অবশেষে নতুন ভিসি পেল বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়


Published: 2019-11-03 17:59:52 BdST, Updated: 2019-11-22 18:46:39 BdST

ববি লাইভঃ বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন ভিসি হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজকর্ম বিভাগের প্রফেসর ড. ছাদেকুল আরেফিন (আরেফিন মাতিন)। রাষ্ট্রপতির এক আদেশে তাঁকে এই নিয়োগ প্রদান করা হয়।

রোববার শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সরকারি সাধারণ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এক প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া গেছে।

সংশ্লিষ্ট দপ্তরের সিনিয়র সহকারী সচিব নিলীমা আফরোজ স্বাক্ষরিত ওই প্রজ্ঞাপনে আরো উল্লেখ করা হয়, নিয়োগ হওয়া ভিসিকে চারটি শর্তে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে নিয়োগ প্রদান করা হয়েছে। প্রজ্ঞাপনে ভিসির মেয়াদ উল্লেখ করা হয় ৪ বছর তবে রাষ্ট্রপতি প্রয়োজন মনে করলে এই নিয়োগ বাতিল করতে পারবেন।

ভিসি নিয়োগের বিষয়টি নিশ্চিত করে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আবু জাফর মিঞা জানান, আমরা আনন্দিত। সংকটময় মুহুর্তে ভিসি নিয়োগ না হলে আরো বড় ধরণের সমস্যায় পড়তো বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়। এর জন্য আমরা রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীকে আন্তরিক অভিনন্দন জানাচ্ছি।

উল্লেখ্য, ড. মো. ছাদেকুল আরেফিন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালযে়র একাধিক দায়িত্বে রয়েছেন। তিনি ২০১৩ সাল থেকে রাবির ছাত্র উপদেষ্টা হিসেবে, ২০১৪ সাল থেকে বিশ্ববিদ্যালযে়র সিনেট সদস্য, ২০১৩ সাল থেকে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালযে়র সিন্ডিকেট সদস্য হিসেবেও দাযি়ত্ব পালন করছেন।

প্রজ্ঞাপন

 

এর আগেও তিনি দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালযে়র শিক্ষকদের প্রতিনিধিত্ব ছাড়াও একাধিক দাযি়ত্ব পালন করেছেন।

তিনি ১৯৯৮ সালে বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি ফেডারেশনের সদস্য, ২০০৪ সালে কোষাধ্যক্ষ এবং ২১১ সালে মহাসচিব হিসেবে নির্বাচিত হোন। ২০০৪ সালে রাবি শিক্ষক সমিতির যুগ্ম সম্পাদক ও ২০১১ সালে সাধারণ সম্পাদক,

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সহ-সভাপতি, ১৯৯৮ সালে রাবির নির্বাচিত একাডেমিক কাউন্সিলের সদস্য এবং ১৯৯৯ থেকে ২০০১ সালে রাবির সহকারী প্রক্ট্রর হিসেবে দাযি়ত্ব পালন করেন।

ওই শিক্ষকের বর্তমানে ১৮টি প্রকাশনাসহ একটি বই রযে়ছে এবং তাঁর তত্ত্ববধানে ৪ জন শিক্ষার্থী পিএচইডি ডিগ্রী গ্রহণ করেছেন। এছাড়াও বর্তমানে তিনজন শিক্ষার্থীর পিএচইডি ডিগ্রীর সুপারভাইজারের দাযি়ত্বে রযে়ছেন।

তিনি ১৯৮৪ সালে রাবির সমাজকর্ম বিভাগ থেকে অনার্স এবং ১৯৮৫ সালে মাস্টার্স পাস করেন। বিশ্ববিদ্যালযে়র গবেষণা প্রতিষ্ঠান ইনস্টিটিউট অব বাংলাদেশ স্টাডিজ থেকে ১৯৯৩ সালে এমফিল ও একই প্রতিষ্ঠান থেকে ২০০৪ সালে পিএইচডি ডিগ্রী গ্রহণ করেন।

প্রসঙ্গত, টানা ৩৪ দিন আন্দোলনের পর শিক্ষার্থীদের রাজাকারের বাচ্চা বলে গালি দেয়া ভিসি ইমামুল হককে অপসরাণ করা হয়। এরপর দীর্ঘ ৫ মাস অতিবাহিত হয়ে গেলেও ভিসি নিয়োগ হয়নি। এর কারণে ভর্তি পরীক্ষাও স্থগিত করা হয় বিশ্ববিদ্যালয়টিতে। চরম সংকটের মুখে পরে প্রতিষ্ঠানটি।

ঢাকা, ০৩ নভেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।