পবিপ্রবিতে সেহরির পরেই সংঘর্ষ, ভাংচুর: ১৫ ল্যাপটপ লুট


Published: 2018-06-01 17:46:41 BdST, Updated: 2018-09-24 16:25:30 BdST

পবিপ্রবি লাইভ: পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (পবিপ্রবি) ছাত্রদের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষ ও ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। আঞ্চলিকতার দ্বন্দ্বে বরিশাল ও পটুয়াখালী অঞ্চলের ছাত্ররে মধ্যে ওই সংঘর্ষে অন্তত: ১৫ জন আহত হয়েছেন।

এসময় হলের ৩০টি কক্ষের দরজা-জানালা এবং আসবাবপত্র ভাংচুর করা হয়। এসময় প্রায় ১৫টি ল্যাপটপ লুট করে নিয়ে যায় ছাত্ররা। শুক্রবার ভোরে বিশ্ববিদ্যালয়ের শেরেবাংলা হলে আবাসিক শিক্ষার্থীরে মধ্যে ওই সংঘর্ষ হয়। এঘটনার পর থেকে পবিপ্রবি ক্যাম্পাসে উত্তেজনা দেখা দিয়েছে। পরিস্থিতি মোকাবেলায় রাখতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

জানা যায়, বিশ্ববিদ্যালয়ে শেরেবাংলা আবাসিক হলের গণরুমে জুনিয়রদের ওঠা নিয়ে বরিশাল বনাম পটুয়াখালী অঞ্চলের ছাত্রদের মধ্যে দ্বন্দ্ব দেখা দেয়। এর জের ধরে শুক্রবার ভোরে সাগর নামের এক শিক্ষার্থীর সঙ্গে বরিশাল অঞ্চলের এক শিক্ষার্থীর তর্ক-বিতর্ক হয়।

এর জের ধরে বরিশাল অঞ্চলের শিক্ষার্থীরা সেহরীর সময় পটুয়াখালী অঞ্চলের শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা চালায়। এসময় পটুয়াখালী অঞ্চলের শিক্ষার্থীরা পাল্টা হামলা চালায়। এসময় ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

এতে যোগাযোগ ব্যবস্থাপনা অনুষদের পঞ্চম সেমিষ্টারের ছাত্র আরাফাত ইসলাম সাগর, কৃষি অনুষদের শাকিল, রিয়াজ, হৃদয়, নোমান, রফিক, আতিক, প্রান্ত, বাপ্পি, সৈকতসহ উভয় পক্ষের অন্তত: ১৫জন আহত হন।

এদের মধ্যে সাগর ও হৃদয় নামের দু’জনকে বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সংঘর্ষের সময় শেরেবাংলা আবাসিক ছাত্র হলের ডি-১ (১০১ থেকে ১০৩, ডি-২-২০১ থেকে ২০৬), তৃতীয় তলায় ৩০১-৩০৬ ও ৩১০ নং কক্ষসহ প্রায় ৩০টি কক্ষ ভাংচুর করা হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারি প্রক্টর মো: মেহেদী হাসান জানান, পুলিশের সহায়তায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা হয়েছে। আহতদের চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। বরিশাল অঞ্চলের শিক্ষার্থীরা হলে ও পটুয়াখালী অঞ্চলের শিক্ষার্থীরা বাইরে অবস্থান নেওয়ায় পরিস্থিতি থমথমে রয়েছে। অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে ক্যাম্পাসে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

 


ঢাকা, ১ জুন (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমআই

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।