ভিকারুন নিসা কলেজে অবৈধ ভর্তি ৪৫৯ ছাত্রী


Published: 2019-04-16 20:37:34 BdST, Updated: 2019-07-17 19:24:57 BdST

লাইভ প্রতিতেবদক: রাজধানীর ভিকারুননিসা নূন স্কুল ও কলেজে অতিরিক্ত ৪৫৯ জন শিক্ষার্থী ভর্তি করার অভিযোগ উঠেছে। অবৈধ প্রক্রিয়ায় ছাত্রী ভর্তি করা হয়। এসব শিক্ষার্থীদের এক শাখায় শূন্য আসন দেখিয়ে আরেক শাখায় ভর্তি করা হয়।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে একদফা অভিযোগ তদন্ত করেছে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতর (মাউশি) এবং পরিদর্শন ও নিরীক্ষা অধিদফতরের (ডিআইএ) একটি তদন্ত দল। মাউশিও পৃথকভাবে আরেকটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

অভিযোগ থেকে জানা গেছে, বিধিবহির্ভূত এই ভর্তির নেপথ্যে প্রতিষ্ঠানের সাবেক এক ভারপ্রাপ্ত প্রিন্সিপাল এবং গভর্নিং বডির কয়েক সদস্য মূল ভূমিকা পালন করেছেন। ভর্তির ক্ষেত্রে অর্থের লেনদেনের অভিযোগ করেছেন কেউ কেউ।

অভিযোগকারীদের বক্তব্য, নীতিমালাবহির্ভূত ভর্তির বিষয়টি হালাল করতে কোনো কোনো ক্ষেত্রে প্রভাবশালীদের তদবিরের সুপারিশ রক্ষা করা হয়েছে।

অভিযোগের বিষয়ে ভারপ্রাপ্ত প্রিন্সিপাল হাসিনা বেগম জানান, প্রতিষ্ঠানের সভাপতি এবং গভর্নিং বডি যদি চান তাহলে ভর্তির ক্ষেত্রে ভারপ্রাপ্ত প্রিন্সিপালের করার কিছু থাকে না। চাইলেও এ ধরনের পদে থেকে বাধা দেয়া যায় না। তার দায়িত্ব নেয়ার আগেই এসব ঠিকঠাক করে রাখা হয়েছিল। তিনি দায়িত্ব নেয়ার পর কেবল ভর্তিটা হয়েছে। এ ক্ষেত্রে তিনি কেবল ক্লার্কের কাজ করেছেন।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে ভর্তি বাণিজ্য, দুর্নীতি ও অনিয়মের অভিযোগের পর তদন্ত করার নির্দেশ দেয়া হয় মাউশিকে। পরে মাউশি ৩ সদস্যবিশিষ্ট কমিটি গঠন করে। ওই কমিটির প্রধান করা হয়েছে মাউশির ঢাকা অঞ্চলের পরিচালককে।

সূত্র জানিয়েছে, অতিরিক্ত ও অবৈধ ভর্তির ক্ষেত্রে নানা কৌশলের আশ্রয় নেয়া হয়েছে। কোনো ভর্তির খবর খোদ গভর্নিং বডির সদস্যরাও জানেন না। প্রতিষ্ঠানটিতে এবার প্রথম থেকে নবম শ্রেণী পর্যন্ত ৪৫৯ ছাত্রী অতিরিক্ত ভর্তি করা হয়েছে। কিন্তু সরকারের তদন্ত দলের কাছে ভর্তির সব তথ্য দেয়া হয়েছে। কমিটি কেবল ৩৬৮ জন ভর্তির তথ্য পেয়েছে।

 


ঢাকা, ১৬ এপ্রিল (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমআই

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।