাগের পরিচালক মারিয়া লিজিয়া দো রোজারিও নরোনহা; নিতীশ দেশাই অ্যাসোসিয়েট্স -র প্রতিষ্ঠাতা নিতীশ দেশাই; সানপাওয়ার কর্পোরেশনের প্রেসিডেন্ট এবং গ্রামীণ জাপান সানপাওয়ার অটো’র সহ-প্রধান নির্বাহী তাকুইয়া কাওয়ামুরা; স্বদেশ ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা ও পরিচালক জরিনা স্ক্রুওয়ালা; সৃষ্টি’র প্রতিষ্ঠাতা অনিল কে. গুপ্ত; সেন্টার ফর সেল্ফ-হেল্প ডেভেলপমেন্ট-এর চেয়ারম্যান শংকর মান শ্রেষ্ঠ; নিগ্রোজ উইমেন ফর টুমরো ফাউন্ডেশন-এর পরামর্শক কোরাজন হেনারেস; নীতি ফাউন্ডেশন-এর প্রধান মেন্টর এবং কলিংগ ইনস্টিটিউট অব সোশ্যাল সায়েন্স-এর উপেদেষ্টা সুরজ কুমার; এসাফ স্মল ফাইনান্স ব্যাংক-এর প্রতিষ্ঠাতা ও পরিচালক কে. পল টমাস; ইএম-থ্রি এগ্রিসার্ভিসেস-এর প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান রোহতাশ মাল; অ্যামিটি ইউনিভার্সিটি রাজস্থান-এর উপাচার্য অরুণ পাতিল; আর্থ-টু-অরবিট-এর প্রধান নির্বাহী সুস্মিতা মোহান্তি, এবং ইউনূস ইয়োশিমোতো সোশ্যাল অ্যাকশন কোম্পানী’র প্রধান নির্বাহী ইয়ুকা কোবায়াশি, আইএনকে’র প্রতিষ্ঠাতা ও ও প্রধান নির্বাহী লক্ষী প্রাতুরী প্রমূখ।

প্লেনারী সেশনে থাকবে প্রফেসর ইউনূসের গ্রন্থ A World of Three Zeros নিয়ে আলোচনা যা সঞ্চালনা করবেন প্রফেসর ইউনূস। প্লেনারী সেশনগুলোতো আরো যেসব বিষয় নিয়ে আলোচনা হবে সেগুলো হচ্ছে: “সামাজিক ব্যবসার জন্য বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি,” “সামাজিক ব্যবসা হিসেবে ক্ষুদ্রঋণের অতীত ও ভবিষ্যৎ,” “সামাজিক ব্যবসায়ে কর্পোরেটসমূহ”, “বেকারত্বকে ব্যবসায়িক উদ্যোগে রূপান্তর” এবং গত দুই বছরে গড়ে ওঠা সামাজিক ব্যবসার ক্ষেত্র “সামাজিক ব্যবসা ও ক্রীড়া।”

তাছাড়াও থাকছে ১০টি ব্রেক-আউট সেশন যেগুলোর বিষয়বস্তু হচ্ছে: “সামাজিক ব্যবসার চালিকা শক্তি হিসেবে তারুণ্য,” “চক্রকার অর্থনীতি গড়ে তুলতে: পানি, প্লাস্টিক ও টায়ার,” “কৃষি ও সামাজিক ব্যবসা,” “সামাজিক ব্যবসার মাধ্যমে স্বাস্থ্য ও পুষ্টি,” “সামাজিক সমস্যার সমাধানে সৃষ্টিশীলতার ব্যবহার,” “কর্পোরেটগুলোকে সামাজিক ব্যবসায়ে নিয়ে আসতে কর্পোরেট অ্যাকশন ট্যাংকের ভূমিকা,” “সামাজিক ব্যবসার অর্থায়ন,” “নবীন উদ্যোক্তা কর্মসূচি,” “সামাজিক ব্যবসার আন্তর্জাতিক রেপ্লিকেশন” এবং “প্রযুক্তি, উদ্ভাবন ও সামাজিক ব্যবসা।”

ওই সম্মেলনে থাকছে সামাজিক ব্যবসার উপর বিশ্ব ব্যাপী সংগঠিত বিভিন্ন আকর্ষণীয় প্রকল্প ও কর্মসূচির উপর পেচা কুচা সেশন। আরো থাকছে সামাজিক ব্যবসা ক্ষেত্রে বিভিন্ন অগ্রগতি বিশেষ করে সামাজিক ব্যবসাকে কেন্দ্র করে পৃথিবীব্যাপী বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে অ্যাকাডেমিক নেটওয়ার্ক “ইউনূস সোশ্যাল বিজনেস সেন্টার” চালু সংক্রান্ত ঘোষণা। উল্লেখ্য যে, সামাজিক ব্যবসার উপর বিভিন্ন অ্যাকডেমিক কোর্স ও কর্মসূচির আয়োজন করতে পৃথিবীর ৫০টিরও বেশী বিশ্ববিদ্যালয় তাদের ক্যাম্পাসে রই মধ্যে ইউনূস সোশ্যাল বিজনেস সেন্টার প্রতিষ্ঠা করেছে।

এতে আরো থাকছে ৬টি যুগপৎ অনুষ্ঠেয় কান্ট্রি ফোরাম যেখানে প্রতিনিধিরা স্ব-স্ব দেশ ও এলাকার সামাজিক ব্যবসা কর্মসূচিগুলো নিয়ে আলোচনা ও পর্যালোচনা করবেন এবং নিজ নিজ দেশ ও এলাকাসমূহে সামাজিক ব্যবসার প্রসারের উদ্দেশ্যে নিজেদের মধ্যে নেটওয়ার্ক গড়ে তোলার সুযোগ পাবেন। এই ফোরামগুলো হচ্ছে: বাংলাদেশ ফোরাম; ভারত ফোরাম, ইউরোপ ফোরাম; জাপান ও থাইল্যান্ডের একটি যৌথ ফোরাম; চীন, হংকং ও তাইওয়ানের একটি যৌথ ফোরাম; এবং অষ্ট্রেলিয়া, মালয়েশিয়া ও ফিলিপাইনের আরেকটি যৌথ ফোরাম।

ওই সম্মেলনের ২য় দিনের কর্মসূচিগুলোর মধ্যে থাকছে সামাজিক ব্যবসা অ্যাকাডেমিয়া সম্মেলনের একটি প্রাক-সম্মেলন। উল্লেখ্য যে, এ বছরের নভেম্বরে জার্মানীর ওলফ্সবার্গে অনুষ্ঠিত হবে সামাজিক ব্যবসা অ্যাকাডেমিয়া সম্মেলন। প্রধানত শিক্ষাবিদ ও গবেষকদের নিয়ে আয়োজিত এই প্রাক-সম্মেলনে নভেম্বরে ওলফ্সবার্গে অনুষ্ঠেয় সামাজিক ব্যবসা অ্যাকাডেমিয়া সম্মেলনের প্রস্তুতি সংক্রান্ত নেটওয়ার্ক এবং এ বিষয়ক অ্যাকাডেমিক অগ্রগতি পর্যালোচনা করা হবে।

অ্যাকাডেমিয়া সম্মেলন পৃথিবীর ২৮টি দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রতিষ্ঠিত ৫৫টি ইউনূস সোশ্যাল বিজনেস সেন্টারকে শক্তিশালী করতেও বিশেষ ভূমিকা পালন করে। বেশ কয়েকজন উপাচার্য ও উপ-উপাচার্য অ্যাকাডেমিয়া সম্মেলনের এই প্রাক-সম্মেলনে অংশ সামাজিক ব্যবসা দিবসে যোগদান করবেন। নভেম্বরে জার্মানীতে অনুষ্ঠেয় সামাজিক ব্যবসা অ্যকাডেমিয়া সম্মেলনে উপস্থাপনের উদ্দেশ্যে এরই মধ্যে ৫০টিরও বেশী গবেষণাপত্র জমা পড়েছে।

ওই সামাজিক ব্যবসা দিবসে অষ্ট্রেলিয়া থেকে আগত কয়েকজন কমেডিয়ান সামাজিক ব্যবসার উপর একটি হাস্যরসাত্মক বিতর্ক উপস্থাপন করবেন। প্রফেসর ইউনূসের সমাপনী ভাষণের মধ্য দিয়ে শেষ হবে সামাজিক ব্যবসা দিবস ২০১৮।


ঢাকা, ২৮ জুন (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।